প্রবল ঝড়বৃষ্টির জেরে অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ কেদারনাথ যাত্রা

প্রবল ঝড়বৃষ্টির জেরে অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ কেদারনাথ যাত্রা
23 May 2022, 07:41 PM

প্রবল ঝড়বৃষ্টির জেরে অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ কেদারনাথ যাত্রা

 

 

 

আনফোল্ড বাংলা প্রতিবেদন :  প্রবল বর্ষণের জেরে অনির্দিষ্ট কালের জন্য বন্ধ কেদারনাথ সহ চারধাম যাত্রা।  ওই এলাকায় চলছে প্রবল বর্ষণ। এই কারণে সেখানে জারি করা হয়েছে ‘কমলা সতর্কতা’ (orange alert)। এই সময়ে যাতে কোনও দুর্ঘটনা না  ঘটে সেই জন্য অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ  করে দেওয়া হয়েছে কেদারনাথ যাত্রা (Kedarnath Yatra)। সোমবার এই ঘোষণা করেছে উত্তরাখণ্ড প্রশাসন।

দুবছর বন্ধ থাকার পরে এই মাসেই ফের শুরু হয় কেদারনাথ সহ চারধাম যাত্রা।  কিন্তু এই আবহাওয়ায় কোনও রকম ঝুঁকি নিতে রাজি নয় সেখানের  প্রশাসন। তাই  প্রবল বর্ষণের জেরে এই তীর্থযাত্রা বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে স্থানীয় প্রশাসন।

সোমবার সকাল থেকে লাগাতার বৃষ্টি হচ্ছে কেদারনাথে। ফলে যে সকল তীর্থযাত্রীরা কেদারনাথের উদ্দেশ্যে রওনার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন, তাঁদের ফিরিয়ে দেওয়া হয়েছে। একইসঙ্গে এই মুহূর্তে যারা কেদারনাথে রয়েছেন, তাঁদেরও মন্দিরে প্রবেশ করতে নিষেধ করা হয়েছে। হোটেলে ফিরে যেতে বলা হয়েছে সকলকে। পাশাপাশি, তাঁদের নিরাপদে ফিরিয়ে আনারও ব্যবস্থা করা হচ্ছে। সেই সঙ্গে এই পরিস্থিতিতে সেখানে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে হেলিকপ্টারও। প্রশাসনের আধিকারিকরা জানান, সেখানের গুপ্তকাশী এলাকায় আটকে দেওয়া হয়েছে প্রায় ৫ হাজার জনকে। সেখানে জারি করা হয়েছে কমলা সতর্কতাও।  

রুদ্রপ্রয়াগের সার্কেল অফিসার প্রমোদ কুমার  বলেন, ''এই মুহূর্তে প্রবল বর্ষণের জেরে অরেঞ্জ অ্যালার্ট জারি করা হয়েছে। সকাল থেকে লাগাতার ভারী বৃষ্টি চলছে। ফলে কোনওরকম ঝুঁকি না নিয়ে আমরা তীর্থযাত্রীদের হোটেলে ফিরে যেতে বলেছি। পায়ে হেঁটে এই যাত্রাপথ এখন ঝুঁকিপূর্ণ।''

 

উল্লেখ্য, কোভিডের কারণে  গত দু'বছর চারধাম যাত্রা বন্ধ ছিল। মে মাসের ৩ তারিখ থেকে পুনরায় এই যাত্রা শুরু হয়। অক্ষয় তৃতীয়ার দিন থেকেই চারধাম যাত্রা শুরু করেন পুণ্যার্থীরা। ৬ মে ভক্তদের জন্য কেদারনাথের প্রবেশদ্বার খুলে দেওয়া হয়। বদ্রিনাথের দরজা খোলা হয় গত ৮ মে থেকে।

 

এদিকে, এখনও পর্যন্ত চারধাম যাত্রায় ৬০ জন তীর্থযাত্রীর মৃত্যুর খবর পাওয়া গিয়েছে।  তাঁদের মধ্যে ৬৬ শতাংশ তীর্থযাত্রীই ডায়াবিটিস এবং উচ্চ রক্তচাপের কারণে প্রাণ হারিয়েছেন। শারীরিকভাবে সুস্থ না থাকলে তীর্থযাত্রা করতে নিষেধ করা হচ্ছে স্থানীয় প্রশাসনের তরফে।

ads

Mailing List