আত্মরক্ষার জন্য বাগদায় গুলি চালিয়েছে পুলিশ, জানালো নির্বাচন কমিশন

আত্মরক্ষার জন্য বাগদায় গুলি চালিয়েছে পুলিশ, জানালো নির্বাচন কমিশন
22 Apr 2021, 07:51 PM

আত্মরক্ষার জন্য বাগদায় গুলি চালিয়েছে পুলিশ, জানালো নির্বাচন কমিশন

 

আনফোল্ড বাংলা প্রতিবেদন: উত্তর ২৪ পরগনা জেলার বাগদা বিধানসভার রনঘাট এলাকার ৩৫ নম্বর বুথের বাইরে গুলি চালিয়েছে পুলিশই বলে স্বীকার করে নিল রাজ্যের নির্বাচন কমিশন। এখানে রাজ্য পুলিশ আত্মরক্ষার জন্যই গুলি চালায় বলে জানিয়েছে নির্বাচন কমিশন। পুলিশের ওপর হামলা এবং সেখানে সেক্টর অফিসে হামলা চালানো হয় এবং সেই সময় পুলিশ তিন রাউন্ড গুলি চালায় বলে নির্বাচন কমিশন জানিয়েছে। 

রাজ্য পুলিশের এডিজি (আইন শৃংখলা) জগ মোহন জানান, সেখানে সেক্টর অফিসে হামলা করা হয়। পুলিশের ওপরেও হামলা করা হয়,  বাগদা থানার ওসি সহ অন্য পুলিশ কর্মী আহত হন।  তখন আত্মরক্ষার জন্য পুলিশ গুলি চালায়। তিন রাউন্ড গুলি চালানো হয়েছে এবং তাতে একজন আহত আহত হয়েছেন বলে জানিয়েছেন জগমোহন।

শীতলকুচিতে কেন্দ্রীয় বাহিনীর গুলি চালানোর ঘটনার মতোই কমিশন জানিয়েছে, আত্মরক্ষার জন্য তিন রাউন্ড গুলি চালিয়েছে রাজ্য পুলিশ। ঘটনায় দু'জন ব্যক্তি আহত হয়েছেন। চতুর্থ দফার নির্বাচনের দিন, শীতলকুচির একটি বুথে কেন্দ্রীয় বাহিনীর ওপরে এবং ভোট গ্রহণ কেন্দ্রে গ্রামবাসীরা হামলা চালালে  বাহিনীর জওয়ানরা গুলি চালাতে বাধ্য হয়।  সেদিন চারজন গ্রামবাসীর মৃত্যু হয়। 

কমিশনের তরফে জানানো হয়েছে,  আত্মরক্ষার্থে গুলি চালিয়েছে পুলিশ। প্রাথমিক রিপোর্টের ভিত্তিতে কমিশন জানিয়েছে,  বৃহস্পতিবার,  ভোটের সময়,  একটি রাজনৈতিক দলের শতাধিক কর্মী সেক্টর অফিসে হামলা চালান। আক্রান্ত হন সেক্টর অফিসার। সেই খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে যায় বাগদা থানার পুলিশ। সেই সময় ধারালো অস্ত্র নিয়ে পুলিশের উপর হামলা চালানো হয়৷  আত্মরক্ষার্থে পুলিশ তিন রাউন্ড গুলি চালিয়েছে। ঘটনায় দু'জন ব্যক্তি আহত হয়েছেন। তাঁদের মধ্যে একজনের বুলেটের আঘত কিনা, তা এখনও প্রমাণিত নয়। একই সঙ্গে ধারালো অস্ত্রের আঘাতে বাগদা থানার ওসি উৎপল সাহা সহ তিনজন আহত হয়েছেন।

 

যদিও বিজেপির দাবি,  রণঘাটে ৩৫ নম্বর বুথের ২০০ মিটার দূরে অস্থায়ী নির্বাচনী কার্যালয় তৈরি করা হয়েছিল। সেখানে ভোটাররা আসছিলেন। সেইসময় ভিড় হটাতে ময়দানে নামে পুলিশ। তা নিয়ে বিজেপি কর্মীদের সঙ্গে কথা কাটাকাটি হয়। প্রাথমিকভাবে লাঠি চালিয়ে বিজেপি কর্মীদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। কিছুক্ষণ পর ঘটনাস্থলে পুলিশের আরও বাহিনী আসে। পুলিশ  সেই সময়  গুলি চালায়। গ্রামবাসীদের দাবি, পুলিশের গুলিতে তিনজন আহত হয়েছেন। যদিও বিজেপির দাবি, তাদের সাত জন আহত হয়েছে।

 

এদিকে,  উত্তর ২৪ পরগনার অশোকনগরেও কেন্দ্রীয় বাহিনী গুলি চালায় বলে অভিযোগ তৃণমূলের। তাদের দলের কর্মীদের লক্ষ্য করে বিজেপির লোকজন বোমাবাজি করে এবং  কেন্দ্রীয় বাহিনী গুলি চালায় বলে অভিযোগ করেছে তৃণমূল। এমনকি,  আজকেই আসানসোল এলাকাতে সভা করতে গিয়ে তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন,  “খবর পেয়েছি আজ আবার অশোকনগরে কেন্দ্রীয় বাহিনী গুলি চালিয়েছে। দু’জন হাসপাতালে ভর্তি । বাহিনীকে বলছি রাজধর্ম পালন করুন, নাহলে আমরা এফআইআর করব, আইনি পদক্ষেপ নেব।” যদিও নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে যে অশোকনগরে গুলি চালায় নি কেন্দ্রীয় বাহিনী।

 

Mailing List