স্বামীর পরকীয়া সম্পর্কের প্রতিবাদ, অন্তঃসত্ত্বাকে শ্বাসরোধ করে খুনের অভিযোগ

স্বামীর পরকীয়া সম্পর্কের প্রতিবাদ, অন্তঃসত্ত্বাকে শ্বাসরোধ করে খুনের অভিযোগ
21 Jan 2021, 04:12 PM

স্বামীর পরকীয়া সম্পর্কের প্রতিবাদ, অন্তঃসত্ত্বাকে শ্বাসরোধ করে খুনের অভিযোগ

মধুমিতা দে, মালদা

অপরাধ ছিল স্বামীর পরকীয়া সম্পর্কের প্রতিবাদ করেছিলেন। তাই তিন মাসের অন্তঃসত্ত্বা বধূকে প্রাণ দিয়ে চোকাতে হল দাম। স্ত্রীয়ের পেটে লাথি মেরে শ্বাসরোধ করে খুনের অভিযোগ উঠলো স্বামীসহ শ্বশুরবাড়ির বিরুদ্ধে। বুধবার রাতে চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে কালিয়াচক থানার জালুয়াবাথাল গ্রাম পঞ্চায়েতের সৈয়দপুর গ্রামে। এই ঘটনায় মৃত গৃহবধূর পরিবারের অভিযোগের ভিত্তিতে অভিযুক্ত স্বামী সোহেল কাজি এবং শাশুড়ি কাশ্মিরা বিবিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। রাতেই মৃত গৃহবধূর দেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মালদা মেডিকেল কলেজের মর্গে পাঠানোর ব্যবস্থা করেছে তদন্তকারী পুলিশ কর্তারা। পাশাপাশি পুরো ঘটনাটি নিয়ে তদন্ত শুরু করেছে কালিয়াচক থানার পুলিশ।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, মৃত গৃহবধূর নাম সালিমা বিবি (২৪)। তার বাবার বাড়ি জালুয়াবাথাল গ্রামে। পাঁচ বছর আগে পাশের গ্রাম সৈয়দপুর এলাকার বাসিন্দা সোহেল কাজির সঙ্গে বিয়ে হয় সালিমা বিবির। তাদের এক বছরের কন্যা সন্তান রয়েছে। এরপর ওই গৃহবধূটি তিন মাসের অন্তঃসত্ত্বা ছিলন। ওই গৃহবধূর স্বামী সোহেল কাজি ভিন রাজ্যে দিনমজুরির কাজ করে। একমাস আগে সোহেল কাজী তার গ্রামের বাড়িতে ফিরে আসে। এরপর ওই গ্রামেরই এক মহিলার সঙ্গে পরকীয়া সম্পর্কে জড়িয়ে পরে। বিষয়টি জানতে পারে সালিমা বিবি। এনিয়ে প্রতিবাদ করেছিলেন তিনি। আর তারপরেই কয়েকদিন ধরেই সংসারে শুরু হয় অশান্তি। এরপর সালিমা বিবির রহস্যজনকভাবে মৃত্যুর ঘটনাটি ঘটে।

মৃত গৃহবধূর এক কাকা মহম্মদ জিয়াউল চৌধুরী পুলিশকে অভিযোগে জানিয়েছেন, ভাইজি সালিমার স্বামী প্রতিবেশী এক মহিলার সঙ্গে গত একমাস ধরে পরকীয়া সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েছিলো। বিষয়টি জানতে পেরে সালিমা বিবি প্রতিবাদ করেছিলেন। ও তিন মাসের অন্তঃসত্তা ছিলো। কিন্তু এই বিষয়ে প্রতিবাদ করা নিয়ে সালিমার ওপর অত্যাচার শুরু করে জামাইসহ শ্বশুরবাড়ির লোকেরা। তাকে মারধর করা হতো। এই অত্যাচারের কথা সালিমা আমাদের মোবাইলে ফোন করে জানিয়েছিলেন। এরপরই বুধবার রাতে সালিমা বিবির মৃত্যুর খবর জানতে পারি। সালিমার মুখে-গলায় এবং পেটে আঘাতের চিহ্ন দেখেই অনুমান করা হচ্ছে ওকে অত্যাচার করে, মুখে বালিশ চাপা দিয়ে শ্বাসরোধ করে খুন করা হয়েছে।

মৃত গৃহবধূর বাবা মোহাম্মদ তাফিউদ্দিন চৌধুরী বলেন, পরকীয়া সম্পর্কের প্রতিবাদ নিয়েই গোলমাল চলছিল ওদের সংসারে। পরকীয়া সম্পর্কের ঘটনার জেরে আমার মেয়েকে যে এভাবে খুন করতে পারে তা ভাবতেই পারছি না। মেয়ের মুখ এবং গলায় ক্ষত চিহ্নের আঘাত রয়েছে। পেটে আঘাত রয়েছে। মেয়ের ওপর নৃশংস অত্যাচার করেই ওকে খুন করেছে জামাই সহ শ্বশুরবাড়ির লোকেরা। এই ঘটনার বিষয়ে পাঁচজনের বিরুদ্ধে কালিয়াচক থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

কালিয়াচক থানার পুলিশ জানিয়েছে, গৃহবধূ খুনের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে অভিযুক্ত স্বামী সোহেল কাজী এবং শাশুড়ি কাশ্মীরা বিবিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকি অভিযুক্তদের খোঁজ চালানো হচ্ছে। পাশাপাশি ময়নাতদন্তের রিপোর্ট হাতে পাওয়ার পরই ওই গৃহবধূর মৃত্যুর প্রকৃত কারণ সম্পর্কে বলা যাবে । এব্যাপারে তদন্ত শুরু করা হয়েছে।

 

Mailing List