পৃথিবীর গাড়িটা থামাও....পৃথিবীর শেষ রহস্যময় রাস্তাটা কোথায় জানেন?

পৃথিবীর গাড়িটা থামাও....পৃথিবীর শেষ রহস্যময় রাস্তাটা কোথায় জানেন?
20 Sep 2022, 10:10 AM

পৃথিবীর গাড়িটা থামাও....পৃথিবীর শেষ রহস্যময় রাস্তাটা কোথায় জানেন?

 

আনফোল্ড বাংলা প্রতিবেদন: "দাঁড়াও পথিকবর, জন্ম যদি তব বঙ্গে! তিষ্ঠ ক্ষণকাল", মাইকেল মধুসূদন দত্তর এই বিখ্যাত লাইনকে সামনে রেখেই এক দুরন্ত তথ্য পেশ করা যেতে পারে। এটাই লক্ষ্মনরেখা। আর যাওয়া যাবে না। এটাই পৃথিবীর শেষ সড়কপথ। তিষ্ঠ পথিক। ওপারে অনন্ত বরফের রাজ্য। আর সমুদ্র।

ঠিকানা ইউরোপীয় রুট E 69। এটি ই-রোড নামে পরিচিত। ওল্ডার্ফজোর্ড, উত্তর কেপ ও উত্তর নরওয়ের অন্তর্বর্তী এই রাস্তাটি ১২৯ কিমি (৮০ মাইল) দীর্ঘ। এটিতে পাঁচটি টানেল রয়েছে, যার মোট দৈর্ঘ্য ১৫.৫ কিমি (৯.৬ মাইল)। এরমধ্যে দীর্ঘতম হলো উত্তর কেপ টানেলটি। ৬.৯ কিমি অর্থাৎ ৪.৩ মাইল দীর্ঘ এবং সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ২১২ মিটার (৬৯৬ ফুট) নিচে পৌঁছেছে। পৃথিবীর শেষ রাস্তা বা জনপ্রিয়ভাবে বলা হয় E 69 রোডটির নিজস্ব অস্তিত্ব রয়েছে।

এই অনন্য রাস্তাটি এতটাই রহস্যময় যে ভ্রমণকারীদের একা হাঁটতে বা গাড়ি চালানোর অনুমতি দেওয়া হয় না। তাপমাত্রা থাকে হিমাঙ্কের নিচে তো বটেই, শুনলে আঁতকে উঠতেই পারেন, মাইনাস ২৬ থেকে ৪৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস! নরওয়েতে ইউরোপীয় E 69 হাইওয়ে পৃথিবীর একমাত্র রাস্তা, যা যতটা সম্ভব উত্তর মেরুর কাছাকাছি নিয়ে যাবে।

অনন্য ভৌগোলিক অবস্থানের কারণে, পৃথিবীর এই শেষ রাস্তাটিতে অবিরাম হুল ফোটানো কনকন ঠান্ডা হাওয়া বইতে থাকে। সেখানে আবহাওয়া নিমেষের মধ্যে বদলে যায়। এমনকি গ্রীষ্মকালেও তুষারের সন্ধান পাওয়া যায়। এটি উপকূলরেখার কাছাকাছি যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে আবহাওয়া আরও অপ্রত্যাশিত হয়ে ওঠে। শীতের সময় উত্তর দিকের সড়ক সম্পূর্ণভাবে বন্ধ করে দেওয়া হয়। তবে পৃথিবীর শেষ স্টেশনের পারিপার্শ্বিক দৃশ্য যেমন অনিন্দ্যসুন্দর, তেমনই রহস্যময়। জনমানবহীন এ রাস্তাটি যেন হঠাৎ করেই বিশ্ববাসীর সামনে নো এন্ট্রি বোর্ড ঝুলিয়ে দিয়েছে। এ যেন প্রখ্যাত সুরকার ও গীতিকার সলিল চৌধুরীর বিখ্যাত গানের লাইন, "এই রোকো, পৃথিবীর গাড়িটা থামাও, আমি নেমে যাব, আমার টিকিট কাটা অনেক দূরে..."।

 

Mailing List