মহালয়াতেই নতুন পোশাক ধরা দিল স্বপ্নের মতো, মেদিনীপুরের গ্রামে ভেসে এলো আগুনের পরশমনি..

মহালয়াতেই নতুন পোশাক ধরা দিল স্বপ্নের মতো, মেদিনীপুরের গ্রামে ভেসে এলো আগুনের পরশমনি..
25 Sep 2022, 11:00 PM

মহালয়াতেই নতুন পোশাক ধরা দিল স্বপ্নের মতো, মেদিনীপুরের গ্রামে ভেসে এলো আগুনের পরশমনি..

 

আনফোল্ড বাংলা প্রতিবেদন: মহালয়া মানেই পুজো শুরু। ভোরে উঠে তর্পণ হোক বা বীরেন্দ্রকৃষ্ণের সুরে মহিসাসুর মর্দিনী- পুজো শুরু না হয়ে কী থাকতে পারে। তাই এমন সময় সকলের নতুন পোশাক কেনা প্রায় শেষ। এক দু’টি নয়, পাঁচ সাতটি করে। কি‌ন্তু গরিব, দিন আনি দিন খাওয়া মানুষের জীবনে? না, সে তৃপ্তির সূযোগ নেই। বাচ্চারা তাকিয়ে থাকে সম্পন্ন বাড়ির ছেলেমেয়েদের দিকে।

না, এবার সেদিক দিয়ে একটি গ্রামে হলেও অন্য চিত্র দেখা গেল। "আন্তরিক চ্যারিটেবল ট্রাস্ট" ও তার সদস্যদের আন্তরিকতায় পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার শালবনি ব্লকের ভাদুতলার নিকটবর্তী কোড়েদানা গ্রামের ১৫০ জনেরও বেশি কচিকাঁচার হাতে পুজোর প্রাক্কালে মহালয়ার দিন নতুন বস্ত্র তুলে দেওয়া হয়। মূল উদ্যোক্তা "আন্তরিক চ্যারিটেবল ট্রাস্ট" এর কর্ণধার কৃষ্ণেন্দু ঘোষ।

 উপস্থিত ছিলেন কোড়েদানা প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক অমর চৌধুরী। ছিলেন ওখানকার বেশ কিছু গ্রামবাসী। বিশিষ্ট সমাজসেবী ও শিক্ষক শিক্ষিকা সুমিতা সিনহা, দীপান্বিতা ঘোষ, মৈত্রেয়ী রায়, শকুন্তলা সান্যাল, দূর্বা সেন, অভিজিৎ ঘোষ, কল্পতরু ডায়াগনস্টিক সেন্টারের অমিত রায় প্রমুখ।

   

কাজটি সাধারণ বস্ত্রবিতরণের মতো সহজ ছিলো না। কারণ প্রতিটি বাচ্চার মাপ আলাদা। আবার ছেলেদের জামা প্যান্ট ও মেয়েদের জামার সঙ্গে পছন্দসই রঙের ব্যাপার। সব মিলিয়ে পুরো ব্যাপারটা ছিলো বেশ চাপের। কিন্তু খুব সুন্দর ভাবে সমস্ত ব্যাপারটা সুষ্ঠু ভাবে সম্পন্ন হয়েছে। বাচ্চাদের মিষ্টি মুখের ব্যবস্থাও রাখা হয়েছিলো। "আগুনের পরশমণি "গান দিয়ে অনুষ্ঠানের শুভ সূচনা হয়। বাচ্চারাও আবৃত্তি, গান করে। শেষে জাতীয় সংগীত দিয়ে অনুষ্ঠান শেষ হয়।

Mailing List