পুরাণভিত্তিক ধর্মীয় ধারাবাহিক রচনা, ‘আমিই সে’ / ষষ্ঠ পর্ব

পুরাণভিত্তিক ধর্মীয় ধারাবাহিক রচনা, ‘আমিই সে’ / ষষ্ঠ পর্ব
27 Jun 2021, 12:04 PM

‘আমিই সে’

(একটি পুরাণভিত্তিক ধর্মীয় ধারাবাহিক রচনা)

 

সুপ্রিয় বন্দ্যোপাধ্যায়

 

ষষ্ঠ পর্ব

 

'বিশ্বাতীত পরব্রহ্মের স্বরূপ আমরা জানব। তাই অনন্তজ্ঞানশক্তিসম্পন্ন সহস্র-চক্ষু জগতের নাথ পরমেশ্বরের ধ্যান করব। জ্ঞান-শক্তি-দাতা রুদ্রদেব আমাদের প্রেরণা দান করুন।'

 

এটি বিশেষ কোনো মন্ত্র নয়, এটা রুদ্রগায়ত্রী -- যা জপ করে তৎকালীন বৈদিক যুগের সাধকরা রুদ্রকে সন্তুষ্ট করতেন, ভজনা করতেন।

 

এখন প্রশ্ন হচ্ছে: রুদ্র কে?

 

উত্তর: রুদ্র বলতে শিবকে বোঝায়। বৈদিক যুগে মূলতঃ ৠক্ বেদে তাঁর ভয়ঙ্কর ও ভীষণ রূপ, পরে কালের গতির সাথে সাথে উগ্রতার বদলে হয়ে ওঠেন মঙ্গলময় ও শুভঙ্কর।

 

যতই এই পৌরাণিক দেবতা, তথা শুভ সত্তা, ভয়াল-ভীষণ রূপ বর্ণনা করা হোক না কেন, তার্কিক মতাদর্শে বলা যায়: সৃষ্টির শুরুতে মানুষের জীবন ছিল মারাত্মক কঠোর, কঠিন। তাই তাদের দৈব রূপ-কল্পেও পড়েছিলে তারই ছোঁয়া। মানুষ যেহেতু মনের বশ, মানবিক বোধের অধীন--- তাই  তৎকালীন চিন্তা-ভাবনা-বোধে রুদ্র ভগবানের সৃষ্টি।

 

প্রকারান্তরে, জীবনের গতি ধীরে ধীরে স্বাভাবিক হবার পরই, মানবিক চিন্তায় আসে পরিবর্তন, রুদ্র হয়ে ওঠেন শান্ত,ধীর, ধ্যান-গম্ভীর।

 

বর্তমানে আধুনিকায়ন সভ্যতার যুগে আমরা যখন দক্ষিণেশ্বরের মা ভবতারিণীর ভক্ত-সাধক শ্রীরামকৃষ্ণদেবের কথায়, " মনেতেই বদ্ধ, আবার মনেতেই মুক্ত "। অর্থাৎ, বৈদিক যুগের নানান প্রতিবন্ধকতা, অসুবিধাজনিত কারণ আমাদের মনকে বদ্ধ করে রাখার ফলে আমাদের মনের পরম বিকাশ-লাভ হয়নি, ফলে জটিল জীবনের ছাপ আমাদের মনেও প্রতিফলিত হবার কারণে ভগবান রুদ্র হয়ে উঠেছিলেন ভয়ঙ্কর; পরে কালের গতি জীবনের পালে হাওয়া লাগিয়ে জীবন-তরী সুস্থ-স্বাভাবিক হবার সঙ্গে সঙ্গে আমাদের মননশীলতা যায় বদলে--- বেদের প্রলয়ঙ্কর, হয়ে ওঠেন শুভঙ্কর।

 

যিনি জগৎ সৃষ্টি করেছেন, তিনি কখনও ভয়ঙ্কর হতে পারেন? তিনি যে সদাসর্বদা মঙ্গলময়, করুণার্দ স্নেহশীল। তিনি অনন্ত-জ্ঞান-শক্তি-দাতা, আমাদের পরম প্রেরণা।

 

তাই শিবরূপ তথা রূদ্ররুপ আমাদের মানবচেতনায় মিলে মিশে একাকার; বেদের একাদশ রুদ্র (অজ, একপাদ, অহির্বুধ্ন, পিনাকী, অপরাজিত, ত্র্যম্বক, মহেশের, বৃষাকপি, শম্ভু, হর ও ঈশ্বর) হয়ে ওঠেন বিশ্বের অতীত পরব্রহ্ম।

 

তাই তাঁর গায়ত্রী-মন্ত্রে তাঁকেই স্তুতি জ্ঞাপন করি ---

"পুরুষস্য বিদ্ম সহস্রাক্ষস্য মহাদেবস্য ধীমহি।

তন্নো রুদ্র প্রচোদয়াৎ।।"

 

 (চলবে)

ads

Mailing List