প্রকাশিত হল নটরাজ ড্যান্স একাডেমির আগমনী নৃত্যের ভিডিয়ো "ঘরে ফেরার গান"

প্রকাশিত হল নটরাজ ড্যান্স একাডেমির আগমনী নৃত্যের ভিডিয়ো
17 Oct 2020, 06:15 PM

প্রকাশিত হল নটরাজ ড্যান্স একাডেমির আগমনী নৃত্যের ভিডিয়ো "ঘরে ফেরার গান"

আনফোল্ড বাংলার প্রতিবেদন,পশ্চিম মেদিনীপুর: পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার স্বনামধন্য নৃত্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান 'নটরাজ ডান্স একাডেমি'র আগমনী নৃত্য ভিডিও "ঘরে ফেরার গান" প্রকাশিত হলো শুক্রবার। এদিন সকালে নিজের বাসভবনেই এক ঘরোয়া অনুষ্ঠানে এই নৃত্য ভিডিওটি প্রকাশ করেন মেদিনীপুর শহরের রাজাবাজারে প্রথিতযশা সঙ্গীত শিল্পী জয়ন্ত সাহা। অনুষ্ঠানে সবাইকে স্বাগত জানান বিশিষ্ট নৃত্যশিল্পী ও নৃত্য প্রশিক্ষিকা ঈশিতা চট্টোপাধ্যায়।

এদিনের অনুষ্ঠানে অতিথিদের পাশাপাশি মিউজিক ভিডিওর কলাকুশলী ও বিভিন্ন কাজের সঙ্গে যুক্ত ব‍্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন। তাছাড়াও উপস্থিত ছিলেন সাহিত্যিক​ বিদ‍্যুৎ পাল, শিক্ষক সুদীপ কুমার খাঁড়া, সমাজসেবী কুনাল ব‍ন্দ্যোপাধ্যায়, সঙ্গীত শিল্পী সুমন্ত সাহা, নৃত্যশিল্পী রাজীব খান, শমীক সিংহ, মৈথিলী চ‍ট্টোপাধ্যায়, ভিডিওগ্রাফার রাহুল চন্দ্র প্রমুখ।

উল্লেখ্য গত ১৭ আগস্ট থেকে নটরাজ ডান্স একাডেমির ন‌‌ৃত্য উৎসব শুরু হয়েছে। এই উৎসবে বিভিন্ন আঙ্গিকের নৃত্য সোশ্যাল মিডিয়ায় পর্দায় সংস্কৃতিপ্রেমী দর্শকরা উপভোগ করেছেন। এবার গুটি গুটি পায়ে দুর্গাপূজা এসে উপস্থিত। তাই আগমনীর আবহে অন্যান্য বছরের মতো এবারও নিজদের ভাবনায় গড়ে তোলা নৃত্য ভিডিও "ঘরে ফেরার গান" উপহার দিল এই নৃত্য প্রশিক্ষণ সংস্থা। একটি ছেলে প্রিয় গ্রাম ও বাল্য-সঙ্গিনীকে ছেড়ে চলে যায় জীবনের পথে। পরে বড় হয়ে মাঠ ভরা ধান ও কাশ ফুলের সমারোহে সে যখন গ্রামে ফেরে তখন সে তার নিজের ছোটবেলার স্মৃতিকে হাতড়ে বেড়ায়। বারবার তার সামনে ফিরে আসে তার বাল্য সঙ্গিনীর মুখ, মা দুর্গার মুখের মধ্যেও সে খুঁজে বেড়ায় তার হারিয়ে যাওয়া অতীতের স্মৃতি গুলিকে। এই ভাবনার উপর মিউজিক ভিডিওটি তৈরি করা হয়েছে। 

দুর্গার আবাহনের মধ‍্য দিয়ে তুলে ধরতে চেয়েছেন ,সেই হার না মানা প্রান্তিক গ্রামের মেয়েদের। যে মেয়েরা নাচকে বাঁচিয়ে রাখার জন্য অনেকটা পথ হাঁটে। ডান্স একাডেমির পক্ষ থেকে স‍্যালুট জানানো হয়েছে একাডেমির ছাত্রীদের। পাশাপাশি এই কাজটি রূপায়িত করতে বিশেষ ভাবে সাহায্য করার জন্য একাডেমির পক্ষে ঈশিতা চট্টোপাধ্যায় বিশেষ ধন্যবাদ জানান, শতাব্দী গোস্বামী চক্রবর্তী,শমীক, রাহুল , সন্দীপ সহ বাড়ুয়া গ্রামের গ্রামবাসী এবং কর্ণেলগোলা আদি সর্বজনীন দুর্গোৎসব কমিটিকে। ভিডিওটি ইউটিউবে সহ সোশ্যাল মিডিয়ায় আপলোড করা হয়েছে এবং বেশ ভালো সাড়া ফেলেছে।

Mailing List