রং-তুলির টানে মানুষকে সচেতন করতে রাস্তায় ওরা

রং-তুলির টানে মানুষকে সচেতন করতে রাস্তায় ওরা
26 Jul 2020, 06:18 PM

রং-তুলির টানে মানুষকে সচেতন করতে রাস্তায় ওরা

গোপাল বন্দ্যোপাধ্যায়, পশ্চিম বর্ধমান

করোনার আবহে করণা সংক্রমনের সংখ্যা ঊর্ধ্বমুখী, প্রশাসনিক  তৎপরতা তুঙ্গে , বিভিন্নভাবে  সাধারণ মানুষকে সচেতন করার পাশাপাশি সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন উদ্যোগ ইতিমধ্যেই চোখে পড়েছে।  তবু যেন হুঁশ ফিরছে না  সাধারণ মানুষের একাংশের । সরকারি বিধিকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে যেখানে সেখানে চলছে বিধি ভাঙার খেলা । তবুও মহামারীর এই সংকটপূর্ণ সময়ে  মানুষকে সচেতন করতে এক অন্যভাবে  রাস্তায় নামলো আসানসোলের রানীগঞ্জের একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের সদস্যরা ।

বেশ কিছুদিন ধরেই রানীগঞ্জ এলাকায় করোনা সংক্রমিত সংখ্যা ক্রমশঃ  বাড়তে থাকায়  আসানসোল পুরনিগম এলাকায় এক সপ্তাহের লকডালকডাউনের ঘোষণা করেছিলেন। গত ১৯  জুলাই থেকে রানীগঞ্জের দুটি ওয়ার্ড এ লকডাউন চলছে । যদিও এর শেষ দিন শনিবারই। আর এই পরিস্থিতি কে সামনে রেখেই রানিগঞ্জ শহরবাসীকে করোনা সংক্রমণ থেকে দূরে রাখার লক্ষ্যে, রাস্তায় নামল ভয়েজ লেস নামক স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার সদস্যরা।

পুলিশ প্রশাসনের সহায়তায় রানীগঞ্জের বেশ কয়েকটি এলাকায় বিভিন্ন সচেতনতামূলক ছবি এঁকে মানুষজনেদের সচেতন করার উদ্যোগ নেন তারা । করোনা ভাইরাসের আদলে ছবি এঁকে তাতে বিভিন্ন উপদেশ তুলে ধরলো ওই সংগঠনের সদস্যরা। মাস্ক পরে বাইরে বেরোনো, সামাজিক দূরত্ব বজায় ও বাইরে থেকে কেউ এলে ১৪ দিন হোম কোরেন্টাইনে থাকা, হাতকে ভালোভাবে ধুয়ে জীবাণুমুক্ত করা-সহ একাধিক বিষয় তারা তাদের লেখার মধ্যে তুলে ধরেন।

এমনিতেই রানীগঞ্জের রাস্তাঘাট ফাঁকা, এই কয়েকটা দিন নির্জন-নিস্তব্ধ রানীগঞ্জ খনি অঞ্চল। আর শনিবার সাপ্তাহিক লক ডাউনের দ্বিতীয় দিন হওয়ায় জনমানবশূন্য,  সেই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে রং তুলির টানে বিভিন্ন বিষয় ওই সংস্থার শিল্পীরা রাস্তার উপর তুলে ধরে মানুষজনদের সচেতন করার উদ্যোগ নিল। এ ধরনের কর্মসূচিকে সাধুবাদ জানিয়েছেন এলাকার বিশিষ্ট জনেরা।  একইভাবে এই উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছেন ট্রাফিক পুলিশকর্মী আধিকারিকরা । এই সংস্থাকে ইতিমধ্যেই রানীগঞ্জের বেশ কয়েকটি উন্নয়নমুখী কাজ করতে দেখা গেছে।

Mailing List