বিয়েবাড়িতে সবুজ রক্ষার বার্তা আমন্ত্রিতদের গাছ বিতরণ নব দম্পতির, বার্তা দিলেন জল বাঁচানোর, থামোর্কল না ব্যবহারেরও

বিয়েবাড়িতে সবুজ রক্ষার বার্তা আমন্ত্রিতদের গাছ বিতরণ নব দম্পতির, বার্তা দিলেন জল বাঁচানোর, থামোর্কল না ব্যবহারেরও
05 Dec 2021, 05:40 PM

বিয়েবাড়িতে সবুজ রক্ষার বার্তা আমন্ত্রিতদের গাছ বিতরণ নব দম্পতির, বার্তা দিলেন জল বাঁচানোর, থামোর্কল না ব্যবহারেরও

 

আনফোল্ড বাংলা প্রতিবেদন: বিশ্ব উষ্ণায়ণ এর এই যুগে সবুজের অস্তিত্ব ক্রমশই বিপন্ন হয়ে পড়ছে। নিজেদের স্বার্থের তাগিতে প্রতিনিয়ত বৃক্ষচ্ছেদ করে চলেছে মানব জাতি। এরকম সংকট মুহুর্তে ও রয়েছে জনসচেতনতার যথেষ্ট অভাব। আর তাই মানুষকে সচেতন করতে এবং বৃক্ষ রোপন করার বার্তা দিতে এগিয়ে এলেন এক নবদম্পতি।

 

গত ৩০ নভেম্বর, ঝাড়গ্রাম জেলার গোপীবল্লভপুর ২ নং ব্লকের একডাল গ্রাম নীবাসি মনীশ মহাপাত্র ও ঈপ্সিতা দাসের ছিল বৌভাতের আয়োজন। আর এই আয়োজনেই সবুজ কে রক্ষা করা ও প্লাস্টিকের ব্যবহার বর্জন করার উদ্দেশ্যে যে আয়োজন তা ছিলো চোখে পড়ার মতো। নব দম্পতি এদিন আমন্ত্রিত সকল অতিথিদের হাতে উপহার হিসেবে নতুন চারা গাছের ব্যাগ তুলে দেন। কাপড়ের তৈরী সেই ব্যাগের দুপাশ জুড়ে ছিলো বৃক্ষরোপন করার উপকারিতার বার্তা। এরই পাশাপাশি ছিলো শাল পাতার ব্যবহার। বাজারে আজকাল যেখানে থার্মোকোল / প্লাস্টিকের থালার ব্যবহার প্রচুর  সেখানে এঁরা শাল পাতার ব্যবহার করে প্লাস্টিক দুষনের বিরুদ্ধে বার্তা দিতে চেয়েছেন। সাথে মেনু কার্ডে ছিলো জল সংরক্ষন করার বার্তা।

 

নবদম্পতিকে  ব্যাপারে জানতে চাওয়া হলে মনীশ মহাপাত্র জানান, "দূষনে জর্জরিত এ পৃথিবীর সংকট পরিস্থিতি থেকে কেবল গাছই আমাদের বাঁচাতে পারে। আর তাই বর্তমান যুব সমাজ কে এ বিষয়ে সচেতন হয়ে প্রকৃতি কে রক্ষা করার জন্য এগিয়ে আসতে হবে "।আর এই ভাবনাকে স্বার্থক করেন মেদিনীপুর নিবাসী পরিবেশ প্রেমী শিক্ষক মনিকাঞ্চন রায়। ওনার মতে আমার ছাত্রসম মনীশ বিয়েবাড়ি তে কিছু সামাজিক সচেতনতা মূলক কিছু পরিকল্পনার ধারণা নেয়। তখন আমার ছাত্র রাজেশ পীযুষ এর সহযোগিতায় গোদাপিয়াশাল থেকে শালপাতার থালা বাটি সংগ্রহ করে পাঠানোর ব্যবস্থা করা হয়। সেই সাথে গ্রামবাসির মধ্যে সবুজের বার্তা তুলে ধরতে প্রত্যেকে কে গাছ দিয়ে অভ্যর্থনা করার পরিকল্পনা করা হয়। এবং এখান থেকে মনিশের বন্ধু পীযুষ রানা বিয়ে বাড়িতে পৌঁছে দেয়। সকলের মধ্যে বিতরণের যাবতীয় হেল্প করে।

গ্রামবাসী মনি শঙ্কর মহাপাত্র ও শুভদীপ মহাপাত্রের কথায়, আমাদের এই এলাকায় এই প্রথম এরম ভাবনা। আমরা সত্যি আপ্লুতত এরম ভাবনায়। নব দম্পতি মনীশ মহাপাত্র ও ঈপ্সিতা  দাস এর কথায়, আমরা আগামীদিনে এরম মাঙ্গলিক অনুষ্ঠানে সামাজিক বার্তাবহ কাজ করে এলাকার মানুষ কে সজাগ করার কাজে আমরা ব্রতী থাকার চেষ্টা করবো।

ads

Mailing List