টিকিটের জন্য পিকের টিম টাকা খেয়েছে, বিস্ফোরক তৃণমূলনেত্রী শম্পা

টিকিটের জন্য পিকের টিম টাকা খেয়েছে, বিস্ফোরক তৃণমূলনেত্রী শম্পা
07 Mar 2021, 11:45 PM

টিকিটের জন্য পিকের টিম টাকা খেয়েছে, বিস্ফোরক তৃণমূলনেত্রী শম্পা

 

আনফোল্ড বাংলা প্রতিবেদন, বাঁকুড়া: তৃণমূলের প্রার্থী তালিকা নিয়ে এবার পিকে-র টিম অর্থাৎ প্রশান্ত কিশোরের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠল। পিকের টিম নাকি টাকা নিয়ে প্রার্থী তালিকা ঠিক করেছে। এমন অভিযোগ করলেন বাঁকুড়ার বিধায়ক শম্পা দরিপা। কে টাকা নিয়েছে তাও বলেছে‌ন তিনি। শুনে নিন তাঁর মুখেই।

 

বাঁকুড়ায় অভিনেত্রী সায়ন্তিকা বন্দ্যোপাধ্যায়কে প্রার্থী করার পর  থেকেই জটিলতা শুরু। একদল ক্ষুব্ধ। অন্যদল উৎসাহিত।

 

 সাংবাদিক সম্মেলন করেন বাঁকুড়া জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের মুখপাত্র দিলীপ আগারওয়াল। ওই সাংবাদিক সম্মেলনে দীলিপবাবু শম্পা দরিপাকে কটাক্ষ করেন। পাল্টা শম্পা দেবী সাংবাদিক সম্মেলন করে ক্ষোভ উগরে দেন। আসন্ন নির্বাচনে শাসকদলের প্রার্থী তালিকা ঘোষণা হওয়ার পর থেকেই বাঁকুড়ার এই বিধানসভা আসন থেকে ঘিরে ক্ষোভ বিক্ষোভ আছড়ে পড়েছে বাঁকুড়ার রাজপথে। প্রকাশ্যেই দলের বিরুদ্ধে খুলছেন বাঁকুড়ার বিদায়ী বিধায়ক শম্পা দরিপা। এদিন তিনি সাংবাদিক সম্মেলনে তার টিকিট না পাওয়া নিয়ে সরাসরি ভোট কুশলী প্রশান্ত কিশোরের টিমের এক সদস্যের নাম করে ঘুষ নেওয়ার অভিযোগ তুলেছেন। তারপর থেকেই বাঁকুড়া শহরজুড়ে বিতর্কের ঝড় উঠেছে। কংগ্রেসের টিকিটে এই কেন্দ্র থেকে জয়ী হয়ে তিনি বিধায়ক হন শম্পা। তার পরেই তিনি যোগ দেন তৃণমূলে। কংগ্রেস ছেড়ে তাঁর তৃণমূলে যোগ দেওয়ায় দলের অন্দরেই ক্ষোভ-বিক্ষোভে ফুড ছিলেন স্থানীয় তৃণমুল নেতাকর্মীরা। ২০২১ বিধানসভা নির্বাচনের আগে তৃণমূল কংগ্রেস শিবির তাঁকে দলীয় টিকিট দেওয়ার প্রস্তুতি শুরু করলে দলের অন্দরেই বিতরকের ঝড় ওঠে। সূত্রের খবর বাঁকুড়া পৌরসভার প্রাক্তন পুর প্রধান মহাপ্রসাদ সেনগুপ্ত ও কাউন্সিলরদের একাংশ প্রতিবাদে সরব হন। তাদের ওই প্রতিবাদের জেরেই দলীয় টিকিট তার হাতছাড়া হয়। তারপর থেকেই ক্ষোভ-বিক্ষোভের ফুটছেন শম্পা দরিপা সহ তার অনুগামীদের একাংশ। উল্লেখ্য এই শম্পা দেবী দীর্ঘদিন ধরে তৃণমূল কংগ্রেস শিবিরের টিকিটে দাঁড়িয়ে একদা বাম দুর্গ বাঁকুড়া সিপিএম এর সঙ্গে লড়াই করে কাউন্সিলর ও পুরপ্রধান হয়েছেন। ২০২১ বিধানসভা নির্বাচনের টিকিট না পেয়ে তার প্রকাশ্যে খুব উগ্রে দেওয়ার কারণে অস্বস্তিতে পড়েছে বাঁকুড়া জেলা তৃণমূল কংগ্রেস। শাসকদলের এহেন ক্ষোভ-বিক্ষোভের জেরে কিছুটা হলেও অক্সিজেন পেয়েছেন বিজেপি প্রার্থী তথা বাঁকুড়া ১৬ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর নীলাদ্রিতা দানা। তার কথায় তৃণমূলের নৌকো ফুটো হয়ে গিয়েছে মাঝ সমুদ্রে। এবার পুরোটাই ভেঙে পড়বে। আর কয়েক দিনের অপেক্ষা মাত্র। শম্পা দরিপা এহেন অভিযোগের প্রসঙ্গে অধ্যাপক তথা বাঁকুড়া জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি শ্যামল সাঁতরা বলেন, বিষয়টি দলকে জানানো হবে।

Mailing List