২০শে জুন অবধি জেল হেফাজতেই থাকছেন রোদ্দুর রায়

২০শে জুন অবধি জেল হেফাজতেই থাকছেন রোদ্দুর রায়
15 Jun 2022, 02:50 PM

২০শে জুন অবধি জেল হেফাজতেই থাকছেন রোদ্দুর রায়

আনফোল্ড বাংলা প্রতিবেদন: রোদ্দুর রায়ের বিরুদ্ধে নতুন করে বটতলা থানায় অভিযোগ। মঙ্গলবার বটতলা মামলায় ২০শে জুন পর্যন্ত পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছে আদালত। অন্যদিকে হেয়ার স্ট্রিট মামলায় ২০শে জুন অবধি রোদ্দুর রায়কে জেল হেফাজতের নির্দেশ।

সরকারি আইনজীবীর বক্তব্য, 'রোদ্দুর রায়ের ভিডিও মানহানিকর। আঘাত করতে পারে এমন বক্তব্য। পুলিস, সংবিধান এমন কি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রীকেও অশ্লীল কথা বলেছেন রোদ্দুর রায়। জাতীয় পতাকার অবমাননা করেছেন তিনি। স্বাধীনতা সংগ্রামীরা কষ্ট করে স্বাধীনতা এনেছেন। এই ধরণের পোস্টে তাদের অপমান করা হয়েছে।' অন্যদিকে বটতলা মামলায় রোদ্দুর রায়ের আইনজীবী ২০২০ সালের ১১ই মার্চের কিছু ভিডিও দেখান। যেটাকে অশ্লীল বলা হয়। অভিযোগ দায়ের হয়েছে ২০২০ সালের ৯ই জুন। 

কিছুদিন আগে সোশ্যাল মিডিয়ায় লাইভে এসে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উদ্দেশ্যে অশ্রাব্য গালিগালাজ করেন ইউটিউবার রোদ্দুর রায়। এরপরই কলকাতার একাধিক থানায় তাঁর বিরুদ্ধে অনেক অভিযোগ জমা পড়ে। ভারতীয় দণ্ডবিধির একাধিক ধারায় মামলা দায়ের করা হয় রোদ্দুর রায়ের বিরুদ্ধে। যার মধ্যে রয়েছে-

১২০বি, অপরাধমূলক ষড়যন্ত্র

৪১৭, বিকল্প মানুষের ছবি দিয়ে প্রতারণা করা

১৫৩, বিভিন্ন গোষ্ঠীর মধ্যে বিদ্বেষ

৫০১, মানহানিকর বক্তব্য প্রকাশ

৫০৪, শান্তি নষ্ট

৫০৫, অশান্তি ও গোলমাল ছড়ানোর উদ্দেশ্যে গুজব রটানো।

৫০৯, কোনও মহিলার উদ্দেশে সম্মানহানিকর বক্তব্য।

 

পরে যুক্ত করা হয়েছে-

১৫৩এ, বিভিন্ন গোষ্ঠীর মধ্যে গোলমাল পাকানোর চেষ্টা 

৪৬৫, ভ্যালুয়েবল সিকিউরিটি

৪৬৭, মূল্যবান সম্পত্তি নিয়ে জালিয়াতি

৪৬৮, প্রতারণার উদ্দেশ্যে জালিয়াতি

৪৬৯, প্রতারণার উদ্দেশ্যে জাল নথি ব্যবহার 

 

৭ই জুন গোয়া থেকে রোদ্দুর রায়কে গ্রেফতার করে কলকাতা পুলিস। পরেরদিনই কলকাতায় নিয়ে আসা হয় তাঁকে। ৯ই জুন তাঁকে পেশ করা হয়েছিল ব্যাঙ্কশাল কোর্টে। সেখানেই তিনি সংবাদমাধ্যমে বলেন, 'আমি অপরাধী নই, রাজনীতির শিকার'।

Mailing List