দম্পতি ও কন্যার রহস্য মৃত্যু ঘিরে চাঞ্চল্য বর্ধমানে, তবে সুস্থ রয়েছে ছেলে

দম্পতি ও কন্যার রহস্য মৃত্যু ঘিরে চাঞ্চল্য বর্ধমানে, তবে সুস্থ রয়েছে ছেলে
07 Apr 2021, 09:13 PM

দম্পতি ও কন্যার রহস্য মৃত্যু ঘিরে চাঞ্চল্য বর্ধমানে, তবে সুস্থ রয়েছে ছেলে

 

প্রদীপ চট্টোপাধ্যায়, বর্ধমান

 

বাড়িতেই রহস্য জন্ক মৃত্যু হল একই পরিবারের তিন সদস্যের। এই ঘটনা ঘিরে বুধবার সকাল থেকে ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়েছে শহর বর্ধমানের লাকুড্ডি সারতলা এলাকায়। খবর পেয়ে বর্ধমান থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে দম্পতি ও তাঁদের কিশোরী কন্যার মৃতদেহ উদ্ধার করে।

 

তবে দম্পতির কিশোর ছেলে সুস্থ রয়েছে।পুলিশের প্রাথমিক অনুমান কিশোরী কন্যাকে প্রাণে মারর পর দম্পতি আত্মঘাতী হয়ে থাকতে পারেন। ময়নাতদন্তের জন্য এদিনই তিনটি মৃতদেহ পাঠানো হয় বর্ধমান হাসপাতাল পুলিশ মর্গে। দম্পতি ও তাঁদের কন্যার মৃত্যুর প্রকৃত কারণ কি তার তদন্ত পুলিশ শুরু করেছে।

 

 

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে ,মৃতদের নাম বিকাশ কুমার সাউ (৪২), প্রিয়াঙ্কা সাউ (৩৮) ও সুরভী সাউ (১৩)। দম্পতির আদি বাড়ি উত্তরপ্রদেশের আজমগড়ে হলেও পারিবারিক আশান্তির কারণে তাঁরা বর্ধমানে থাকতেন।

 

বিকাশ বর্ধমানে সবজির দোকান চালাতেন। স্থানীয়রা বলেন, এদিন সকালে দম্পতির ছেলে কান্নাকাটি করতে করতে বাড়ি নিচে নেমে আসে। সে এলাকার কয়েক জনকে জানায় ঘরের মধ্যে তাঁর বাবা, মা গলায় ফাঁস লাগিয়ে ঝুলছে।এমনটা শুনে এলাকার লোকজন ঘরে গিয়ে দেখেন বিকাশ কুমার সাউ ও প্রিয়াঙ্কা সাউ গলায় ফাঁস লাগানো অবস্থায় ঝুলছে। আর বিছানায় পড়ে রয়েছে তাঁদের মেয়ে সুরভী সাউ এর  নিথর দেহ। সুরভী কে উদ্ধার করে বর্ধমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত বলে ঘোষনা করে।

 

এলাকাবাসী বলেন,দম্পতি পরিবারে অশান্তির কিছু তারা কোনও দিন দেখেননি বা শোনেনি। বিকাশ সাউ চুপচাপ স্বভাবের মাণুষ ছিল। কেন তাঁরা এই ভাবে জীবন শেষ করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিল সেই প্রশ্নই এখন ঘুরপাক খাচ্ছে এলাকাবাসীর মুখে মুখে।

Mailing List