মাঝসমুদ্রে জাহাজে জলদস্যু! আরও কত ভয়ঙ্কর অভিজ্ঞতা, সত্যকাহিনী শোনাচ্ছেন দেবজ্যোতি সোম, তৃতীয় পর্ব

মাঝসমুদ্রে জাহাজে জলদস্যু! আরও কত ভয়ঙ্কর অভিজ্ঞতা, সত্যকাহিনী শোনাচ্ছেন দেবজ্যোতি সোম, তৃতীয় পর্ব
25 Oct 2021, 06:31 AM

মাঝসমুদ্রে জাহাজে জলদস্যু! আরও কত ভয়ঙ্কর অভিজ্ঞতা, সত্যকাহিনী শোনাচ্ছেন দেবজ্যোতি সোম, তৃতীয় পর্ব

 

জলদস্যুর গল্প শুনেছেন অনেকেই। কিন্তু চোখে দেখেছেন নাকি কেউ? জাহাজেও নাকি লুকিয়ে উঠে পড়তে পারে লোক! ভাবতে অবাক লাগছে? মাঝসমুদ্রে কত বিপদ থাকে জাহাজে? যাঁরা দেখেননি বা শোনেননি, তাঁদের কাছে এমনই একটি বাস্তব অভিজ্ঞতার কাহিনী নিয়ে হাজির হচ্ছেন জাহাজের অবসরপ্রাপ্ত মেরিন রেডিও অফিসার

দেবজ্যোতি সোম

 

 

তৃতীয় কিস্তি

 

সালটা ১৯৯৬। জাহাজ দাঁড়িয়ে আছে ইয়েমেন (Yemen) এর অ্যাডেন (Aden) বন্দরে। তা প্রায় বারোদিন হয়ে গেল, জাহাজের মাল খালাস চলছে। আমরা খুব খুশি। ইয়েমেন দেশটার অর্থনৈতিক অবস্হা মোটেই ভালো নয়। আমাদের salary US dollar এ। অনেকেরই তখন প্রায় আট ন’মাস হয়ে গেছে জাহাজে। হাতে নগদ টাকা ভালোই আছে।

 

অ্যাডেনের রেস্টুরেন্টের ভালো ভালো উপাদেয় খাবার আমাদের বেশ ভালোই সস্তা মনে হচ্ছে। ইউ এস ডলার ভাঙিয়ে লোকাল কারেন্সিতে খাবার দরুন। জিভ আর পকেট খুশি তো আমরাও খুব খুশি।

 জাহাজটা ছিলো take over জাহাজ। আমরা জাহাজের সমস্ত কর্মী-আধিকারিক সদলবলে (সবাই ভারতীয়) মুম্বই থেকে গ্রীসের অ্যাথেন্স (Athens) এর  Piraus পোর্টে কাজে যোগ দিয়েছিলাম। একসঙ্গে জনা পঁচিশজন। জাহাজটা অন‍্য একটা কোম্পানি থেকে আমাদের কোম্পানি (company) কিনেছিল। আমরা ছিলাম take over staff.

 

সে যাই হোক, ওই জাহাজে ছিলাম খুব খুশিতে। জার্মানে তৈরি (German built) জাহাজ, শক্ত-সমর্থ, সুন্দর গঠন এবং থাকার ব্যবস্থাও ভালো (Good accommodation system and structure).

 

জাহাজের মাল খালাস প্রায় শেষ হয়ে এসেছে, হেড অফিস ব‍্যাংকক থেকে খবর এলো, Next loading পোর্ট জর্ডনের (Jordon) "আকাবা"। সঙ্গে আর একটা দারুন খুশির খবর হল Discharging port Bombay। আমরা সবাই আনন্দে ডগমগ, প্রায় সাতআট মাস ধরে, কানাডার Quebec, Montreal এ cargo load করেছি। আর লিবিয়ার ট্রিপোলি, বেনগাজিতে cargo discharge করেছি। শীতকালে St. Lawrence river এর জল জমাট বেঁধে শক্ত বরফ হয়ে থাকে। St.Lawrence river এর ভিতরেই ওই দুটো পোর্ট। তাই শীতকাল চলে আসাতে এশিয়ার দিকে জাহাজ কাজ করতে চলে এসেছে। জাহাজ এবার মুম্বইও যাবে ভেবে আমরা ভারতীয়রা খুব আনন্দেই আছি। কিন্তু আনন্দে ভাটা পড়ল জাহাজ Aden বন্দর ছেড়ে আকাবা বন্দরের দিকে এগোবার সময়। Red Sea দিয়ে যেতে হয়, Suez canal শুরু হবার আগে আগে ডানদিকে ঢুকে গেলে Gulf of Aqaba। Gulf of Aqaba যেখানে শেষ হয়েছে, সেখানে Jordon এর পোর্ট আকাবা।

 

এডেন পোর্ট ছেড়ে, আকাবার দিকে জাহাজ এগিয়ে চলেছে। রাত্রি নটা নাগাদ জাহাজ ছেড়েছে, বারো চোদ্দ ঘন্টা sail করার পর, পরেরদিন সকাল নটা নাগাদ জানতে পারলাম, জাহাজে তিনটি মনুষ‍্যের দেখা মিলেছে। যারা আফ্রিকান। একজনের বয়স ত্রিশ বত্রিশ হবে, আর বাকি দুজনের বয়স আঠেরো কুড়ি মতো হবে।

এরা জাহাজ sail করার আগে, লুকিয়ে জাহাজে উঠে পড়েছে। এদেরকে stowaway বলা হয়।

এদের উদ্দেশ্য কোনো ভালো দেশে নিজেদেরকে চালান করা। এরা আজকাল সাধারণত আফ্রিকানই হয়। আগে অনেক ভারতীয়রাও এরকম করতো বা করেছে। এর জন্য এজেন্ট (Agent) আছে, তারাই সব ব‍্যবস্হা করে দেয় টাকার বিনিময়ে।

(চলবে..)

Mailing List