কম সময়েও অনেক ভালো জায়গা ঘোরা যায়, জানাচ্ছেন ডঃ গৌতম সরকার, ছোট ভ্রমণ ভালো ভ্রমণ-পর্ব ২

কম সময়েও অনেক ভালো জায়গা ঘোরা যায়, জানাচ্ছেন ডঃ গৌতম সরকার, ছোট ভ্রমণ ভালো ভ্রমণ-পর্ব ২
05 Sep 2021, 10:33 AM

ছোট ভ্রমণ ভালো ভ্রমণ-পর্ব ২

 

ড. গৌতম সরকার

 

 

অনেকের কাছে বেড়ানো মানে পয়সা নষ্ট৷ তাদের উদ্দেশ্যে বলি, ধারণাটা ভুল- বেড়ানোর জন্য খরচ প্রকৃতপক্ষে 'investment in human capital'; পরিভাষায় ‘মানব সম্পদ উন্নয়নে বিনিয়োগ’৷ আপনি যেমন শিক্ষার জন্য ব্যয় করেন (in any country, on average, one extra year of schooling raises wages by 10%), স্বাস্থের জন্য ব্যয় করেন ( general observation - more healthy workers means more productive workers, so more earnings), তেমনি ভ্রমণের জন্য ব্যয় আপনার মানসিক স্বাস্থ্যের বিকাশ ঘটায়৷ গৃহকর্তার দিনের পর দিন কজের চাপ, গৃহবধূর দিনের পর দিন সকাল-সন্ধ্যা সংসারের ঘানি টেনে যাওয়ার ক্লান্তি, বাচ্ছাদের পড়াশোনার নিরন্তর চাপ, এগুলো থেকে মাঝে মাঝে মুক্তি দরকার৷ আর সেই মুক্তির খোঁজে আপনাকে 'কাছে-দূরে' বেরিয়ে পড়তে হবে৷ এই সব টুকরোটাকরা ভ্রমণ পারিবারিক সম্পর্কগুলো মেরামতির মধ্যে দিয়ে আরও পোক্ত ও মধুর করে তোলে৷ আরেকটা ব্যাপার আমরা অনেকেই শুধু নিজের পরিবার নিয়ে বেড়াতে যেতে ইতস্ততঃ করি, খোঁজ করি আর কোন বন্ধু-আত্মীয় পরিবারদের ভ্রমণসঙ্গী করা যায়৷ আমার অনেক বন্ধুবান্ধব, পরিচিত মানুষ আছেন যারা স্ব স্ব ক্ষেত্রে দারুণ ভাবে সফল, দায়িত্বশীল, অর্গানাইজেশন ক্ষমতা নিয়ে কোনো প্রশ্ন উঠবে না কিন্তু কিছুতেই কেবলমাত্র নিজের পরিবার নিয়ে বেড়াতে যেতে স্বচ্ছন্দ্য বোধ করে না৷ এতে সমস্যা যেটা হয়, বেড়ানোর ব্যাপারে পরমুখাপেক্ষী হয়ে থাকতে হয়৷ অবশ্যই অনেকে মিলে বেড়ানোর আনন্দই আলাদা, যেটা আপনি শুধু বৌ-বাচ্চা নিয়ে গেলে পাবেন না, কিন্তু অন্যদিকে গ্রুপের সাথে বেড়ানোর কিছু সমস্যাও আছে, নিজের পছন্দমতো ঘোরার ক্ষেত্রে আপনাকে অ্যাডজাস্ট করতে হবে৷ যাইহোক, আমার বক্তব্য হচ্ছে দুটোতেই মজা খুঁজে নিতে হবে৷  তাই আপনার অসুবিধা না হলে বেড়ানোর ব্যাপারে দ্বিরুক্তি করবেন না, সে শুধু পরিবারের সাথেই হোক বা বন্ধুবান্ধব মিলে দল বেঁধে হোক৷

 

Wherever you go, go with all your heart - Confucius

 

১. কোলাখাম: নিউ জলপাইগুড়ি থেকে ১২৩ কিলোমিটার, লাভা থেকে ঘন্টা খানেকের পথ (৮-১০ কিমি) পেরিয়ে পৌঁছে যাওয়া যায় পাহাড়ি জলপ্রপাত, কাঞ্চনজঙ্ঘা, আর দিগন্তবিস্তৃত সবুজ উপত্যকা সঙ্কীর্ণ কোলাখাম৷ পর্যটন মানচিত্রে বেশ নবীন এই ট্যুরিস্ট স্পটে আপনি পাবেন অপরূপ নৈসর্গিক প্রকৃতি, রাই ও গুয়াং পরিবারের আন্তরিক আতিথেয়তা, সাথে নীল আকাশের নীচে পারিষদসহ কাঞ্চন জঙ্ঘার সুমহান উপস্থিতি৷

কি দেখবেন:

 

ক) প্রচুর পাখি পাবেন এখানে- ভার্ডিটার ফ্লাইক্যাচার; রুফাস সিরিয়া; স্কারলেট মিনিভেট; গ্রিন টেইলড্ সানবার্ড; গ্রে হেডেড ক্যানারি ফ্লাইক্যাচার; কাশ্মীরি নাটহাচ, আরও অনেক প্রজাতি৷

খ) ছাঙ্গে ফল: কোলাখাম থেকে ৫-৬ কিলোমিটার, শেষ এক কিমি হাঁটতে হবে৷ বেশ অনেকটা নিচে নামতে হয়, উঠতে বেশ কষ্ট হবে৷ কিন্তু একবার নেমে পড়লে প্রকৃতির কোলে লুকানো এই ঝর্ণার বিস্তার আর সৌন্দর্য্য আপনার সব কায়িক কষ্ট ভুলিয়ে দেবে৷

থাকার আস্তানা: কোলাখাম রিট্রিট

যোগাযোগ: ৮৯০২৫-৫০৮৮৪; ৯৮৩০১-৪৭৭১৮

৯৪৩২৯-৬৪২৪২; ৯৪৭৭২-১৬১৬১

কোলাখাম কনিফার রিট্রিট

০৯৯০৩৮-৭৩৬৮৬

 

The world is a book, and those who do not travel read only a page - Saint Augustine.

 

. সিলারি গাঁও: নিউ জলপাইগুড়ি থেকে আগে যেতে হবে কালিম্পং, কালিম্পং থেকে পেডংয়ের দূরত্ব ১৫ কিলোমিটার৷ পেডং বাজার পেরিয়ে কিলোমিটার খানেক পথ এগিয়ে গেলে পাহাড়ের গা বেয়ে একটা রাস্তা ওপরে উঠে গেছে৷ এই রাস্তা ধরে কিছুটা এগোলেই সিলারি গাঁও পৌঁছনো যায়৷ 

 

কী দেখবেন:

 

ক) ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা কয়েকটা বাড়ি ঘর নিয়ে এই গ্রাম, লাজুক পাহাড়ি মানুষগুলো অতিথি আপ্যায়নে আন্তরিক;

খ) গ্রামের সব জায়গা থেকেই চোখে পড়বে উত্তর আকাশে ১৮০ ডিগ্রী জুড়ে সপার্ষদ কাঞ্চনজঙ্ঘা;

গ) এখান থেকে পাখির চোখে দেখা যায় সিকিমের নামচি শহর আর অনেক নিচে ফিতের মত তিস্তাকে৷

থাকার জায়গা: পেডং জেলেপ ভিলেজ রিসর্ট

দূরভাষ: ৯৮৩১৩-১১৬০৬; ৯৮৩০৩-৮১৩০৬; ৯৮৩০৬-১৯৪২২

নির্মলা হোম স্টে

যোগাযোগ: দিলীপ তামাং: ৯৬৩৫০-০৫৩১৮/ ০৯৬০৯০-৪৬৮৩৭

সুমিক্ষা হোম স্টে ০৯৮৭৪২-২১৪৪২

কাজীর হোম স্টে: ৮৯৭২৬-৪০৪১০/ ৯৪৩৩৩-০৫৭২৬

বীরু তামাংয়ের হোম স্টে: ৯৯৩২৭-৭৫৪৪৫

 

"Everything is a journey, and the journey itself is home."-- Matsuo Basho

 

. চারখোল: লাভা থেকে ৩৯ কিমি, লোলেগাঁও থেকে ১৫ কিমি আর কালিম্পং থেকে ৩৪ কিমি দূরে সাড়ে তিন হাজার ফুট উচ্চতায় পাইন, সাইপ্রাস, ওক, রডোডেনড্রন আর উত্তর আকাশে তুষারশুভ্র কাঞ্চনজঙ্ঘা শোভিত এই লেপচা অধ্যুষিত পাহাড়ি গ্রাম আপনাকে ঘরছাড়ার মন্ত্রে দীক্ষিত করবেই করবে৷

কী দেখবেন:

 

ক) প্রচুর পাখি, পক্ষীপ্রেমিকদের স্বর্গরাজ্য;

খ) মেঘমুক্ত আকাশে এভারেস্ট আর কাঞ্চনজঙ্ঘা;

গ) ঝান্ডিধারা ভিউ পয়েন্ট থেকে সূর্যোদয় ও সূর্যাস্ত;

ঘ) রাতে নক্ষত্র ঝলমল কালিম্পং শহর;

ঙ) এখান থেকে ঘুরে নিতে পারেন- লোলেগাঁও, সামতাহার ইত্যাদি পাহাড়ি শহর৷

থাকার জায়গা: ক. হামরো হোম চারখোল হোম স্টে

৯৭৭৩০-৬৫৯০০; ৯৭৩০০-৭১৭১৬; ৯৭৩০০-৬৯৬৯০

খ. চারখোল পারিজাত হোম স্টে

গ. চারখোল আদিত্য হোম স্টে: ৭০০১৮-৫২৬১০

ঘ. চারখোল হোম স্টে: ৯৮৩৬০-৭৭২০২; ০৩৩-২৪২২-৮৪৩৯

 

Travel can be one of the most rewarding forms of introspection -- Lawrence Durrel.

৪. চুইখিম: সবুজের বাসস্থান হল চুইখিম৷ রাস্তা গেছে নিউ জলপাইগুড়ি-সেবক মোড়-তিস্তাবাজার-বাগরাকোট-মিনামোড়-চুইখিম৷ বাগরাকোট চা-বাগানের মধ্যে দিয়ে এগিয়ে গেছে পাহাড়ি পথ৷ এই পাহাড়ি গ্রাম আপনার দুটো দিন অবকাশ যাপনের আদর্শ ঠিকানা৷ তবে বেশ কিছু কিলোমিটার জুড়ে রাস্তার অবস্থা খুব খারাপ; এটা ঠিক গাড়ি চলার রাস্তা নয়, স্থানীয় জীপের ভরসা নিতে হবে৷

কি দেখবেন:

 

ক) কিছুটা উৎরাইয়ে নেমে গেলে হাতের কাছে পাবেন তন্বী, তরতরে লিস্ নদী,

খ) নদী পেরিয়ে পাহাড়ি গুহায় দর্শন পাবেন প্রাকৃতিক শিবলিঙ্গ; স্থানীয় লোকেদের ভাষায়- ‘ছড়ছড়ে বাবাধাম'৷

গ) কয়েক কিলোমিটার দূরে চারখোলের পথে -নিমবং; যেখানে প্রকৃতি এককথায় অকৃপণ৷

ঘ) পোনবু দাঁড়া: প্রকৃতির খোলা ব্যালকনি থেকে উপরে হিমালয়, আর নিচে উপত্যকার মধ্য দিয়ে বহমান তিস্তা দর্শন

আস্তানা: চুইখিম হামরো হোম স্টে: ৬২৯৫০-৫২৩০৩

তারা হোম স্টে: ৯৬৭৯৮-৯১৬৯৯:

ধীরেন হোম স্টে: ৯৫৯৩২-৪৪৩২৭/ ৮৩৮৮৯-৭৬৪১৮

কিরণ হোম স্টে: ০৮৯৬৭৩-৯৫৫০৬

টিকারাম লজ: ৯৬৩৫৮-৬৫২৬৭

হোম হাউস স্টে: ৯৫৬৩৫-১০৫২৬; ৮৬৭০৫-১২৪৪৯; ৯৮৫১৫-৮৮৫৬০

 

We shall not cease from exploration, and the end of all our exploring will be to arrive where we started and know the place for the first time - T. S. Eliot (Edited)

 

ads

Mailing List