রেহান কৌশিকের কবিতা, ফাঁস এবং অন্যান্য

রেহান কৌশিকের কবিতা, ফাঁস এবং অন্যান্য
08 May 2022, 09:50 AM

রেহান কৌশিকের কবিতা, ফাঁস এবং অন্যান্য

 

ফাঁস

 

আগ্নেয় পাথর জাগে। জাগে--- দেহ জুড়ে আলো, স্রোত।

বিষাদ-মলাট খুলে উঠে আসে পোহানোর তাপ···

 

এই তো তোমার মুঠো, মুঠো মধ্যে ভাসমান মেঘ

আমার সামান্য দেহ ঢেকে দেয় বৃষ্টিভেজা শ্লোকে,

আগুন থেকে বৃষ্টির সীমান্ত পেরিয়ে দিনেদিনে

ভেবেছি তোমাকে নিয়ে এভাবেই হেঁটে যাব দূরে।

 

সামান্য যে সব কথা, মৃদুভাষ না-বোঝা সমস্ত

দূরে ঠেলে রেখে আজ তুলে নেব সহ্যের অভ্যাস।

আবার হেমন্তকাল ডেকে নেবে সুদূরের দিকে

ঝরে যাবে একে একে সোনালি দুঃখের সব ফাঁস···

..........

 

শর্তহীন

 

স্মৃতি বলতে--- অল্প কিছু মেহগনি গাছ...

তার সামান্য শরীর ধ'রে

                            ওপরের দিকে যাওয়া!

 

এই একাকী উত্থান, এই স্পর্শ-চাওয়া অনন্তের ---

যত্ন করে তুলে রাখি বুকে।

 

সঞ্চয় বলতে, এভাবে বিন্দু-বিন্দু পাওয়া।

 

ভালোবাসা বলতে, নদী। তার জল, তার স্রোত,  টান

কখনো বা ছুঁতে আসে, কখনো বা দূরে চলে যায়!

 

এভাবেই দাবিহীন নিজেকে সাজাই

দু'-এক লাইন লিখি আলো আর অদৃশ্য হাওয়ায়।

 

মানুষ আশ্রয় চায়। সম্পর্করা পেতে চায় সুরক্ষা-বলয়।

হয় নাকি নি:শর্ত আশ্রয়?

 

নিজের দু'হাত যত শর্তহীন হয়

অকাতর অনন্তের আলো আর ঋতুর আবির

                                  ছুঁয়ে যায় হাড় ও হৃদয়!

..........

 

 

পুনরায়

 

 

নিজের ভিতরে নিজে বসে আছি প্রগাঢ় সন্ন্যাসে

শূন্যদেশে ছায়া ওড়ে শুধু।

এ এখন কোন্ ঋতু, পৃথিবীর বুক থেকে

                 জন্মশব্দ উড়ে আসে বাতাসে বাতাসে!

 

যতটা বিষাদ তুমি দিয়েছিলে প্রকৃত বিচ্ছেদে

লতা আর হরিণের শিং হয়ে যত দুঃখ

                            বসেছিল জড়াজড়ি করে ---

সে সমস্ত মুছে ফেলে নতুন আনন্দধ্বনি

সাজিয়েছি অক্ষরে অক্ষরে…

 

এই সন্ন্যাস, মৃত্যুর পর্ব

দাহগানে লিখে রেখে, পুনরায় ফিরে যাব

                      জল আর জমিনের দিকে।

হলুদধানের পাশে গড়ে তুলব প্রেমিকের ঘর!

 

বিষাদের পাশাপাশি, প্রতিটি জন্মের কালে

তোমার স্পর্শের চেয়ে কে বেশি দিয়েছে আর আশ্চর্য আদর!

.................

বিষয়

 

শহরও বিষণ্ণ হয় খুব।

 

এত যান, জনকোলাহল

মুছে ফেলে নিজেকে সাজায়।

 

আশরীর দিকশূন্য বালি।

রোদ আর নির্জনতা গেঁথে রাখে চোখের তারায়।

বুক জুড়ে ফুটে থাকে না-বলা কথার কত

                          দুরন্ত ক্যাকটাস।

 

প্রেমিকারা শহরের মতো।

প্রেমিকেরা ওই বালুভূমি।

 

আসলে তফাত নেই নারী ও পুরুষে।

ভালোবাসা সমানের শ্লোক।

 

যে-কেউ শহর হতে পারে।

যে-কেউ মরুও হতে পারে।

 

আসলে সমস্ত এক, চির-অদ্বিতীয়।

 

কে-কখন কার কাছে যাবে

কে-কখন ডেকে নেবে কাকে

 

এটুকুই দেখার বিষয়।

............

ads

Mailing List