রাজ্য ছাড়িয়ে ভিন রাজ্যেও কংগ্রেসকে ভাঙতে সক্ষম তৃণমূল, ক্ষতি কার?

রাজ্য ছাড়িয়ে ভিন রাজ্যেও কংগ্রেসকে ভাঙতে সক্ষম তৃণমূল, ক্ষতি কার?
25 Nov 2021, 12:30 PM

রাজ্য ছাড়িয়ে ভিন রাজ্যেও কংগ্রেসকে ভাঙতে সক্ষম তৃণমূল, ক্ষতি কার?

 

পশ্চিমবঙ্গে কংগ্রেস ভেঙেই জন্ম হয়েছিল তৃণমূলের। দীর্ঘ লড়াই শেষে বামফ্রন্টকে ক্ষমতাচ্যুত করে রাজ্যের মসনদে বসেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তারপর থেকে টানা তিনবার - রাজ্যের ক্ষমতায় রয়েছে, শুধু একথা বললে ভুল হবে। বিপুল আসন নিয়ে ক্ষমতায় এসেছে।

 

আর যত দিন গিয়েছে ততই ভেঙেছে কংগ্রেস। এখন প্রদেশ কংগ্রেসের হাতে গোনা ক’জন নেতা ছাড়া বাকি সকলেই তো তৃণমূলে। কংগ্রেসে আছেন বলতে প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীররঞ্জন চৌধুরী, আব্দুল মান্নান, প্রদীপ ভট্টাচার্যদের মতো হাতে গোনা ক’জন। প্রতি জেলাতেও কিন্তু অবস্থাটা তাই। এক কথায় পশ্চিমবঙ্গে এখন‌ আলাদা করে কংগ্রেসের অস্তিত্ব নেই বললেই চলে। তাই গতবারের নির্বাচনে বামফ্রন্ট ও কংগ্রেস (সঙ্গে আইএসএফ ছিল) জোট বেঁধেও রাজ্যে একটি আসনও পায়নি। একটি দল তৃণমূল আসার আগে ৩৪ বছর রাজ্যের ক্ষমতায় ছিল। আর কংগ্রেস, বিশেষত মালদা, মুর্শিদাবাদ থেকে শূন্য হাতে ফিরবে তা কেউ আশা করেনি।

 

আর এই জয় পাওয়ার পরই দেশজুড়ে কংগ্রেসে ভাঙন শুরু হয়েছে। আসামের কংগ্রেসনেত্রী সুস্মিতা দেব-কে দেখুন। এখন তৃণমূলে। গোয়ার প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তথা কংগ্রেস নেতা লুইজিন‌ো ফ্যালেরিও এখন তৃণমূলে। সদ্য যোগ দিলেন প্রাক্তন ক্রিকেটার তথা কংগ্রেস নেতা কীর্তি আজাদ। হরিয়ানার প্রাক্তন কংগ্রেস সাংসদ অশোক তানওয়ার। এবার যোগ দিতে যাচ্ছেন মেঘালয়ের ১২ জন কংগ্রেস বিধায়ক! যা কংগ্রেসের কাছে বড় ধাক্কা তো বটেই। কারণষ এই মুহূর্তে মেঘালয়ে কংগ্রেসের ১৮ জন বিধায়ক। তার মধ্যে ১২ জন তৃণমূলে বেরিয়ে গেলে কংগ্রেসের থাকলো টা কী? আর এই কাজটি যিনি করলে‌ন তিনি হলেন মেঘালয়ের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী মুকুল শর্মা!

 এই ঘটনার পর প্রশ্ন উঠছে, কংগ্রেস কেন ভাঙছে? কেন সকলেই তৃণমূলে যোগ দিচ্ছেন? তাহলে কী দেশজুড়ে বিজেপি বিরোধী লড়াইয়ের মুখ হয়ে উঠছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কংগ্রেস বা সনিয়া গান্ধী, রাহুল গান্ধীরা কেন কংগ্রেস কর্মীদের চাঙ্গা করতে পারছেন না। কেনই বা হতাশায় বা ক্ষোভে বেরিয়ে যাচ্ছেন? শেষ পর্যন্ত তৃণমূল অন্যান্য রাজ্যে কতটা ভালো ফল করবে তা এখুনি বলা কঠিন। তবে এভাবে চলতে থাকলে কংগ্রেসের ভবিষ্যৎ নিয়ে কিন্তু প্রশ্নচিহ্নটা উঠে যাবে। তাতে আখেরে বিজেপির লাভের সম্ভাবনা বেশি। তবে যদি তৃণমূল দেশজুড়ে বিজেপিকে পর্যুদস্ত করতে পারে তখন অন্য কথা। এই সম্ভাবনার বীজ সবে অঙ্কুরিত। তাই ভবিষ্যত নিয়ে এখুনি কিছু বলা কঠিন।  

ads

Mailing List