মুখ্যমন্ত্রী ও সাংসদদের ফোনে আড়িপাতা হচ্ছে, অভিযোগ তৃণমূলের

মুখ্যমন্ত্রী ও সাংসদদের ফোনে আড়িপাতা হচ্ছে, অভিযোগ তৃণমূলের
16 Apr 2021, 08:57 PM

মুখ্যমন্ত্রী ও সাংসদদের ফোনে আড়িপাতা হচ্ছে, অভিযোগ তৃণমূলের

 

আনফোল্ড বাংলা প্রতিবেদন, কলকাতা: কে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে ফোনে আড়িপাতার অভিযোগ তুলল তৃণমূল। তৃণমূলের সাংসদ থেকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় - সকলেরই ফোনে আড়িপাতা হচ্ছে, এই অভিযোগ এনে আজ, শুক্রবার সাংবাদিক সম্মেলন করলেন তৃণমূলের দুই সাংসদ ডেরেক ও ব্রায়েন এবং সুখেন্দুশেখর রায়।

 

দু’জনেই মনোজ মালব্যকে ‘মিথ্যে কথার ফ্যাক্টরি’ বলে উল্লেখ করেন। সুখেন্দু শেখর রায় বলেন, ‘‘কেন ও কিভাবে ট্যাপ করা হল। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী ও সাংসদের ফোন ট্যাপ হয় বলে সংসদের দুই কক্ষেই আমরা অভিযোগ করেছিলাম। তখন মন্ত্রী জানিয়েছিলেন, এটা ঠিক নয়। আজ তা প্রমাণ হয়ে গেল।’’ সুখেন্দুবাবুর অভিযোগ, আমাদের দেশে তাহলে যে কেন্দ্রীয় সরকারে থাকবে, তারা যা খুশি করতে পারে। তা রাজনৈতিক কাজে ব্যবহার করবে?

 

এবারের নির্বাচনে অডিও টেপ নিয়ে বারেবারেই উত্তাল হয়েছে রাজ্য রাজনীতি। ফের আজও মুখ্যমন্ত্রীর একটি অডিও টেপ নিয়ে সাংবাদিক সম্মেলন করের বিজেপি নেতা মনোজ মালব্য। কী রয়েছে ওই অডিও টেপে? তাতে শোনা যাচ্ছে, মুখ্যমন্ত্রী পার্থপ্রতীম রায়কে নির্দেশ দিচ্ছেন যে, শীতলকুচির ঘটনায় যেন ভালো করে এফআইআর করা হয়। এবং সেই এফআইআর যেন তাঁরা নিজে না লেখেন। ভালো কোনও আইনজীবীকে দিয়ে লেখানো হয়। এফআইআরে কেন্দ্রীয় বাহিনীর কমান্ডান্ট থেকে জেলার পুলিশ সুপার থেকে থানার আইসিকেও ফাঁসানোর নির্দেশ দেন মুখ্যমন্ত্রী।

 

এটাই নয়, যাতে মৃতদেহ পরিবারের হাতে তুলে না দেওয়া হয়, তাও জানিয়েছেন। কারণ, ওই মৃতদেহ নিয়ে তিনি পরের দিন র‍্যালি করবেন বলেও জানান।

 

চতুর্থ দফার ভোটে কোচবিহারের শীতলকুচির ১২৬ নম্বর বুথে কেন্দ্রীয় বাহিনীর গুলিতে চারজনের মৃত্যু হয়। ঘটনা নিয়ে রাজ্য রাজনীতি উত্তাল হয়েছে। পূর্ণাঙ্গ তদন্তের দাবি গড়িয়েছে হাইকোর্ট পর্যন্ত। হাইকোর্টও নির্দেশ দিয়েছে ৫ মে-র মধ্যে রিপোর্ট জমা দিতে।

 

আর এবার ঘটনার পর মুখ্যমন্ত্রীর অডিও টেপ ফাঁস করল বিজেপি। বিজেপি নেতা মনোজ মালব্যর কথায়, ‘‘একজন মুখ্যমন্ত্রী কিভাবে মৃতদেহ নিয়ে শোভাযাত্রার কথা বলেন। তা হলে কেমন দাঙ্গা লাগতে পারত! একজন মুখ্যমন্ত্রী বলছেন, পুলিশ সুপার-আইসিকেও ফাঁসাতে। নিজের রাজ্যের অফিসারদের ফাঁসাতে চাইছেন।’’ আর লকেট চট্টোপাধ্যায় বলেন, ‘‘উনি সবদিন মৃতদেহ নিয়ে উৎসব করেছেন। ভোটের সময়ও তা করে দাঙ্গা লাগানোর চেষ্টা করেছেন।’’

 

এই ঘটনার কিছুক্ষণ পরেই তৃণমূল সাংবাদিক বৈঠক করে। এই ঘটনার প্রতিবাদ জানান।

 

Mailing List