পুরুলিয়ায় সভা চলাকালীন মেজাজ হারালেন মুখ্যমন্ত্রী

পুরুলিয়ায় সভা চলাকালীন মেজাজ হারালেন মুখ্যমন্ত্রী
19 Jan 2021, 07:08 PM

পুরুলিয়ায় সভা চলাকালীন মেজাজ হারালেন মুখ্যমন্ত্রী

 

আশিস বন্দ্যোপাধ্যায়, পুরুলিয়া

 

সভা চলাকালীন মেজাজ হারালেন মুখ্যমন্ত্রী। পুরুলিয়ার হুটমুড়াতে জনসভায় মুখ্যমন্ত্রীর ভাষণ চলাকালীন উপস্থিত তৃণমূল কর্মীদের মাঝ থেকে বেশ কয়েকজন মহিলা প্রাণীমিত্রা তাঁদের বিভিন্ন দাবি দাওয়া মুখ্যমন্ত্রীকে জানানোর উদ্দেশ্যে চিৎকার চেঁচামেচি শুরু করলে মুখ্যমন্ত্রী তাঁদের ধমক দিয়ে চুপ করান। মুখ্যমন্ত্রী সভা মঞ্চ থেকেই তাঁদের উদ্দেশ্যে বলেন, ‘‘এরা এইভাবে আমার মিটিং বানচাল করার জন্য এসেছে। এদের বিজেপি ঢুকিয়ে দিয়েছে, আমার সভা বানচাল করার জন্য। অন্য কারও মিটিং এই রকম ডিস্টার্ব করতে পারবে? পারবে না। এবার আমিও বিজেপির মিটিং এ লোক পাঠিয়ে দেব। সিপিএমের মিটিং এও লোক পাঠিয়ে দেব। পাবলিক মিটিং এ এভাবে ডিস্টার্ব করলে আমি কিন্তু এবার অ্যাকশন নেব।’’

এই সভায় মুখ্যমন্ত্রীর বক্তব্য শুরুর কিছুক্ষণের মধ্যেই এই ঘটনা ঘটে। এরপরই উন্নয়নের দাওয়াই দিয়ে মানুষের মন জয় করে হারানো জমি ফিরে পেতে মরিয়া তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মঙ্গলবার দুপুরে পুরুলিয়ার হুটমুড়া হাইস্কুল ফুটবল ময়দানে পুরুলিয়া জেলা তৃণমূলের ডাকা জনসভায় তৃণমূল নেত্রী  সরকারের উন্নয়নের খতিয়ান তুলে ধরে আগত বিধানসভা নির্বাচনে পুণরায় তৃণমূলকে ক্ষমতায় আনার আহ্বান জানান মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এদিনের সভায় শুভেন্দু অধিকারীর নাম না করে বলেছেন কেউ কেউ দল ছেড়ে যাচ্ছে যাক, আপদ বিদায় হচ্ছে। কারও নাম না করে এদিন মুখ্যমন্ত্রী দলত্যাগীদের বিরুদ্ধে এইভাবেই তোপ দাগলেন। তৃণমূল নেত্রী এদিন মাওবাদী থেকেও বিজেপিকে ভয়ঙ্কর বলে দাবি করলেন।

বিগত লোকসভার নির্বাচনে পুরুলিয়া লোকসভায় তৃণমূলের পরাজয় প্রসঙ্গে বলেন, এখানে মানুষকে বিজেপি ভুল বুঝিয়ে ভোট নিয়েছেন, তারপর এখানকার মানুষকে ভূলে গেছেন, দিল্লি গিয়ে বসে আছেন। দুই বছরে সাংসদ কোনো কাজ করেননি পুরুলিয়ায়।

 

অন্যদিকে এদিন মুখ্যমন্ত্রী জেলার উন্নয়নের বিভিন্ন দিকগুলি তুলে ধরেন। তাছাড়াও অলচিকি ভাষাতে ডিকশনারি তৈরি এবং সারনা ও সারিধর্ম কে মর্যাদা দেওয়ার জন্যও তিনি চিপ সেকরেট্যারীকে নির্দেশ দেওয়ার কথা বলেন। ও সাঁওতালী ভাষার পন্ডিত রঘুনাথ মুর্মুর জন্মদিনে সরকারি ছুটি দেওয়ায় কথা বলেন এদিনের সভায় মুখ্যমন্ত্রী। বিজেপি নেতা তথাগত রায়ের নাম না করে এদিন বলেন, বুড়ো বয়সে ভীমরতি হয়েছে। তাই সায়নীর মতো একজন বাচ্চা মেয়েকে নিয়ে কটাক্ষ করছেন। এবং চ্যালেঞ্জ নিয়ে বলেন ক্ষমতা থাকলে সায়নীকে গায়ে হাত দিয়ে দেখাক, এভাবেই এদিন অভিনেত্রী সায়নীর পাশে দাঁড়ালেন বাংলার মূখ্যমন্ত্রী।

 

পুরুলিয়া জেলা নেতৃত্বর পাশাপাশি এদিনের মুখ্যমন্ত্রীর জনসভায় উপস্থিত হয়েছিলেন সাংসদ শতাব্দী রায় মন্ত্রী মলয় ঘটক। এদিন সাংসদ শতাব্দী বলেন নিজেদের বাড়ির  মধ্যে পরিবারের সদস্যদের মধ্যে কথাকাটাকাটি হতেই পারে ,তাই বলে পাশের বাড়ির লোকের এতো লাফানোর কিছু নেই এভাই নাম না করে বিজেপির বিরুদ্ধে বলেন কিছু মোটা বেঁটে লম্বা মারাঠী গুজরাঠী কিছু লোক এরাজ্যে এসে একা একজন মহিলাকে টেক্কা দিতে চেষ্টা করছেন। এছাড়াও  শতাব্দী বলেন আগামী দুই বছর এমপি কোটার টাকা বন্ধ করেছে কেন্দ্র সরকার।

  সবমিলিয়ে এদিনের তৃণমূলের জনসভা ছিল টান উত্তেজনা। প্রায় লক্ষাধিক মানুষের ভিড়ও হয়। স্বভাবতই খুশির হাওয়া তৃণমূলে।

Mailing List