যেন বিয়ের অনুষ্ঠান, ব্যান্ডপার্টি বাজিয়ে ভোট প্রচার বিজেপি প্রার্থীর

যেন বিয়ের অনুষ্ঠান, ব্যান্ডপার্টি বাজিয়ে ভোট প্রচার বিজেপি প্রার্থীর
13 Mar 2021, 09:00 PM

যেন বিয়ের অনুষ্ঠান, ব্যান্ডপার্টি বাজিয়ে ভোট প্রচার বিজেপি প্রার্থীর

 

আশিস বন্দ্যোপাধ্যায়, পুরুলিয়া

 

কর্মী বৈঠক শেষ করেই ব্যান্ডপার্টি বাজিয়ে গ্রামে গ্রামে বাড়ি বাড়ি গিয়ে প্রচার শুরু করে দিলেন পুরুলিয়ার পাড়া বিধানসভার বিজেপি প্রার্থী নদীয়ার চাঁদ বাউরি। শুক্রবার প্রায় সকাল থেকেই দলের নেতা কর্মীদের নিয়ে পাড়া বিধানসভা এলাকার অন্তর্গত রঘুনাথপুর ২ নম্বর ব্লকের রুকনি, ধানাড়া-সহ বিভিন্ন গ্রামে গ্রামে বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভোট প্রচার সারলেন পাড়া বিধানসভার বিজেপি প্রার্থী নদীয়ার চাঁদ বাউরি। এদিন দলীয় নেতা কর্মীদের হাতে হাতে ছিল পদ্মফুলের পতাকা। সেই সঙ্গে ব্যান্ডপার্টির  আয়োজন। প্রার্থী দলীয় নেতা কর্মীদের নিয়ে যখন ব্যান্ডপার্টি সহকারে গ্রামে ঢুকছেন, তখন প্রথমে গ্রামের মানুষ বুঝতেই পারেনি। বুঝতে পারেননি যে কোনও রাজনৈতিক দলের প্রচারের জন্য এই ব্যান্ডপার্টি বাজনা বাজছে। পরে দরজায়  বেরিয়ে আসতেই ভুল ভাঙছে সকলের। 

আসলে পুরুলিয়ার গ্রাম গঞ্জে এরকম ব্যান্ডপার্টির আওয়াজ হলেই বিয়েকে ঘিরে শোভাযাত্রা দেখতে ঘর ছেড়ে বেরিয়ে আসে মানুষজন। কিন্তু, এদিন প্রার্থীকে দেখে সকলেই কার্যত এপ্রিল ফুল হয়ে যায়। একপ্রকার বাধ্য হয়েই প্রার্থীকে বরণ করে নিচ্ছেন তারা। প্রার্থীও হাতজোড় করে নমস্কার জানাচ্ছে। পা-ছুঁয়ে বড়দের করছেন প্রণাম। সব মিলিয়ে বাড়ি বাড়ি প্রচারে জয় শ্রীরাম ধ্বনিতে  রুকনি, ধানাড়া-সহ আট দশটি গ্রাম মাতিয়ে দেন বিজেপি প্রার্থী।

পুরুলিয়ার পাড়া বিধানসভায় এবার দুই শিক্ষকের হাড্ডাহাড্ডি লড়াই এ যে জমে উঠবে ভোটের ময়দান তা সকলেই এক বাক্যে বলছেন। এই কেন্দ্রে বিজেপি প্রার্থী করেছেন শিক্ষক নদীয়ার চাঁদ বাউরিকে। অপরদিকে তৃণমূল এই কেন্দ্রে প্রার্থী বদল না করে দুই বারের বিধায়ক তথা শিক্ষক উমাপদ বাউরিকেই টিকিট দিয়েছেন। গত পঞ্চায়েত নির্বাচন থেকেই এই বিধানসভা একেবারে গেরুয়াময়। গত লোকসভা নির্বাচনে ভোটে এই আসনে বেশ কয়েক হাজার ভোটে লিড ছিল বিজেপির। তাই এই কেন্দ্র অঙ্কের নিরিখে বিজেপির জয়লাভ করার কথা বলছে। তাই সেই কথা মাথায় রেখেই বিজেপি শিক্ষক নদীয়ার চাঁদ বাউরিকে প্রার্থী করে বাজিমাত করতে চাইছে। বিজেপি প্রার্থী বলেন, দল তাকে টিকিট দিয়েছে। তাই দলের সিদ্ধান্ত মেনেই ভোট প্রচার শুরু করেছি। ব্যাপক মানুষ জনের সহানুভূতি লক্ষ্য করছি ভোট প্রচারে গিয়ে। তাই এই কেন্দ্র থেকে আমার জয় কেবলমাত্র সময়ের অপেক্ষা। 

অন্যদিকে, এই কেন্দ্রের তৃণমূলের প্রার্থী উমাপদ বাউরি বলেছেন, এই কেন্দ্রে অঙ্কের সমীক্ষা কাজ করে না, আমি বিগত নির্বাচনের অভিজ্ঞতা থেকে বলছি। এই কেন্দ্রের ভোটাররা উন্নয়নের পক্ষে ভোট দিয়েছেন ও দেবেন। তাই লোকসভা আর বিধানসভা ভোট এক নয়। এই কেন্দ্রে আমি জয়ী হব কি না সেটা সময়ই বলবে।

ads

Mailing List