আদিবাসী তীরের কদর বাড়লো কী পঞ্চায়েত ভোটের লক্ষ্যেই

আদিবাসী তীরের কদর বাড়লো কী পঞ্চায়েত ভোটের লক্ষ্যেই
17 Nov 2022, 12:37 AM

আদিবাসী তীরের কদর বাড়লো কী পঞ্চায়েত ভোটের লক্ষ্যেই

 

আনফোল্ড বাংলা প্রতিবেদন: আদিবাসী তীরে বিদ্ধ অখিল থেকে শুভেন্দু। আর তা নিয়ে রাজ্য থেকে দেশ তোলপাড়। একজনের বিরুদ্ধে অভিযোগ, তিনি দেশের রাষ্ট্রপতিকে অসম্মান করেছেন। অসম্মান করেছেন আদিবাসী সমাজকে। অন্যদের অভিযোগ, রাজ্যের মন্ত্রীকে অপমান করা হয়েছে।

কারা অপমান করেছেন? অভিযোগ অনুযায়ী, একজন অখিল গিরি। তিনি তৃণমূলের বর্ষীয়ান নেতা। বিধায়ক এবং রাজ্যের এক প্রতিমন্ত্রী। আর অন্যজন হলেন রাজ্যের বিরোধী দলনেতা। শুভেন্দু অধিকারী।

অখিল গিরি কী বলেছিলেন? অখিল গিরিকে বলতে শোনা যায়, ‘আমরা রূপের বিচার করি না। তোমার রাষ্ট্রপতির চেয়ারকে আমরা সম্মান করি। তোমার রাষ্ট্রপতিকে কেমন দেখতে বাবা!’

আর শুভেন্দু অধিকারী কী বলেছিলেন? শুভেন্দু অধিকারীকে বীরবাহা হাঁসদাদের উদ্দেশ্য করে বলতে শোনা যায়, এই যেগুলা বসে আছে সেগুলো শিশু। এই দেবনাথ হাঁসদা, বীরবাহা এরা সব শিশু। আমার জুতোর নীচে থাকে।

অখিল গিরির বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ করেছে বিজেপি। আদিবাসী সমাজের একাংশ আন্দোলনে নেমেছে পথে। তৃণমূলের মন্ত্রীকে পর্যন্ত সেই বিক্ষোভে পড়তে হয়েছে।

 শুভেন্দু অধিকারীর নামে এসসি-এসটি আইনে মামলা দায়ের করেছেন রাজ্যের প্রতিমন্ত্রী বীরবাহা হাঁসদা। এব্যাপারে তিনি বলেন, ‘‘বীরবাহা হাঁসদা বলেন, আমাকে আর বিনপুর এর বিধায়ক দেবনাথ হাঁসদা কে নিয়ে বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী যে কথাটা বলেছেন, আমাদের উনি পায়ের তলায় জুতোর নিচে রাখেন। আমরা আদিবাসী সম্প্রদায়ের মানুষ বলে এধরনের কথা উনি মুখ থেকে বের করতে পেরেছেন। কোন ভদ্র শিক্ষিত মানুষ এধরনের কথা বলতে পারবে না। আদিবাসী মানুষ হিসেবে ধিক্কার জানাচ্ছি, প্রতিবাদ জানাচ্ছি। ঝাড়গ্রাম থানায় ওনার বিরুদ্ধে এসসি এসটি ধারায় অভিযোগ জানিয়েছি।’’

সামনে পঞ্চায়েত নির্বাচন। এবার কী তবে আদিবাসী তীরকেই হাতিয়ার করছে দু’টি দল। এতদিন যেখানে রাজ্যজুড়ে অন্যান্য সম্প্রদায়তে তোষণ নিয়ে তীব্র বিরোধীতার জায়গা তৈরি হয়েছিল, হঠাৎ কিভাবে এই পথে ঘুরলো রাজনীতি। যেখা‌নে দুর্নীতি, স্বজনপোষণ থেকে শুরু করে নানা ইস্যু রয়েছে। চলছে তীব্র আন্দোলন। তাহলে কী পথ ঘোরানোই লক্ষ্য?

প্রশ্নের উত্তর অবশ্য সময় দেবে। তবে এটুকু বলা যায় আদিবাসী তীরের কদর বেড়েছে। ক্ষমতাসীন ও বিরোধী – দু’পক্ষের কাছেই। এই তীর কাকে বিদ্ধ করবে আর কাকে প্রাণ দেবে সে উত্তরও হয়তো সময়েই মিলবে।

Mailing List