মঙ্গলকোটে অজয় নদে মাছ ধরার সময় গভীর গর্তের জলে ডুবে মৃত্যু প্রৌঢ়ের, অবৈধভাবে বালি তোলায় কী মৃত্যুর কারণ? তদন্তে পুলিশ

মঙ্গলকোটে অজয় নদে মাছ ধরার সময় গভীর গর্তের জলে ডুবে মৃত্যু প্রৌঢ়ের, অবৈধভাবে বালি তোলায় কী মৃত্যুর কারণ? তদন্তে পুলিশ
15 May 2022, 12:15 PM

মঙ্গলকোটে অজয় নদে মাছ ধরার সময় গভীর গর্তের জলে ডুবে মৃত্যু প্রৌঢ়ের, অবৈধভাবে বালি তোলায় কী মৃত্যুর কারণ? তদন্তে পুলিশ

 

প্রদীপ চট্টোপাধ্যায়, বর্ধমান

 

অবৈজ্ঞানিক ভাবে জেসিবি মেশিন দিয়ে অজয় নদ থেকে বালি তোলার কারণে তৈরী হয়েছিল গভীর গর্ত। জাল নিয়ে অজয় নদিতে মাছ ধরতে নেমে ওইরকম গভীর গর্তে পড়ে গিয়ে মৃত্যু হল এক মৎসজীবীর। মৃতের নাম শ্যামসুন্দর মেটে(৫২)।  শুক্রবার বিকালে ঘটনাটি ঘটেছে পূর্ব বর্ধমানের মঙ্গলকোটের মাঝিখাড়া এলাকায়। বেশ কিছুক্ষণের চেষ্টায় বিপর্যয় ব্যবস্থাপন দফতরের কর্মীরা প্রৌঢ়ের মৃতদেহ উদ্ধারে সক্ষম হয়। পুলিশ প্রৌঢ়ের মৃত্যুর ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে।

 

 পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, মৃত প্রৌঢ় শ্যামসুন্দর মেটের বাড়ি মাঝিখাড়া গ্রামেই। গ্রামবাসীদের অভিযোগ জানিয়েছেন, ইজারাদারেরা প্রতিনিয়ত অবৈজ্ঞানিক ভাবে জেসিবি মেশিন দিয়ে অজয় নদে গভীর গর্ত করে বালি তুলে যাচ্ছে। তা নিয়ে প্রশাসন বা ভূমি সংস্কার দফতর কোনো হেলদোল দেখায় না। এইসবের জম্য অজয় নদের বেশীরভাগ জায়গায়  মরনফাঁদ তৈরি হয়েছে। ওই মরণফাঁদ জলে ঢুবে থাকায় কারার বোঝার উপায় নেই সেখানে গেলেই জীবন খোয়াতে হবে। গ্রামবাসীরা জানান, মঙ্গলকোটের মাঝিখাড়া গ্রামের পাশ দিয়ে প্রবাহিত হয়েছে অজয় নদ । ঘটনাস্থলের পাশাপাশি রয়েছে দুটি বালিঘাট।

গ্রামের মৎসজীবী শ্যামসুন্দর মেটে জাল নিয়ে শুক্রবার বিকালে ওই জায়গায় মাছ আচমকাই নিখোঁজ হয়ে যান। এলাকার বাসিন্দারা প্রথমে নদীর জলে তল্লাশি চালান। কিন্তু তাঁর কোনো হদিশ পাওয়া যায় না। সেই  খবর পেয়ে  মঙ্গলকোট থানার পুলিশ ও  বিপর্যয় মোকাবিলা দফতরে লোকজন ঘটনাস্থলে পৌছায়। শেষে ডুবুরিরা জলে নেমে তল্লাশি চালিয়ে প্রৌঢ়কে নদির গভীর গর্ত থেকে প্রৌঢ়কে উদ্ধার করে। এদিনের ঘটনার পর স্থানীয় বাসিন্দা হারাধন মেটে,কালাচাঁদ দাসবৈরাগ্যরা নদীতে মেশিন দিয়ে বেআইনিভাবে বালি তোলা বন্ধ করার দাবি জানিয়েছেন।

ads

Mailing List