‘প্রাণ পেল পৃথিবী’, পৃথিবীতে প্রাণের সঞ্চার ও বিবর্তন নিয়ে এক অসাধারণ সঙ্কলন

‘প্রাণ পেল পৃথিবী’, পৃথিবীতে প্রাণের সঞ্চার ও বিবর্তন নিয়ে এক অসাধারণ সঙ্কলন
18 Jun 2022, 12:15 PM

‘প্রাণ পেল পৃথিবী’, পৃথিবীতে প্রাণের সঞ্চার ও বিবর্তন নিয়ে এক অসাধারণ সঙ্কলন

 

আনফোল্ড বাংলা প্রতিবেদন: ‘প্রাণ পেল পৃথিবী’। পৃথিবীতে প্রাণের উৎস্য সম্বন্ধে কম গবেষনা হয়নি। যে গবেষনা প্রতিনিয়ত চলছেও। এ পৃথিবীর রূপ প্রথমে কেমন ছিল। কিভাবে তার মধ্যে প্রাণের সঞ্চার ঘটলো। শুধু প্রাণে সঞ্চার ঘটার কাহিনী নয়, কিভাবে প্রতিনিয়ত পরিবর্তন ঘটে চললো – তা সত্যিই তো বিস্ময়কর। প্রথমে প্রাণ সঞ্চার, তার মধ্যে প্রাণের এগিয়ে চলা, তার বৈচিত্র্য। যেমন ধরা যাক, মাছের জন্ম হল। সে কোন মাছ? আজ আমরা কত রকমের মাছ দেখি। প্রথমেই তো সব মাছের জন্ম হয়নি। কিংবা ধরা যাক অক্টোপাসের জন্ম কিভাবে হল? শামুখ, ঝিনুকই বা এলো কিভাবে? মশার জন্ম বৃত্তান্তই বা কী?

কত প্রশ্ন। আর তার অনেক প্রশ্নের উত্তর নিয়েই একটি বই। যার নাম ‘প্রাণ পেল পৃথিবী’। লিখেছেন প্রখ্যাত ব্যক্তিরা। সম্পাদনা করেছেন কেশপুর সুকুমার সেনগুপ্ত মহাবিদ্যালয়ের প্রাণীবিদ্যা বিভাগের অধ্যাপত সুমন প্রতিহার। বইটির মধ্যে পৃথিবীতে প্রাণ সঞ্চার ও বিবর্তনের কাহিনী ধরার চেষ্টা করেছে। কেউ লিখেছেন, প্রাণের উৎস্য সন্ধানে তো কেউ লিখেছেন প্রকৃতিতে প্রাণ, প্রাণ এর প্রকৃতি, অনুভূতির বাহির ও ভিতর, আবার কেউ লিখেছেন বিপন্ন সাপ, ভয়ার্ত মানুষ তো কেউ লিখেছেন বিবর্তনে সন্ধানী মশা, অক্টোপাস ও শামুখের আবির্ভাব, মাছেদের আবির্ভাব ও বৈচিত্র্যের প্রকাশ বা পৃথিবীর জমিতে প্রাণের বিকাশ। বইটি প্রকাশ করেছে কবিতিকা। প্রচ্ছদ তৈরি করেছেন কমলেশ নন্দ। বইটির ভূমিকা লিখেছেন বিদ্যাসাগর বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য শিবাজী প্রতিম বসু।

বইটির প্রকাশও হল অভিনব পদ্ধতিতে। চায়ের আড্ডায়। যা দেখে সকলে অবাক। এক কথায় বইটি অসাধারণ। সংগ্রহে রাখার মতোই। বিনিময় মূল্য- ৩৫০ টাকা।

যাঁরা লিখেছেন-

প্রকাশ কর্মকার, অধ্যাপক, উদ্ভিদবিদ্যা বিভাগ, বিদ্যাসাগর বিশ্ববিদ্যালয়, মেদিনীপুর

শ্রীধারা গুপ্ত, অধ্যাপক, রসায়নবিদ্যা বিভাগ, যোগমায়ানেরী কলেজ, কলকাতা।

গৌতম ঘোষ, অধ্যাপক, প্রাণিবিদ্যা বিভাগ, মেদিনীপুর কলেজ, মেদিনীপুর।

শুভাশিস রায়, প্রাক্তন গবেষক, ন্যশনাল ইন্সটিটিউট অফ হেলথ, আমেরিকা।

রূপা দাসগুপ্ত, অধ্যক্ষ, প্রাণিবিদ্যা বিভাগ, ডেবরা মহাবিদ্যালয়, পশ্চিম মেদিনীপুর।

তুহিনশুভ্র জানা, শিক্ষক, মেনকাপুর কৃষ্ণপ্রসাদ উচ্চবিদ্যালয়, পশ্চিম মেদিনীপুর।

দীপঙ্কর পাহাড়ী, পরিদর্শক, পশ্চিমবঙ্গ রেশম শিল্প দপ্তর, ফুলপাহাড়ী, মেদিনীপুর।

সমীর কুমার দাস, অধ্যাপক, প্রাণীবিদ্যা বিভাগ, ঝাড়গ্রাম কলেজ।

দীপাঞ্জন রায়, অধ্যাপক, প্রাণীবিদ্যা বিভাগ, বাজকুল কলেজ, পূর্ব মেদিনীপুর।

শুভ মান্না, অধ্যাপক, প্রাণীবিদ্যা বিভাগ, সমননগর কলেজ, হুগলি।

সুমন প্রতিহার, অধ্যাপক, প্রাণীবিদ্যা বিভাগ, কেশপুর কলেজ, পশ্চিম মেদিনীপুর।

কৌশিক দেউটি, বিজ্ঞানী, হুলিক্যাল সার্ভে অফ ইন্ডিয়া, কলকাতা।

সুপ্রীতি সরকার, অধ্যাপক, প্রাণীবিদ্যা বিভাগ, সিটি কলেজ, কলকাতা।

মানবকুমার সাহা, অধ্যাপক, প্রাণীবিদ্যা বিভাগ, রামানন্দ সেন্টিনারী কলেজ, পুরুলি

অশোককান্তি সান্যাল, বিজ্ঞানী, প্রাক্তন চেয়ারম্যান, জীববৈচিত্র্য পর্যদ, পশ্চিমবঙ্গ।

হরিপ্রসাদ সরকার অধ্যক্ষ, প্রাণীবিদ্যা বিভাগ, গড়বেতা কলেজ, পশ্চিম মেদিনীপুর

নিলয় মণ্ডল, গবেষক, আনন্দপুর, পশ্চিম মেদিনীপুর।

ads

Mailing List