প্রাচীন মমির ডিএনএ বের করে মানব ইতিহাস খোঁজার চেষ্টায় সাফল্য, তাতেই ফিজিওলজি এন্ড মেডিসিনে নোবেল পেলেন সোয়ান্তে পাবো

প্রাচীন মমির ডিএনএ বের করে মানব ইতিহাস খোঁজার চেষ্টায় সাফল্য, তাতেই ফিজিওলজি এন্ড মেডিসিনে নোবেল পেলেন সোয়ান্তে পাবো
06 Oct 2022, 01:30 PM

প্রাচীন মমির ডিএনএ বের করে মানব ইতিহাস খোঁজার চেষ্টায় সাফল্য, তাতেই ফিজিওলজি এন্ড মেডিসিনে নোবেল পেলেন সোয়ান্তে পাবো

 

আনফোল্ড বাংলা প্রতিবেদন: খবরটা এলো এমন এক দিনে যেদিন জার্মানিতে ছুটি। শ্যাম্পেন খুলে সহকর্মীদের সাথে আনন্দটা ভাগ করে নেওয়ার সুযোগ রইলো না। সকালবেলা নোবেল কমিটির ফোনে সুইডিশ অধ্যাপক সেন্টি পাবো জানলেন তাঁর নোবেল প্রাপ্তির কথা।

বছর সাতষট্টির সোয়ান্তে পাবো মানব ইতিহাসের অজানা অচেনা দিকগুলো নিয়ে নিরন্তর গবেষণায় রত। কিশোর অবস্থা থেকেই মানব ইতিহাসের  বাঁক গুলো নিয়ে আগ্রহ তাঁর। সঙ্গে আরেকটা ইচ্ছে ছিল প্রাচীন মমিগুলো থেকে কিভাবে ডিএনএ বের করা যায়। অধ্যাপক বাবুর বাবা ৪০ বছর আগে পেয়েছিলেন নোবেল। তবে পিতা পাবোকে সন্তান হিসেবে স্বীকৃতি দেননি। মায়ের পরিচয়ে বেড়ে ওঠা পাবো পিতার পরিচয় জানতে পারেন পিতার মৃত্যুর পর।

পাবো কি এমন করলেন যে নোবেল কমিটি এ বছরের ফিজিওলজি এন্ড মেডিসিন বিভাগের পুরস্কার তাঁর হাতে তুলে দিতে বাধ্য হলেন। নিয়ান্ডারথ্যাল মানব বা গুহমানব এরা মানুষের নিকটাত্মীয় যারা আজ বিলুপ্ত। নিয়ান্ডারথ্যাল মানবের সম্পূর্ণ জিনোম মানচিত্র 2010 সালে প্রকাশ করেন অধ্যাপক। সঙ্গে এও বলেন, তারা আমাদের মতই আকৃতির ভিন্ন এক মানব প্রজাতি। বড় মস্তিষ্ক, চওড়া কাঁধ, টিকালো নাক ছিল তাদের বৈশিষ্ট্য। আজও ইউরোপিয়ানদের জিনোমের ২ শতাংশ নিয়ান্ডারথ্যাল মানবের অবদান। আধুনিক মানুষের পূর্বপুরুষ এবং নিয়ান্ডারথ্যাল আজ থেকে ৫০ হাজার বছর আগে প্রজননে লিপ্ত ছিল। সেই থেকেই নিয়ান্ডারথ্যাল জিন আধুনিক মানুষের মধ্যে প্রবেশ করেছে। শুধু নিয়ান্ডারথ্যাল মানব নয়, আরেক মানব প্রজাতির কথাও অধ্যাপক পাবো বললেন। তাদের নাম ডেনিসোভান। ক্রোয়েশিয়ার অন্ধকার এক গুহায় বুড়ো আঙ্গুলের হাড় থেকে ডিএনএ নিষ্কাশন করে এই নতুন মানব ডেনিসোভনদের কথা পাবোই প্রথম আমাদের জানালেন। আজও ডেনিসোভান জিন চীন তিব্বতিদের শরীরে যা তাদের অধিক উচ্চতায় অভিযোজনে সাহায্য করে। তবে আজ থেকে ৮ লক্ষ বছর আগে ডেনিসভান, নিয়েন্ডারথাল, আধুনিক মানুষের পূর্বপুরুষ একই কোন প্রজাতি থেকে উৎপত্তি হয়েছিল। শিম্পাঞ্জিগুলো গাছ থেকে নেমে সোজা হয়ে দাঁড়িয়ে জন্ম দিয়েছিল আরডিপিথেকাসের। এরাই ধীরে ধীরে হাঁটতে ও পরে দৌড়ানো রপ্ত করেছিল।

আর এই আরডিপিথেকাস নামক শিম্পাঞ্জি সাদৃশ্য প্রাণী প্রজাতি থেকেই হোমো অর্থাৎ আমাদের গনের উৎপত্তি। আর এই হোমো গনের মধ্যেই আধুনিক মানুষ, নিয়ান্ডারথ্যাল, ডেনিসভান সব্বাই।

আধুনিক মানুষ কেন বাকি সমস্ত মানবপ্রজাতির থেকে আলাদা? আধুনিক মানুষ কেন আজ আত্মীয় শূণ্য? এসবের উত্তরও অধ্যাপক পাবো দিলেন। শুধু তাই নয়, তিনি জন্ম দিলেন বিজ্ঞানের নতুন এক শাখার, প্যালিও জেনোমিক্স। মাটির মধ্যে চাপা হয়ে থাকা লক্ষ বছরের পুরনো হাড়গোড় থেকে ডিএনএ বের করার পদ্ধতি। নিরন্তর গবেষণার প্রতি বাঁকে এসেছে সাফল্য। কুড়িয়েছেন পুরস্কার। তবে বিজ্ঞান গবেষণার সর্বোচ্চ পুরস্কার নোবেল প্রাপ্তির মধ্যে মানব ইতিহাসের জয়যাত্রার গাথা লিপিবদ্ধ হয়ে থাকলো।

এবছর ডিসেম্বর মাসে সুইডেনের রাজার হাতে ন’লক্ষ ডলারেরও কিছু বেশি পুরস্কার মূল্যর সাথে নোবেল ডিপ্লোমা এবং সোনার তৈরি একটি মেডেল অধ্যাপক পাবো গ্রহণ করবেন।

Mailing List