কুলটিতে বেআইনি অস্ত্র কারখানার হদিশ, পুলিশের জালে পাঁচ

কুলটিতে বেআইনি অস্ত্র কারখানার হদিশ, পুলিশের জালে পাঁচ
29 May 2020, 11:15 PM

কুলটিতে বেআইনি অস্ত্র কারখানার হদিশ, পুলিশের জালে পাঁচ

আনফোল্ড বাংলা প্রতিবেদন, কুলটি (পশ্চিম বর্ধমান): কলকাতা পুলিশের স্পেশ্যাল টাস্ক ফোর্সের জোড়া সাফল্য।

মুর্শিদাবাদ মুর্শিদাবাদের সুতি থেকে গ্রেপ্তার জেএমবি-র অন্যতম পাণ্ডা আবদুল করিম ওরফে বড় করিমকে। এসটিএফ অভিযান চালিয়ে বর্ধমানের কুলটিতে একটি বেআইনি অস্ত্র নির্মাণ কারখানার হদিশ পেয়েছে। গ্রেফতার করেছে পাঁচজনকে। এরা পাঁচজনেই ঝাড়খণ্ডের বাসিন্দা। জানা গিয়েছে, এরা হল মহম্মদ ইসরার আহমেদ, মহম্মদ আরিফ, সুরজ কুমার সাউ, উমেশ কুমার, অরুণ কুমার বর্মা। ধৃতদের থেকে উদ্ধার হয়েছে মোবাইল, ওয়ালেট, নগদ টাকা, একটি মারুতি ওমনি।  কারখানা থেকে বাজেয়াপ্ত হয়েছে প্রচুর পরিমাণ অস্ত্র।

কুলটির নিয়ামতপুরে কারখানা খুলে অস্ত্র তৈরির কারবারের কথা জানতে পারে প্রেসিডেন্সি সংশোধনাগারে একটি মামলায় অভিযুক্ত সঔকত আনসারিকে জেরা করে। জেরায় উঠে আসা তথ্যের ভিত্তিতে কলকাতা পুলিশের এসটিএফের একটি দল নিয়ামতপুরে অভিযান চালায়। সেই অভিযানে ফাঁস হয় বেআইনি অস্ত্র তৈরির কারবার। ঘটনাস্থল থেকে এসটিএফ উদ্ধার করেছে তিনশো থেকে সাড়ে তিনশো ৭ এমএম পিস্তল, সেমি ফিনিশড আগ্নেয়াস্ত্র। গ্রেফতার করে মহম্মদ ইসরার আহমেদ, মহম্মদ আরিফ, সুরজ কুমার সাউ, উমেশ কুমার, অরুণ কুমার বর্মা। এই বেআইনি অস্ত্র কারবারের সঙ্গে আরও অনেকে জড়িত বলে এসটিএফ সন্দেহ করছে। ধৃত পাঁচজনকে জেরা করে বাকিদের সন্ধান পাওয়া যাবে বলে মনে করা হচ্ছে। পাশাপাশি এসটিএফ জানার চেষ্টা করবে, এই সব অস্ত্র কোথায় পাচার হত।

Mailing List