টাকার বিনিময়ে বানানো হচ্ছিল ভুয়ো স্বাস্থ্যসাথী , অন্ডালে গ্রেফতার প্রতারক

টাকার বিনিময়ে বানানো হচ্ছিল ভুয়ো স্বাস্থ্যসাথী , অন্ডালে গ্রেফতার প্রতারক
06 Oct 2021, 07:42 PM

টাকার বিনিময়ে বানানো হচ্ছিল ভুয়ো স্বাস্থ্যসাথী , অন্ডালে গ্রেফতার প্রতারক

 

আনফোল্ড বাংলা প্রতিবেদন : টাকার বিনিময়ে  বানিয়ে দেওয়া হচ্ছিল স্বাস্থ্য সাথী কার্ড। শেষ পর্যন্ত জানা গেল যে স্বাস্থ্য সাথী কার্ড বানিয়ে দেওয়া হচ্ছিল সেটা আসলে  ভুয়ো 'স্বাস্থ্য সাথী' কার্ড।   এক মহিলার স্বাস্থ্য সাথী কার্ড বানানোর পরে তাদের সন্দেহ হয়।  তারপরেই অভিযোগ জানানো হয় পুলিশের কাছে। আর এই জাল স্বাস্থ্য কার্ড বানানোর ঘটনায় গ্রেফতার করা হয়েছে ওই  প্রতারককে।  ধৃতের নাম দিলীপ বার্নওয়াল।  তাকে ধরেছে পশ্চিম বর্ধমান জেলার অন্ডাল থানার পুলিশ । ধৃত ব্যক্তি  উখড়া এলাকার  বাসিন্দা।    এদিকে তার কাছে কার্ড বানিয়ে আরও অনেকেই প্রতারিত হয়েছেন বলেও অভিযোগ।পুলিশ  জানিয়েছে, পুরো বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

চিকিৎসার  সুবিধার জন্য এখন অনেকেই তৈরি করিয়ে রাখছেন স্বাস্থ্যসাথী কার্ড।  অনেকেরই কার্ড এখনও বানানো হয় হয় নি।  আর এই সুযোগটাকেই কাজে লাগাচ্ছে কিছু অসাধু মানুষজন।

পুলিশ জানিয়েছে, অভিযোগের ভিত্তিতে  ভুয়ো স্বাস্থ্যসাথী কার্ড বানানোর অভিযোগে মঙ্গলবার যাকে  গ্রেফতার করা হয়েছে সেই ব্যক্তি পেশায় মোবাইল ফোনের দোকানদার।  তাকে জেরা করে বড়সড় জালিয়াতির ঘটনা সামনে আসবে বলে মনে করছে অন্ডাল থানার পুলিশ।

জানা গিয়েছে, দিলীপ বার্নওয়ালের কাছে স্বাস্থ্যসাথী কার্ড বানিয়ে প্রতারণার শিকার হন রীতা বার্নওয়াল নামে এক মহিলা। তিনি জানান,  কার্ড তৈরির পর তা ঠিক কিনা তা পরীক্ষা করার জন্য দুয়ারে সরকার শিবিরে যান তিনি। সেখানে সেটি পরীক্ষা করে তাঁকে জানানো হয়, ওই কার্ড নম্বরে কিছুই দেখাচ্ছে না। শিবিরে উপস্থিত কর্মীরা জানান, কার্ডটি ভুয়ো।

ওই মহিলার স্বামী প্রদীপ বার্নওয়াল বালেন,  “আমাদের পরিবারে স্বাস্থ্যসাথী কার্ড ছিল না। খবর পাই দিলীপ বার্নওয়াল স্বাস্থ্যসাথী কার্ড করে দিচ্ছেন। তাকে ২৬০০ টাকা দিয়ে স্বাস্থ্যসাথী বানিয়ে নিই। কিন্তু সেটি নিয়ে সন্দেহ হওয়ায় কার্ডটি নিয়ে পরে অন্ডালের বিডিওর কাছে যাই। সেখানে গিয়ে জানাতে পাই কার্ডটি ভুয়ো।”

অভিযোগের ভিত্তিতে মঙ্গলবার রাতে অন্ডালের সারদা পল্লী থেকে গ্রেফতার করা হয় দিলীপ পার্নওয়ালকে।

জেলা মহিলা তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী মিনতি হাজরা বলেন,  “রাজ্যবাসীর সুবিধার জন্য মুখ্যমন্ত্রী এই প্রকল্পটি চালু করেছেন। আর মুনাফার লোভে কিছু মানুষ ভুয়ো কার্ড বানিয়ে মানুষকে প্রতারণা করছে।”

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে,  শুধুমাত্র রীতা বার্নওয়ালই নন, দিলীপ বার্নওয়ালের কাছে স্বাস্থ্যসাথী কার্ড করিয়ে প্রতারিত হয়েছেন অনেকেই। তারা পুরো বিষয়টি খতিয়ে দেখছেন। এর পিছনে কোনও চক্র আছে কী না সেটাও জানার চেষ্টা করছে পুলিশ।

ads

Mailing List