আত্মবিশ্বাস কমে গিয়েছে মমতার, তাই তারকাদের প্রার্থী করেছেনঃ দিলীপ ঘোষ

আত্মবিশ্বাস কমে গিয়েছে মমতার, তাই তারকাদের প্রার্থী করেছেনঃ দিলীপ ঘোষ
05 Mar 2021, 09:33 PM

আত্মবিশ্বাস কমে গিয়েছে মমতার, তাই তারকাদের প্রার্থী করেছেনঃ দিলীপ ঘোষ

 

 

আনফোল্ড বাংলা প্রতিবেদন, মেদিনীপুরঃ মুখ্যমন্ত্রীর আত্মবিশ্বাস কমে গিয়েছে। তাই তিনি এখন জেতার জন্য তারকাদের ওপর ভরসা করছেন। ভরসা করতে পারছেন না দলের পুরাতন কর্মীদের। শুক্রবার  সন্ধ্যায় মেদিনীপুরে দলের একটি সাংগঠনিক সভাতে যোগ দিতে এসে এই কথা বলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ।

শুক্রবার ঘোষণা করা হয়েছে বামফ্রন্ট কংগ্রেস জোটের সংযুক্ত মোর্চা এবং তৃণমূল কংগ্রেসের। তৃনমূল কংগ্রেসের দলনেত্রী রাজ্যের যে সব আসনে লড়াই করার জন্য প্রার্থীদের নাম ঘোষণা করেছেন তার মধ্যে অনেকেই সিনেমা জগতের। বেশ কয়েকজন আছেন যারা খেলার জগতের পরিচিত মুখ। যেভাবে তৃণমূল কংগ্রেস তারকা প্রার্থী দিয়েছে তাকে কটাক্ষ করেছেন দিলীপ ঘোষ।

 

এদিন তৃনমূল কংগ্রেস যাদের নাম ঘোষণা করেছে, তাদের মধ্যে আছেন সায়নী ঘোষ, জুন মালিয়া, সায়ন্তিকা বন্দ্যোপাধ্যায়, রাজ চক্রবর্তী, বীরবাহা হাঁসদার মত যারা অভিনয় জগতের সাথে যুক্ত।

আর একেই কটাক্ষ করেছেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি। মেদিনীপুরে সভায় যোগ দিতে এসে সাংবাদিক বৈঠকে বলেন, "যত জায়গায় তৃণমূল কংগ্রেস হেরেছে, তার প্রায় সব জায়গাতেই তারকা প্রার্থী দিয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস। যে ধরনের সেলিব্রেটিদের রাখা হয়েছে তাতে আত্মবিশ্বাস কমে গিয়েছে বোঝা যাচ্ছে।” এর সাথেই বলেন, “এতে আপত্তি নেই।  তবে পার্টির পুরানো কর্মীদের বাদ দিয়ে তারকাদের নেওয়া হয়েছে এটাই চিন্তার বিষয়।”

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এইবার লড়াই করছেন নন্দীগ্রাম থেকে। এই প্রসঙ্গে দিলীপ ঘোষ বলেন, “উনি তো বলেই ছিলেন যে এখানে লড়াই করবেন।  দেখা যাক। লড়াই হবে ওখানে।”

তৃণমূল কংগ্রেসের প্রার্থীর নাম ঘোষণার পর বিভিন্ন জায়গাতে বিক্ষোভ দেখানো হচ্ছে সেই প্রসঙ্গে বলেন, “ আজ বিক্ষোভ হচ্ছে, কাল থেকে পদত্যাগ শুরু হবে। পার্টি ছাড়া শুরু হয়ে যাবে।  অনেক জায়গা থেকে আমাদের কাছে খবর আসছে। তাদের অনেকেই আমাদের পার্টিতে আসার চেষ্টা করছে। এটা হওয়ার ছিল। কারণ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আত্মবিশ্বাস কমে গিয়েছে। পুরানো কর্মীদের বিশ্বাস করতে পারছেন না। তার পরিণাম হচ্ছে আজকে। লড়াই-এর সময় নিজেদের ব্রাত্য মনে করছেন।”

 

বিজেপি প্রার্থী  ৯ তারিখের আগেই হয়ে যাবে বলে জানিয়ে বলেন,  “চিন্তা নেই। যেহেতু প্রক্রিয়া মেনে হচ্ছে তাই একটু সময় লাগছে। আজকে অসমের প্রার্থী ঘোষণা হয়েছে। আমাদের রাজ্যেরটাও হয়ে যাবে।”

এইদিকে বিজেপি সূত্রে জানা গিয়েছে, রবিবার প্রধানমন্ত্রীর ব্রিগেড সমাবেশের পরেই বিকালের দিকে দলের প্রার্থীদের নাম ঘোষণা করে দেওয়া হবে।

 

সিপিএম নেতা সুশান্ত ঘোষ শালবনি কেন্দ্রে প্রার্থী হচ্ছেন।  সেই প্রসঙ্গে দিলীপ বলেন,  “তার বিরুদ্ধে অভিযোগ তো আছেই। যারা পার্টিকে ডুবিয়েছিল তারাই এখন পার্টির ভরসা। তাদের কাছে উপায় নেই। যারা জেলে ছিলেন তারাই এখন বড় নেতা।

বিজেপির জেলা সভাপতি বলেন, “ অনেকে ভাবেন প্রার্থী ঘোষণা মানেই জিতে গিয়েছেন। ওদের আঞ্চলিক দল। খুব বেশি ফারাক পড়ে না। দিল্লিতে নির্বাচন কমিটি রয়েছে, বিভিন্ন প্রক্রিয়ার মাধ্যমে নাম চূড়ান্ত হয়েছে। সেই প্রক্রিয়া চলছে। আমাদের কাছে প্রার্থী বড় নয়, প্রতীক বড়। লোকসভায় দেখেছেন মেদিনীপুর থেকে জিতিয়েছেন। পার্টির যে প্রক্রিয়া চলছে। সভা, সমিতি, প্রচার করতে হয়। অন্য রাজ্যের থেকে আমাদের বন্ধুরা এসেছেন। পশ্চিমবঙ্গের ক্ষমতা হাতে নেওয়ার জন্য এই লড়াই। লোকসভায় আমরা ফল পেয়েছি। প্রতিনিধি পাঠানো হয়েছে। ১৯ হাফ করেছি ২১ সাফ করবো। এখানে আমি প্রার্থী ছিলাম, জিতেছি। পশ্চিমবঙ্গের মানুষ চাইছে একবার পরিবর্তন হোক। এবার সেটাই হবে।

Mailing List