পুরুলিয়ায় অনুষ্ঠিত হল ‘আলোক দিশারি আশাপূর্ণা দেবী স্মরণে’

পুরুলিয়ায় অনুষ্ঠিত হল ‘আলোক দিশারি আশাপূর্ণা দেবী স্মরণে’
08 Jan 2021, 09:22 PM

পুরুলিয়ায় অনুষ্ঠিত হল আলোক দিশারি আশাপূর্ণা দেবী স্মরণে

 

আনফোল্ড বাংলা প্রতিবেদন:  করোনার কারণে মানুষ যখন দীর্ঘ দিন গৃহবন্দী। নিউ নরমালে একটু একটু স্বাভাবিক হতে শুরু করেছে ২০২১-এর শুরু থেকেই। ঠিক সেই সময় 'গুরুশিষ্য পরম্পরার একটি উদ্যোগ' এর ব্যবস্থাপনায় পুরুলিয়া জেলা বিজ্ঞান প্রেক্ষাগৃহে 'আলোক দিশারি আশাপূর্ণা দেবী স্মরণে' শীর্ষক অনু্ষ্ঠানের মধ্য দিয়ে মননচর্চার অভিমুখ রচনা করল। প্রদীপ প্রজ্জ্বলন ও আশাপূর্ণা দেবীর প্রতিকৃতিতে মাল্যদানের মধ্য দিয়ে এই মহতী অনুষ্ঠানের শুভসূচনা করেন অনু্ষ্ঠানের  প্রধান অতিথি ও মুখ্যবক্তা বিশিষ্ট প্রাবন্ধিক তথা সিধো-কানহো-বীরসা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের স্বনামধন্য প্রফেসর ড.স্বপন কুমার মণ্ডল। এছাড়াও, মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন মাঝিহিড়া আশ্রম পিটিটিআই ইনস্টিটিউট এর অধ্যক্ষ শ্যামল কুমার চক্রবর্তী, মণিপুর স্বামী বিবেকানন্দ উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষক তথা জীবনের পরম পরশ কমিটির সভাপতি ড. কার্তিক কুমার মণ্ডল, নিউ আলিপুর কলেজের বাংলার বিভাগের অধ্যাপক বৈদ্যনাথ বাস্কে, আয়োজক সংস্থা তথা 'গুরুশিষ্য পরম্পরার একটি উদ্যোগ' এর সভাপতি তথা বিশিষ্ট সমাজসেবী ও দরোডি এইচ জি কে বিদ্যাপীঠের শিক্ষক সন্দীপ কুমার ঘোষ।

এদিন উদ্বোধনী সংগীত পরিবেশন করেন মণিপুর স্বামী বিবেকানন্দ উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা শ্রীমতী সুধা ব্যানার্জি।  আয়োজক সংস্থার সভাপতি শিক্ষক সন্দীপ কুমার ঘোষের স্বাগত ভাষণের পর কবি ও গবেষক সুপ্রিয় গঙ্গোপাধ্যায় আশাপূর্ণা দেবীর কবিতা পাঠ করেন। আশাপূর্ণা দেবীর সংক্ষিপ্ত পরিচিয় তুলে ধরেন ড. কার্তিক কুমার মণ্ডল। আলোক দিশারি আশাপূর্ণা দেবী জীবন ও সাহিত্য নিয়ে মনোজ্ঞ আলোচনায় প্রেক্ষাগৃহে আলোকিত পরিসর তৈরি করেন বিশিষ্ট প্রাবন্ধিক ও প্রফেসর ড. স্বপনকুমার মণ্ডল। তিনি বলেন, "আশাপূর্ণা দেবী বাংলা সাহিত্যে নারী মনীষার বিরল বিস্ময়। সৃষ্টিসম্ভারে, স্বতন্ত্র আভিজাত্যেই শুধু নয়, নারীবিশ্বের পরিচয়েও তাঁর পথিকৃতের ভূমিকা অতুলনীয় মনে হয়। প্রথাগত শিক্ষায় শিক্ষিত না হয়েও তাঁর অনন্যা প্রকৃতি শুধু বাংলা সাহিত্যেই নয়, বিশ্বসাহিত্যেও বিরল দৃষ্টান্তে সবুজ হয়ে ওঠে।" তিনি আরও বলেন,  "নারীরা শুধু কর্মে বা দক্ষতায় নয়, সৃষ্টিতেও পুরুষের শ্রদ্ধা আদায় করতে পারে, বাংলায় আশাপূর্ণা দেবীই প্রথম সার্থকভাবে তার স্বাক্ষর রেখেছেন। তাঁর দীর্ঘ জীবনের সুদীর্ঘ সৃষ্টির পথে আপনাতেই মাথা আনত হয়ে আসে।" অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ও মুখ্যবক্তা বিশিষ্ট প্রাবন্ধিক ও প্রফেসর স্বপনকুমার মণ্ডলকে শাল দিয়ে সংবর্ধিত করেন 'গুরুশিষ্য পরম্পরার একটি উদ্যোগ'-এর কর্ণধার সন্দীপ কুমার ঘোষ। আশাপূর্ণা দেবীর ভ্রমণ সাহিত্য নিয়ে সুন্দর আলোকপাত করেন অধ্যাপক বৈদ্যনাথ বাস্কে। ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন সংস্থার সম্পাদক তথা শিক্ষক মৃত্যুঞ্জয় রাজোয়াড়। সিদ্ধার্থ দত্তের সঞ্চালনা সমগ্র অনুষ্ঠানটিকে অন্যমাত্রা প্রদান করে। হল ভরতি ছাত্র শিক্ষক, সাংবাদিক ও সাহিত্য পিপাসু মানুষের চোখের ভাষায় বলে দেয় অনুষ্ঠানের সাফল্যের কথা। বিশিষ্টদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন অধ্যাপক ঘনশ্যাম মাহাত, শিক্ষক শুভদিন আচার্য, আশিস মণ্ডল, চক্রধর মাহাত, গণেশ গরাই, শিক্ষিকা শ্রীমতী বনানী ব্যানার্জি, শ্রীমতী লীলা মণ্ডল, সাংবাদিক দেবরাজ মাহাত, পুরুলিয়া প্রেসক্লাবের পক্ষে সাংবাদিক দীপেন গুপ্ত। ছাত্রছাত্রীদের মধ্যে সত্যনারায়ণ হেম্ব্রম, কবিতা মাহাত, অরূপ মাহাত, মানোজিত মাহাত প্রমুখ।

Mailing List