ভালোবাসেন নাকি শুধুই যৌনতা, নিছক লালসা! মস্তিষ্ক কিন্ত সব জানে, আপনি বুঝতে পারেন?

ভালোবাসেন নাকি শুধুই যৌনতা, নিছক লালসা! মস্তিষ্ক কিন্ত সব জানে, আপনি বুঝতে পারেন?
12 Jun 2022, 12:47 PM

ভালোবাসেন নাকি শুধুই যৌনতা, নিছক লালসা! মস্তিষ্ক কিন্ত সব জানে, আপনি বুঝতে পারেন?

 

তনুমন

 

নীল ছাতাটার উপরে আলো শুয়ে আছে। আলোর উপর বৃষ্টি। হাঁটতে ইচ্ছে করছে, তবে ধীরে। একটা ছাতা, একজন পথিক আর বৃষ্টি। অনুভূতির জুঁই ফুটেছে, গন্ধ পাই। তবে সে নাই। এই মন নিয়ে শরীরের ক্ষরণ কেউ মেপেছে! যদি মাপা যেতো! ভালোবাসার নিক্তিতে। হয়তো বা বোঝা যেতো কি ভালোবাসি, কেন ভালোবাসি। আদৌ কি ভালোবাসা নাকি যৌন আকর্ষণ। নাকি নিছকই লালসা। ভালোবেসে কথা দিয়েছেন দীর্ঘ পথ চলার নাকি কামনার অন্ধ উঠোনে হোঁচট লেগেছে বারবার।

ভালোবাসা, ভালোলাগা, যৌনতা, লালসা, আকর্ষণ, উন্মাদনা সবই ঘটবে। বিভেদের প্রাচীর তুলে আলাদা করবে কিভাবে, প্রেমাকান্ত নিরীহ মানুষ।

বিজ্ঞান উত্তর খুঁজতে গিয়ে নিজেও হারিয়েছে। তবে একটা দিশা অবশ্যই খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে। কল্পনা বিলাস, আবেগাহত, কাতর ভালোবাসা প্রকাশের মাধ্যমগুলো ঠিক কি? আর যৌনতা সম্পর্কে অমোঘ টানই বা কি।

প্যাশনেট রোমান্টিক হৃদয় গলানো ভালোবাসা মস্তিষ্ক বোঝে নির্ভুল ভাবে, ক্ষরণ শুরু হয় ডোপামিন এর (মানব শরীরে উৎপন্ন হওয়া হরমোন)। আচ্ছন্ন করে, ধীরে ধীরে দ্রবীভূত হয় অস্তিত্ব। ডোপামিনের নেশা পেয়ে যায়, গভীরতা বাড়ে ভালোবাসার।

ভারতবর্ষের চুম্বনের আগুন জ্বালিয়ে দিয়েছিল আপামর প্রেমিকযুগলকে, প্রেম প্রকাশের নবভাষায় উত্তাল হয়েছিল বিশ্ব (চুমুর জন্ম ভারতে বলেই ধরা হয়)। শুধু কী তাই? ভালোবাসার উথালি পাথালি পথে নিখোঁজ যাত্রীর সংখ্যা আদি থেকে নব্য ভারতবর্ষে বেড়েই চলছে।

ক্লিওপেট্রা আর মার্ক অ্যান্টনির প্রেমালেখ্য ইতিহাস। আমাদের দেশের রঞ্জার কথা হীর আজও কি ভুলেছে! বাজিরাওয়ের মাস্তানি, সংযুক্তার পৃথ্বীরাজ, নূরজাহান, ভাণুমতি- সবাই প্রেম মালার অমূল্য পুঁথি।  এদের সবার মস্তিষ্ক কোনো না কোনো সময়ে কি ডোপামিন আক্রান্ত হয়েছিল? সে জানার উপায় নেই। তবে ভালোবাসার বহর দেখে ঠাহর করে নেওয়া যেতেই পারে এনারা একই দলে।

তবে মায়ের স্নেহ ভালবাসা আর রোমান্টিক লাভ- ফারাকটা চোখে পড়ার মতো। চোখে পড়বে কি করে? ফাংশনাল MRI করে দেখা গেলো মস্তিষ্কের সম্পূর্ণ দুটো ভিন্ন স্থান থেকে এই দুই ভালোবাসা উৎসারিত হয়। গবেষণার ফলাফল প্রকাশ হতেই পার্থক্যের প্রাচীর টা স্পষ্টতর হলো।

পরীক্ষাটা এভাবে করা হলো, নির্বাচিত কিছু প্রেমিক যুগল নিয়ে তাদের ভালোবাসার মুহূর্ত মনে করতে বলা হলো, পরে মায়ের স্নেহের স্পর্শের কথা ভাবতে বলা হলো। প্রমাণ হলো, মস্তিষ্কের দুটি ভিন্ন অঞ্চল দুটো পৃথক ভালোবাসাকে প্রকাশ করে, সেটা সহজেই MRI তে ধরাও পড়লো।

ডোপামিন ক্ষরণের সঙ্গেই মস্তিষ্ক জুড়ে ছড়িয়ে পড়তে থাকে রোমান্টিক প্রেমের আবেশ। তবে ডোপামিন ছাড়াও রয়েছে অক্সিটোসিন এবং সেরোটোনিন। সেরোটোনিন এর ভূমিকা বেশি গোলমেলে। সেরোটোনিনের প্রভাবে ভালোবাসার আবেগ ঊর্ধ্বমুখী হল। তবে লিঙ্গ ভেদে সেরোটোনিনের ভূমিকা ভিন্ন। সেরোটোনিনের ক্ষরণ পুরুষদের ক্ষেত্রে নিম্নমুখী হলে পুরুষরা আবেগাহত হয়। আবার স্ত্রীদের ক্ষেত্রে সেরোটোনিন ঊর্ধ্বমুখী হওয়ার সঙ্গে আবেগও চড়তে থেকে।

সেরোটোনিনের ভেলকিবাজি এখানেই শেষ নয়। অবসেসিভ-কম্পালসিভ ডিসঅর্ডার একটি জটিল মনস্তাত্ত্বিক অসুখ। লিঙ্গ ভেদে আক্রান্ত হতে পারে সকলে। ঠিক কি কারণে এই অসুখের শুরু সেটা নিয়ে বিস্তর আলোচনা করা যেতে পারে। তবে হঠাৎ কোনও নতুন জায়গায় যাওয়া, চাকরি পাওয়া থেকে চাকরি বাতিল হওয়া, বিয়ে হওয়া থেকে ডিভোর্স হওয়া- সব কিছু থেকেই এই অসুখ শুরু হতে পারে। আবার ভালোবাসার হারিয়ে যাওয়ার ভয়, তাকে না পাওয়ার যন্ত্রনা থেকেও এই অসুখের লক্ষণ প্রায়শই দেখা যায়। হারিয়ে ফেলার ভয় বড়ই খটমটে। একটা তীব্র আকাঙ্ক্ষা থেকেই মনের গোপন ঘরে জন্ম নিয়ে বাড়তে থাকে এই ভয়। আর এই ভয় পাওয়া সেরোটোনিনের আসকারাতেই। তাই অবসেসিভ-কম্পালসিভ ডিসঅর্ডারের চিকিৎসা সেরোটোনিন রিআপটেক ইনহিবিটরের সাহায্যে। তবে ভালোবাসায় যৌনতার ক্ষেত্রে অক্সিটোসিনের ভূমিকা অনস্বীকার্য। শুরুতে ব্যাপার গুলো সহজ থাকলেও নিউরোট্রান্সমিটার অক্সিটোসিন, ভেসোপ্রেসিন, সেরোটোনিন, ডোপামিন এদের আবির্ভাবে ক্রমশ জটিল হয় ভালোবাসা, যৌনতা, আকর্ষণ আর ভালো লাগার হিসেব।

একাকী হেটে যাওয়ার নীরব অনুভূতি, যেকোনো মুহূর্তে ভালোবাসার মানুষকে মনে করে কষ্ট পাওয়া আবার হঠাৎই তার কোন বিশেষ মুহূর্ত মনে করে একাকী হেসে ফেলা। এগুলো রোমান্টিক লাভ। বাংলায় উথালি পাথালি ভালোবাসা। এ ভালবাসায় নেই যৌনতা, এ ভালবাসায় নেই চাহিদা, এ ভালোবাসা শুধু সঙ্গ লাভের।

ভালোবাসায় যৌনতাকে পোক্ত করে না লঘু করে তা নিয়ে বিস্তর তর্ক। বিভেদ থাকতেই পারে। তবে রোমান্টিক লাভে অক্সিটোসিনের ভূমিকা নগণ্য। মস্তিষ্কে কি ক্ষরণ হল বা হবে তাকে বুড়ো আঙ্গুল দেখে আপনি নিশ্চিন্তে ভালোবাসুন।

চলবে..

ads

Mailing List