পুরুলিয়ার রেলশহর আদ্রার রেল ইয়ার্ডে এলোপাথাড়ি গুলি চালানোর ঘটনায় গ্রেফতার দুই

পুরুলিয়ার রেলশহর আদ্রার রেল ইয়ার্ডে এলোপাথাড়ি গুলি চালানোর ঘটনায় গ্রেফতার দুই
22 May 2022, 03:20 PM

পুরুলিয়ার রেলশহর আদ্রার রেল ইয়ার্ডে এলোপাথাড়ি গুলি চালানোর ঘটনায় গ্রেফতার দুই

 

আশিস বন্দ্যোপাধ্যায়, পুরুলিয়া

 

পুরুলিয়ার রেলশহর আদ্রার রেল ইয়ার্ডে গুলি কান্ডের তদন্তে নেমে দুই জনকে গ্রেফতার করলো পুরুলিয়ার আদ্রা থানার পুলিশ। ধৃতেরা হল রাঁচীর বাসিন্দা বিনয় সিং ওরফে বিট্টু নেপালী ও কলকাতার দমদমের বাসিন্দা রোশন ঠাকুর। এদের মধ্যে বিনয় রেল ইয়ার্ডে এসে গুলি চালিয়েছিল বলে জানাচ্ছে পুলিশ। আর রোশন রেলের ছাঁট লোহার ব্যবসায়ী। সেও ওই ঘটনার সাথে প্রত্যক্ষ ভাবে যুক্ত বলে দাবি পুলিশের।

পুলিশের দাবি, রোশনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডাকা হয়েছিল। তারপরে তাকে শনিবার রাতে গ্রেফতার করা হয়। আর বিনয় কে আদ্রা থানার পুলিশের একটি দল শনিবার গভীর রাতে রাঁচী থেকে গ্রেফতার করেছে। রবিবার দুজনকে রঘুনাথপুর মহকুমা আদালতে তোলা হলে বিচারক দুই জনকেই ১০ দিনের পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছেন।

                                 

প্রসঙ্গত, পুরুলিয়ার রেলশহর আদ্রার রেলের ঝরিয়াডী ইয়ার্ডের রেললাইনে কর্মরত অবস্থায় দুই শ্রমিককের উপর দুষ্কৃতীদের গুলি চালানোর ঘটনায় ১৬ মে ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছিল পুরুলিয়া জেলাজুড়ে। এদিন রেল লাইনে থাকা একটি মালগাড়ি কাটাইয়ের কাজ করছিলেন বেশ কয়েকজন শ্রমিক। সেখানে হঠাৎ একটি মোটর সাইকেলের মধ্যে মুখে কাপড় বাঁধা অবস্থায় দুই ব্যক্তি এসে প্রথমে ঠিকাদারের খোঁজ করে তাকে না পেয়ে একটি হুমকি চিঠি তুলে দেয় মালগাড়ির পরিত্যক্ত কামরার লোহা কাটার কাজে ব্যস্ত শ্রমিকদের হাতে। এরপর কর্মরত সেই শ্রমিকদের লক্ষ্য করে পর পর ৯ রাউন্ড গুলি ছোড়ে। ঘটনার পরেই ঐদিন গুলিবিদ্ধ রক্তাক্ত অবস্থায় সেইসব শ্রমিকদের রঘুনাথপুর সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল। আহতরা ছিলেন অনিল কুমার সাও (৪৫)। বাড়ি বোকারোতে। তার বা পায়ে গুলি লেগেছিল। এবং অপর কর্মচারীর নাম তারক দত্ত (৩৫ )। তার বাড়ি অন্ডালে।

ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুরুলিয়া জেলা পুলিশ সুপার এস সেলভা মুরুগান সহ রঘুনাথপুর মহকুমার এস ডি পি ও  অজয় গণপতি, আদ্রা থানার ভারপ্রাপ্ত পুলিশ আধিকারিক পার্থপ্রতিম রায়, কাশীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত পুলিশ আধিকারিক অমিত মাসন্ত সহ আদ্রা RPF ও GRPF থানার পুলিশ আধিকারিকেরা পৌঁছে বিভিন্ন সূত্র মারফত শুরু করে তদন্ত। আর তাতেই এদিন সাফল্য মেলে পুলিশের।

Mailing List