এবার করোনার আরো ভয়ঙ্কর প্রজাতি, তিনজনে এক জনের মৃত্যু!

এবার করোনার আরো ভয়ঙ্কর প্রজাতি, তিনজনে এক জনের মৃত্যু!
29 Jan 2022, 12:15 PM

এবার করোনার আরো ভয়ঙ্কর প্রজাতি, তিনজনে এক জনের মৃত্যু!

 

আনফোল্ড বাংলা ডেস্ক: ফের আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ল। এবার করোনারি নতুন এক ভয়ঙ্কর এক প্রজাতির সন্ধান মিললো। চিনের উহানের বিজ্ঞানীরা, যেখানে কোভিড -১৯ ভাইরাসটি ২০১৯ সালে প্রথম আবিষ্কৃত হয়েছিল, তারা দক্ষিণ আফ্রিকায় একটি নতুন ধরণের করোনা ভাইরাস 'নিওকভ' সম্পর্কে সতর্ক করেছে। যে ভাইরাসে সংক্রমণ ও মৃত্যুর হার যথেষ্ঠ ওপরে।

 

মার্স-কোভ ভাইরাসের সাথে যুক্ত এই অতি বিপজ্জনক ভাইরাসটি ২০১২ এবং ২০১৫ সালে মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে প্রাদুর্ভাবের মধ্যে আবিষ্কৃত হয়েছিল। এবং এটি সার্স-কোভ-২-এর মতোই, যা মানুষের মধ্যে করোনভাইরাসকে তীব্রভাবে ছড়িয়ে দেয়। যদিও 'নিওকোভ' দক্ষিণ আফ্রিকার একটি বাদুড় প্রজাতির মধ্যে আবিষ্কৃত হয়েছিল। এবং প্রথমে শুধুমাত্র এই প্রাণীদের মধ্যে ছড়িয়ে পড়েছিল বলে জানা গিয়েছে। একটি ওয়েবসাইটে প্রকাশিত তথ্য অনুযায়ী, নতুন গবেষণায় নতুন ফল মিলেছে। আবিষ্কার হয়েছে  যে, 'নিওকোভ' এবং এর নিকটাত্মীয় পিডিএফ-২১৮০-কোভ মানুষের মধ্যে ব্যাপক হারে সংক্রমিত হতে পারে।

 

উহান বিশ্ববিদ্যালয় এবং চাইনিজ একাডেমি অফ সায়েন্সেসের ইনস্টিটিউট অফ বায়োফিজিক্সের গবেষকদের মতে, মানুষের কোষে ভাইরাসের অনুপ্রবেশের জন্য শুধুমাত্র একটি মিউটেশন প্রয়োজন। গবেষণার ফলাফলে বলা হয়েছে যে, নতুন করোনা ভাইরাস একটি ঝুঁকি তৈরি করে। কারণ এটি করোনভাইরাস প্যাথোজেনের চেয়ে আলাদাভাবে এসিই২ রিসেপ্টরের সঙ্গে আবদ্ধ হয়। ফলস্বরূপ, শ্বাসকষ্টজনিত রোগ দেখা যায়। তখন অ্যান্টিবডি বা প্রোটিন অণুগুলি 'নিওকোভ' থেকে রক্ষা করতে পারে না।

 

চিনা গবেষকদের মতে, 'নিওকোভ' মার্সে আক্রান্ত রোগীদের মৃত্যুর হার প্রতি তিনজনের মধ্যে একজন। রাশিয়ান স্টেট ভাইরোলজি এবং বায়োটেকনোলজি রিসার্চ সেন্টারের বিশেষজ্ঞরা এমনটাই জানিয়েছেন। গবেষণায় আরো জানা গিয়েছে, কোভিড-১৯ দূরীকরণের টিকা এই রোগ থেকে বাঁচার ক্ষেত্রে পর্যাপ্ত প্রতিষেধক হয়ে উঠতে পারবে না।

ads

Mailing List