তৃণমূল বিধায়কদের বিজেপি যোগ! সরকার পড়ে যাওয়ার দাবি, সুকান্ত-মিঠুনের সঙ্গে তরজায় কুণাল

তৃণমূল বিধায়কদের বিজেপি যোগ! সরকার পড়ে যাওয়ার দাবি, সুকান্ত-মিঠুনের সঙ্গে তরজায় কুণাল
27 Sep 2022, 09:15 PM

তৃণমূল বিধায়কদের বিজেপি যোগ! সরকার পড়ে যাওয়ার দাবি, সুকান্ত-মিঠুনের সঙ্গে তরজায় কুণাল

 আনফোল্ড বাংলা প্রতিবেদন: তৃণমূল ছেড়ে দলে দলে নেতারা পদ্মমুখী হচ্ছেন বলে দাবি করেছেন বিজেপি নেতা মিঠুন চক্রবর্তী। তৃণমূলের ২১ জন বিধায়ক সরাসরি তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ রাখছেন বলে জানিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু রাজ্য বিজেপি সভাপতি সুকান্ত মজুমদারের দাবি, সংখ্যাটা একুশের থেকে অনেক বেশি, ৪১-এর কম নয়। এরপরই এই নিয়ে দুই বিজেপি নেতাকেই তীব্র কটাক্ষ করেছেন তৃণমূল মুখপাত্র কুণাল ঘোষ। তিনি জানিয়েছেন, সব অরাজনৈতিক ও হাস্যকর কথাবার্তা বলা হচ্ছে। নিজেরা নিজেদের মধ্যেই প্রতিযোগিতা করছে, কে কত বেশি বলবে। কুণাল বলেন, ভোটের আগে যোগদান মেলাগুলো মনে করুন। তাঁদেরকেই তো ধরে রাখতে পারেননি। যাঁরা চার্টার্ড ফ্লাইটে গেছেন, তাঁরা এখন অটো ধরে ফিরে আসছেন। আর এই ধরনের কথাগুলো সম্পূর্ণ হাস্যকর।

 

সুকান্ত-দিলীপ, এই বিজেপি রাজ্য নেতৃত্বের প্রতি কেন্দ্রের আস্থা নেই বলে তারা অতিথি শিল্পীকে এখানে নাটক করতে পাঠিয়েছে। মিঠুন চক্রবর্তীকে অমিতাভ বচ্চনের ‘দিওয়ার’ ছবিটি দেখার পরামর্শ দিয়েছেন কুণাল। তাঁর কথায়, ‘ওই ছবিতে শশী কাপুর বলেছিলেন, ‘মেরা পাস মা হে’। আমিও বলছি, আমাদের কাছে দিদি আছে। তারপরে সেনাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় আছেন, সমস্ত সাংসদ, বিধায়ক আছেন, সবচেয়ে বড় কথা বাংলার মানুষ মমতাদির নেতৃত্বে তৃণমূলের পাশে আছে। এখন হাস্যকরভাবে একেক জন নানা সংখ্যা বাজারে ভাসিয়ে দিয়ে, বাংলার মানুষকে অসম্মান করছেন। বিধানসভা ভোটের প্রচারে বাংলায় এসেছিলেন। কিন্তু উনি রিজেক্টেড হয়েছেন। এখন একটু বেশি করে হজমিগুলি খেয়ে নিয়ে পরাজয়টা হজম করারাও পরামর্শ দেন তৃণমূল মুখপাত্র। তিনি আরও বলেন, শীত, গ্রীষ্ম, বর্ষা, মমতাই ভরসা। এই বাংলা বাম জামানা থেকে অনেক ভালো আছে।

অন্যদিকে বিজেপির দাবি, মেয়াদ শেষ হওয়ার আগেই রাজ্যের সরকার পড়ে যাবে। শুধু সময়ের অপেক্ষা।

Mailing List