ভিলেজ পুলিশের মানবিক মুখ, রাস্তায় পড়ে থাকা ব্যাঙ্কের পাশবই, আধারকার্ড সহ জরুরি নথি পৌঁছে দিলেন বাড়িতে  

ভিলেজ পুলিশের মানবিক মুখ, রাস্তায় পড়ে থাকা ব্যাঙ্কের পাশবই, আধারকার্ড সহ জরুরি নথি পৌঁছে দিলেন বাড়িতে  
02 Jan 2021, 06:42 PM

ভিলেজ পুলিশের মানবিক মুখ, রাস্তায় পড়ে থাকা ব্যাঙ্কের পাশবই, আধারকার্ড সহ জরুরি নথি পৌঁছে দিলেন বাড়িতে  

আশিস বন্দ্যোপাধ্যায়, পুরুলিয়া

 

পুরুলিয়ার রঘুনাথপুর থানার ভিলেজ পুলিশের মানবিক মুখ। রাস্তায় পড়ে থাকা ব্যাঙ্কের পাশবই, আধারকার্ড সহ জরুরি কাগজপত্র উদ্ধার করে ওই যুবকের সাথে যোগাযোগ করে তার বাড়িতে গিয়ে ফিরিয়ে দিলেন। মানবিক ওই ভিলেজ পুলিশের নাম সত্যজিৎ রায়। বাড়ি পুরুলিয়ার রঘুনাথপুর থানার চেলিয়ামা ব্রাহ্মণ পাড়ায়। সে রঘুনাথপুর থানার আয়ত্তে ভিলেজ পুলিশে কর্মরত। জানা যায়, সত্যজিৎ তার বাবার চিকিৎসার জন্য তার বাবাকে নিয়ে কয়েকদিন আগে পুরুলিয়া শহরে গিয়েছিল। পুরুলিয়া বাসস্ট্যান্ডে তিনি দেখেন একটি প্লাস্টিকের মধ্যে কিছু কাগজপত্র পড়ে আছে। সঙ্গে সঙ্গে ওই প্লাস্টিকটি কুড়িয়ে এদিকে ওদিকে তাকিয়ে দেখেন। আশেপাশের মানুষজনকে জিগ্যেস করতে থাকেন, কারো কিছু পড়ে গেছে কি না? এরপর সকলেই না বলায় তিনি প্লাস্টিকটি খুলে দেখেন। ওই প্ল্যাস্টিকের ভিতর তিন তিনটি ব্যাঙ্কের পাশবই, আধারকার্ড সহ অন্যান্য আরও কিছু জরুরি কাগজপত্র রয়েছে। আধারকার্ডের মাধ্যমে পরিচয় পান যে, পুরুলিয়ার বরাভূম এলাকার আমাগাড়া গ্রামে  সঞ্জিত হেমব্রম নামে এক যুবকের। এরপরই ভিলেজ পুলিশ সত্যজিৎ রায় তার বাড়ি পৌঁছে যান। ওই আদিবাসী যুবকের হাতে পড়ে যাওয়া সমস্ত জরুরি কাগজপত্র তাঁর হাতে তুলে দেন।

আদিবাসী ওই যুবক বাড়ির দরজায় দাঁড়িয়ে তার মূল্যবান নথিগুলো ফিরে পেয়ে হতবাক। তি‌নি প্রথমে ভাবতেই পারছিলেন না যে এমনটাও ঘটতে পারে। তিনি বলেন, এখনও এই ধরণের মানুষ রয়েছেন নিজের চোখে দেখলাম। কি বলে সত্যজিত বাবুকে ধন্যবাদ জানাব তার কোনও ভাষা খুঁজে পাচ্ছি না।

অপরদিকে ভিলেজ পুলিশ সত্যজিৎ রায়ের সাথে কথা বললে তিনি জানান, এ আর কি করলাম। খবরে আসতে চাই না। একজন মানুষ হয়ে অন্য একজনকে এইটুকু সাহায্য করেছি এই আর কি।

Mailing List