কমিশনের ফুল বেঞ্চের কাছে বিস্ফোরক দাবি তৃণমূল নেতা পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের

কমিশনের ফুল বেঞ্চের কাছে বিস্ফোরক দাবি তৃণমূল নেতা পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের
21 Jan 2021, 06:21 PM

কমিশনের ফুল বেঞ্চের কাছে বিস্ফোরক দাবি তৃণমূল নেতা পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের

 

 

আনফোল্ড বাংলা প্রতিবেদন, কলকাতা: রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচনের প্রস্তুতি খতিয়ে দেখতে রাজ্যে নির্বাচন কমিশনের ফুল বেঞ্চ বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই দফায় দফায় বৈঠক করল। এদিন প্রথমেই রাজ্যের পুলিশ নোডাল অফিসার তথা এডিজি আইনশৃঙ্খলা জ্ঞানবন্ত সিংয়ের সঙ্গে বৈঠক করেন মুখ্য নির্বাচন কমিশনার সুনীল অরোরা। মুখ্য নির্বাচন কমিশনার সুনীল অরোরা রাজ্যের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে এদিন উষ্মাপ্রকাশ করেন। ভোটের আগে বাংলায় শান্তি ফেরানোর উপযোগী পদক্ষেপ করার নির্দেশও তিনি জ্ঞানবন্ত সিংকে দিয়েছেন বলে কমিশন সূত্রে জানা গিয়েছে।

এদিন রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মীদের সঙ্গেও  দেখা করার এবং কথা বলার কথা ছিল মুখ্য নির্বাচন কমিশনার-সহ কমিশনের ফুল বেঞ্চের। সেই অনুযায়ী তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায় সাক্ষাৎ করেন কমিশনার ফুল বেঞ্চের সঙ্গে। পার্থবাবু কমিশনে বিস্ফোরক অভিযোগ করেন। কমিশন থেকে কথা শেষ করে বেরনোর পর পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলেন, “নির্বাচন কমিশনের উপর আস্থা আছে। তবুও বেশ কিছু বিষয় আমরা আলোকপাত করেছি। যেগুলির অবিলম্বে আমরা সুরাহা চেয়েছি। সীমান্তে থাকা বিএসএফ কর্মীরা গ্রামে গ্রামে গিয়ে একটি বিশেষ দলকে সহায়তা করার জন্য সকলকে ভয় দেখাচ্ছেন। তারা বলছেন যদি ভোট না দাও তাহলে কেউ তোমাদের রক্ষা করতে পারবে না। আমরাই সীমান্তে থাকব। আমরা চাই এই বিস্ফোরক অভিযোগের ভিত্তিতে নির্বাচন কমিশন অবিলম্বে হস্তক্ষেপ করুক।”

এদিকে বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ অভিযোগ করেছেন, রোহিঙ্গাদের ভোটার তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করা হচ্ছে। সেকথা কমিশনের কাছে অভিযোগ আকারে জানান পার্থ চট্টোপাধ্যায়। দিলীপ ঘোষকে পার্থবাবু "দিশেহারা ঘোষ" বলে এদিন কটাক্ষ করে পার্থবাবু বলেন, “বিজেপির তরফ থেকে কোনও কোনও নেতা, যেমন "দিশেহারা ঘোষ" অভিযোগ করেছেন রোহিঙ্গা-সহ বাংলাদেশের অনেক ভোটার নাকি তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হয়েছে। এটা সর্বজনবিদিত যে ভোটার তালিকা তৈরি করে নির্বাচন কমিশন। সুতরাং নির্বাচন কমিশনের উপর চাপ সৃষ্টি করছে বিজেপি। এমন পরিবেশ তৈরি করা হচ্ছে যাতে নির্বাচনের প্রতি মানুষের আস্থা আর না থাকে। গণতান্ত্রিক পদ্ধতিকে বিঘ্নিত করারও কৌশল এটি।’’ এছাড়া পার্থ চট্টোপাধ্যায় বিজেপির বিরুদ্ধে ভাষা সন্ত্রাস করার অভিযোগও জানিয়েছেন কমিশনের কাছে। ইভিএম ও ভিভিপ্যাটের বিষয় যতক্ষণ না পর্যন্ত রাজনৈতিক প্রতিনিধিরা সন্তুষ্ট হচ্ছেন ততক্ষণ পর্যন্ত মক পোল করার দাবিও জানিয়েছেন পার্থবাবু।

 

এরপরই বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষও কমিশনের সঙ্গে দেখা করতে যান। কমিশনের ফুল বেঞ্চের সঙ্গে সাক্ষাতের পর সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে তিনি পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের অভিযোগ খারিজ করে দেন । দিলীপ ঘোষের দাবি, “বিএসএফ নিজের কাজ করছে। পুলিশ পক্ষপাতিত্ব করছে। অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনের দাবি জানিয়ে এসেছি।”

 

এদিন বাম ও কংগ্রেসের তরফেও কমিশনার ফুল বেঞ্চের সঙ্গে দেখা করে বেশ কিছু দাবি জানিয়ে আসেন তারা। এই প্রসঙ্গে সিপিএম-এর কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য রবীন দেব বলেন, "আমরা কমিশনার কাছে শান্তিপূর্ণ ও অবাধ নির্বাচনের দাবি জানিয়ে এসেছি। তবে রাজ্যে যে ভাবে তৃণমূল এবং বিজেপি সন্ত্রাসের পরিবেশ তৈরী করছে তার ফলে মানুষের মধ্যে নির্বাচন নিয়ে ভয়ের , আতঙ্কের সৃষ্টি হচ্ছে। তাই আমরা রাজ্যের আইন-শৃঙ্খলা ও শান্তি বজায় রাখার জন্য কমিশনার কাছে আবেদন জানিয়েছে। একই দাবি কংগ্রেসের তরফে আইসিসি সদস্য সৌম্য আইচও করেছেন। তিনি বলেছেন, "এই রাজ্যে নির্বাচনের পূর্ব অভিজ্ঞতা থেকে বলছি রাজ্যের সব নির্বাচনেই রক্ত ঝরে, মানুষ খুন হয়, গোলা গুলি চলে। প্রার্থীরা মার্ খান। বিরোধীদের প্রচারে বাধা দেওয়া হয় কোনও কোনও জায়গায়। এই প্রবণতা যাতে এবারের নির্বাচনে সৃষ্টি না হয় সেই দাবি আমরা কংগ্রেসের তরফে জানিয়েছি।"

এদিনের সবকটি রাজনৈতিক দলের বক্তব্য শুনে মনে হচ্ছে সবাই চান যাতে রাজ্যে অবাধ ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচন হয়। তাহলে কেন ভোটে এতো রক্ত ঝরে সেই প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে।

Mailing List