ঝালদার কংগ্রেস কাউন্সিলার খুনের ঘটনার আঁচ লোকসভায়, বাংলায় অরাজকতা চলছে বলে  সরব অধীর

ঝালদার কংগ্রেস কাউন্সিলার খুনের ঘটনার আঁচ লোকসভায়, বাংলায় অরাজকতা চলছে বলে  সরব অধীর
15 Mar 2022, 06:29 PM

ঝালদার কংগ্রেস কাউন্সিলার খুনের ঘটনার আঁচ লোকসভায়, বাংলায় অরাজকতা চলছে বলে  সরব অধীর

 

আনফোল্ড বাংলা প্রতিবেদন : ঝালদায় কংগ্রেস কাউন্সিলর তপন কান্দু হত্যাকাণ্ডের আঁচ লাগল লোকসভায়। এই নিয়ে সরব হলেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি তথা প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর রঞ্জন চৌধুরী। এই সঙ্গে তিনি টেনে আনেন হাওড়ার আমতার গ্রামে আনিস হত্যার প্রসঙ্গও। রাজ্যের আইনশৃঙ্খলা নিয়ে প্রশ্ন তোলার পাশাপাশি লোকসভায় বহরমপুরের সাংসদের অভিযোগ, রাজ্যের সব জায়গায় চলছে অরাজকতা।  তৃণমূলের লোকজন পুলিশের মদতে সন্ত্রাস চালাচ্ছে বলেও দাবি করেন তিনি।  যদিও লোকসভায় এদিন বাংলায় বক্তব্য রাখার সময়ে তাঁকে নিশানা করে তৃণমূল।  অধীরকে নিশানা করে পাল্টা স্লোগান দেওয়া হয় তৃণমূলের তরফে।

এদিকে রাজ্যের তৃণমূল কংগ্রেসের মুখপাত্র কুণাল ঘোষও এই নিয়ে কটাক্ষ করেন অধীর চৌধুরীকে। 

 

এদিন আমতার ছাত্রনেতা আনিস খান ও ঝালদার কংগ্রেস কাউন্সিলার  তপন কান্দু হত্যাকাণ্ড নিয়ে সরব হন অধীর চৌধুরী। কোর্টের নজরদারিতে সিবিআই তদন্তের দাবি করেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি। টেবিল চাপড়ে  তাঁকে সমর্থন জানান কংগ্রেস সভানেত্রী  সোনিয়া গান্ধি।

এদিন অধীর চৌধুরী বলেন,  “জয়ী কংগ্রেস কাউন্সিলকে পরিকল্পনা করে হত্যা করা হয়েছে যাতে তৃণমূল ওই পুরসভা দখল করতে পারে।”

 উল্লেখ্য, পুরুলিয়ার ঝালদা পুরসভা মোট ১২টি আসনের মধ্যে ৫ টি আসনে জিতেছে কংগ্রেস । ৫টি গিয়েছে তৃণমূল কংগ্রেসের দখল। বাকী ২টি আসন পেয়েছে নির্দল।

 অধীর চৌধুরী  বলেন, “ পশ্চিমবঙ্গে নির্বাচন চলাকালীন ব্যাপক খুন, দাঙ্গা, হিংসা হয়েছে নির্বিচারে, রাজ্যের আইশৃঙ্খলা ভেঙে পড়েছে। গোটা বাংলায় অরাজকতা বিরাজ করছে। এই বাংলা সন্ত্রাসের বাংলা। এখানে রাজনীতি করার কোনও জায়গা নেই। আমার দাবি কংগ্রেস কাউন্সিলর খুনের ঘটনায় কোর্টের নজরদারিতে সিবিআই তদন্ত হোক। ” একই সঙ্গে তাঁর দাবি পুলিশকে সঙ্গে নিয়েই রাজ্য জুড়ে সন্ত্রাস চালাচ্ছে তৃণমূল।

অধীর চৌধুরী দাবি করেন,  আদালতের নির্দেশে কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থাকে দিয়ে তদন্ত করা হোক।

যদিও কুণাল ঘোষ বলেন, “ রাজনীতি করার জন্য এই কথা বলেছেন অধীর চৌধুরী।”

আগের দিনই তিনি ঝালদা এসে দাবি করেন, পুলিশের মদতেই তৃণমূল খুন করেছে তপনকে। এদিন কার্যত একই দাবি করে পুলিশ সুপারকে চিঠি দিয়েছেন তপনের স্ত্রী পূর্ণিমা কান্দু। তাঁর অভিযোগ, ঝালদার আইসি-ও এই খুনের জন্য দায়ী । ওই থানার আইসি তৃণমূল নেতাদের সঙ্গে নিয়ে তপনকে তৃণমূলে যোগ দেওয়ার জন্য চাপ দেন । তাঁর দাবি, আই সি তাঁর স্বামীকে হুমকি দেন যে যদি তিনি তৃণমূলে যোগ না দেন তাহলে মিথ্যা মামলায় ফাঁসিয়ে দেওয়া হবে।

এদিকে পানিহাটির কাউন্সিলার খুনের ঘটনায় এদিন গ্রেফতার করা হয়েছে আরও দুজনকে। শমভুনাথ পণ্ডিতকে জেরা করেই পুলিশ ওই দুজনের সন্ধান পায়।

আরেক দিকে , রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী ওই দুই কাউন্সিলারের পরি্বারকে পরামর্শ দেন সিবিআই তদন্ত চেয়ে হাইকোর্টে যাওয়ার জন্য। তিনি  বলেন “ রাজ্য সরকার এই খুনের ঘটনায় সিবিআই তদন্ত করতে চাইবে না। আমার ওই দুই পরিবারকে পরামর্শ  তাঁরা সিবিআই তদন্ত চেয়ে আদালতে যান।”

Mailing List