বন্দুক দেখিয়ে সরকারী আধিকারিককে দিয়ে রাস্তা মেরামত করাল গ্রামবাসীরা, অভিযোগ পেয়ে পুলিশের জালে ৩০ জন

বন্দুক দেখিয়ে সরকারী আধিকারিককে দিয়ে রাস্তা মেরামত করাল গ্রামবাসীরা, অভিযোগ পেয়ে পুলিশের জালে ৩০ জন
22 Sep 2022, 11:26 PM

বন্দুক দেখিয়ে সরকারী আধিকারিককে দিয়ে রাস্তা মেরামত করাল গ্রামবাসীরা, অভিযোগ পেয়ে পুলিশের জালে ৩০ জন

 

আনফোল্ড বাংলা প্রতিবেদন: দীর্ঘদিন ধরেই খারাপ রাস্তা নিয়ে ক্ষোভ ছিল গ্রামবাসীদের। অনেকবার জানিয়েও মেলেনি কোনও ফল। এই অবস্থায় প্রশাসনের ওপর ক্রমশ জমছিল রাগ। কিন্তু তার বহিঃপ্রকাশ যে এভাবে হবে কেউ কল্পনাই করতে পারেনি। হতাশ, বিরক্ত গ্রামবাসীরা শেষমেশ আগ্নেয়াস্ত্র দেখিয়ে সংশ্লিষ্ট আধিকারিককে তুলে নিয়ে গিয়ে তাঁকে বন্দুকের নলের সামনে সারারাত দাঁড় করিয়ে রেখে রাতারাতি রাস্তা সারাতে বাধ্য করল। উত্তরপ্রদেশের গুরুগ্রামের নৌরংপুর গ্রামের ঘটনা। ঘটনা সামনে আসতেই তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে গোটা দেশে। অভিযোগ পেয়ে এখনও পর্যন্ত ৩০ জনকে আটক করেছে পুলিশ। ধৃতদের মধ্যে ব্লক সমিতির প্রাক্তন এক চেয়ারম্যানও রয়েছেন। ধৃতদের বিরুদ্ধে অভিযোগ, গুরুগ্রাম মেট্রোপলিটন ডেভেলপমেন্ট অথরিটি বা জিএমডিএ-র কর্মী ও আধিকারিকদের বন্দুক দেখিয়ে জোর করে তুলে নিয়ে গিয়ে এক রাতের মধ্যে ৫০ মিটার রাস্তার প্যাচওয়ার্ক করতে বাধ্য করেছেন।

পুলিশ দাবি করেছে স্থানীয় ব্লক সমিতির প্রাক্তন ওই চেয়ারম্যানই নাটের গুরু। তাঁর বুদ্ধিতেই এই কাণ্ড ঘটেছে। তার নাম, হোশিয়ার সিং। অভিযোগ, তাঁর একটি  পেট্রল পাম্প আছে। কিন্তু সেই পাম্পের সামনের রাস্তা খুব খারাপ। ফলে সেখানে গাড়ি আসতে পারছিল না। ফলে তাঁর ক্ষতি হচ্ছিল। সেই জন্য পরিকল্পনা করে এই কাণ্ড ঘটিয়েছেন তিনি। অবশ্য তাঁর দাবি, গত দু'মাসে ওই এলাকায় অন্তত ২০টি পথ দুর্ঘটনা ঘটেছে। তাই সমস্ত গ্রামবাসীরাই চাইছিলেন, যত দ্রুত সম্ভব রাস্তা সরানো হোক। এর আগে একাধিকবার  কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন জানানো হলেও কোনও লাভ হয়নি। জিএমডিএর এক কর্তা জানান, অন্য একটি রাস্তা সারাইয়ের কাজ চলছিল একজন বেসরকারি কন্ট্রাক্টরের অধীনে। সেই সময় আচমকাই ৩০ জন গ্রামবাসী আগ্নেয়াস্ত্র এবং লাঠি নিয়ে তাঁদের উপর চড়াও হয়। ভয় দেখিয়ে তাঁদের তাউরু রোডের একটি পেট্রল পাম্পের সামনে নিয়ে যাওয়া হয়। দুষ্কৃতীরা ৩টি মেশিন এবং নির্মাণকাজের জন্য রাখা অন্যান্য জিনিসপত্রও নিয়ে যায়। এরপর তাঁদের দিয়ে জোর করে ৫০ মিটার রাস্তায় প্যাচওয়ার্ক করানো হয়। ধৃত ৩০ জনের বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির একাধিক ধারায় মামলা রুজু করেছে পুলিশ। ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে।

Mailing List