পার্থ এখন জেলে, পার্থ-হীন বেহালা পশ্চিমে কাল কোন বার্তা দেবেন মুখ্যমন্ত্রী, সেদিকেই তাকিয়ে বাংলা

পার্থ এখন জেলে, পার্থ-হীন বেহালা পশ্চিমে কাল কোন বার্তা দেবেন মুখ্যমন্ত্রী, সেদিকেই তাকিয়ে বাংলা
13 Aug 2022, 11:15 PM

পার্থ এখন জেলে, পার্থ-হীন বেহালা পশ্চিমে কাল কোন বার্তা দেবেন মুখ্যমন্ত্রী, সেদিকেই তাকিয়ে বাংলা

 

আনফোল্ড বাংলা প্রতিবেদন: এসএসসি নিয়োগ দুর্নীতি মামলায় আপাতত জেলে মমতা সরকারের নম্বর টু ও দলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়। এছাড়াও তাঁর আরও একটা পরিচয়। তিনি বেহালা পশ্চিমের গত প্রায় দু'দশকের বিধায়ক। রবিবার সন্ধ্যায় সেই বেহালা পশ্চিমে পা রাখছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। 

এদিন বেহালার ম্যান্টনে মধ্যরাতের স্বাধীনতা অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকবেন মুখ্যামন্ত্রী তথা দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। প্রতিবারই বেহালার তৃণমূল কর্মীরা এই অনুষ্ঠান করে আসছেন। গত কয়েক বছর ধরে এই অনুষ্ঠানে নিয়ম করে উপস্থিত থাকেন দলনেত্রী। তবে এবার পরিস্থিতি একেবারেই আলাদা। প্রতিবারই মঞ্চে তাঁর পাশে আলো করে বসে থাকতেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়। যার বর্তমান ঠিকানা প্রেসিডেন্সি জেল। এই আবহে সবার নজর এখন বেহালায়। এই অনুষ্ঠানটিকে পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের অনুষ্ঠান বলেই সবাই জানে। তবে এবার খোদ গৃহকর্তাই নেই। এই অবস্থায় খোদ মুখ্যমন্ত্রী দলীয় কর্মী সমর্থকদের কোন বার্তা দেবেন সেটা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এই অনুষ্ঠানে হাজির থাকলেও তিনি পতাকা তুলবেন না। সন্ধেবেলা অনুষ্ঠান সেরে বেরিয়ে যাবেন।

কারণ, এদিন সন্ধ্যেয় তাঁর আরও কয়েকটি অনুষ্ঠান রয়েছে। বেহালার পর তিনি যাবেন খিদিরপুর ও শেষে যাবেন হাজরা মোড়ে। তিনটিই স্বাধীনতা দিবসের অনুষ্ঠান। তবে বেহালার অনুষ্ঠান নিয়েই দলীয় কর্মীদের মধ্যে আগ্রহ তুঙ্গে। এবার স্বাধীনতার ৭৫ বছর দেশজুড়ে পালিত হচ্ছে। রাজ্যেও দিনটিকে কেন্দ্র করে উৎসবের আবহ। ওইদিনের মূল অনুষ্ঠান রেড রোডে। তারও প্রস্তুতি প্রায় শেষ। স্বাধীনতা দিবসের কথা স্মরণ করিয়ে দিতে নিজের সোশ্যাল মিডিয়ার প্রোফাইল পিকচারেও বদল এনেছেন মুখ্যমন্ত্রী। তিরঙ্গার সঙ্গে দেশের স্বাধীনতা সংগ্রামীদের ছবি দিয়ে তাঁদের স্মরণ করেছেন তিনি। একটি পোস্টে অল্প কথায় দেশের স্বাধীনতা নিয়েও কিছু কথা বলেছেন মুখ্যমন্ত্রী। এই পরিস্থিতিতে বেহালার দিকেই কাল সবার নজর থাকবে। তাঁর রাজনৈতিক জীবনে বেহালার আলাদা গুরুত্ব রয়েছে। তিনি যখন যাদবপুরের সাংসদ ছিলেন তখন বেহালা ছিল কার্যত বামেদের দুর্গ। তারপর নিজের হাতে বেহালার সংগঠন গড়ে তোলেন তিনি। তাই এদিন ফের সেই বেহালার মাটিতে দাঁড়িয়ে কর্মী, সমর্থকদের কোন বার্তা দেন তার জন্য অপেক্ষায় সবাই। এর আগে বেহালার আর এক নেতা ও বেহালা পূর্বের বিধায়ক শোভন চট্টোপাধ্যায় দল ছাড়ার পর বেহালায় দাঁড়িয়েই তিনি শোভনের ছেড়ে যাওয়া জায়গায় তাঁর স্ত্রী রত্নাকে দায়িত্ব দেওয়ার ঘোষণা করেছিলেন। রবিবাসরীয় সন্ধ্যায় এরকমই কী কিছু ঘটতে চলেছে, বেহালাজুড়ে এখন শুধুই সেই জল্পনা।

Mailing List