মমতাকে কুশলী নেত্রী বলে জয়প্রকাশের সম্বোধন, বিজেপি নেতৃত্বের প্রতি বিষোদ্গার

মমতাকে কুশলী নেত্রী বলে জয়প্রকাশের সম্বোধন, বিজেপি নেতৃত্বের প্রতি বিষোদ্গার
25 Jan 2022, 07:00 PM

মমতাকে কুশলী নেত্রী বলে জয়প্রকাশের সম্বোধন, বিজেপি নেতৃত্বের প্রতি বিষোদ্গার

 

আনফোল্ড বাংলা প্রতিবেদন: বঙ্গ বিজেপিতে শোরগোল মাথা চাড়া দিচ্ছে। বরখাস্ত হওয়া রীতেশ তিওয়ারি ও জয়প্রকাশ মজুমদার আজ এক সাংবাদিক বৈঠকে করে বঙ্গ নেতৃত্বের প্রতি তীব্র বিষোদ্গার করেন। জয়প্রকাশ এইসঙ্গে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সম্পর্কে তিনি বলেন, কারোর পছন্দ হোক বা না হোক এইমুহুর্তে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ভারতবর্ষের একজন অত্যন্ত কুশলী নেত্রী।

 

রীতেশ তিওয়ারি ও জয়প্রকাশ মজুমদারের বরখাস্ত হওয়ার সিদ্ধান্তকে দলের অনেকেই মেনে নিতে পারছেন না। রীতেশ এবং জয়প্রকাশ মজুমদার বলেছেন, রূপা গাঙ্গুলি, অনুপম হাজারাদের মতো নেতারাও দলের বাইরে একাধিকবার দল সম্পর্কে কথা বলেছেন। তাঁদের বিরুদ্ধে ব্যবস্হা নেওয়ার সাহস দলের নেই বলে জানান রীতেশ তিওয়ারি। দলবিরোধী কাজের জন্য দুজনকেই শোকজ এবং তার উত্তরের আগেই তাঁদের বরখাস্ত করা হয়েছে। এই প্রসঙ্গে জয়প্রকাশ বলেছেন, শৃঙ্খলাভঙ্গ করেছে তো দল। তাঁর প্রশ্ন কারা সিদ্ধান্ত নিলেন, কবেই বা নেওয়া হলো? 

অর্থাৎ বিচারের আগেই শাস্তি বলে তিনি বিষ্ময়প্রকাশ করেন। তিনি বলেন, বাংলার বিজেপিকে দুর্বল করার চেষ্টা করছে দলেরই একাংশ। এরপর তিনি বিস্ফোরক তথ্য তুলে ধরেন। মুকুল রায় প্রসঙ্গে জয়প্রকাশ মজুমদার বলেন, বিধানসভা নির্বাচনের ফলপ্রকাশের দিন হেস্টিংসের পার্টি অফিস থেকে বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বড় বড় নেতারা কার্যত পালিয়ে গিয়েছিলেন। একমাত্র তিনি সেখানে শেষপর্যন্ত ছিলেন। এছাড়াও তিনি বলেন, মুকুল রায় যেদিন তৃণমূলে চলে গেলেন সেদিন দলের কোন নেতা এই ঘটনার মুখোমুখি হয়ে প্রেসের সামনে যেতে চাননি। তাঁকে এগিয়ে দেওয়া হয় বলে মন্তব্য করেন। জয়প্রকাশ আরো বলেন, বিধানসভা নির্বাচনের ব্যর্থতা নিয়ে কোন আলোচনা করতে দেওয়া হয়নি। এইসঙ্গে বলেন, নির্বাচনে ভালো ফল হবে কি করে, অধিকাংশ জেলা সভাপতিকে মানুষ চেনেনই না। তো তাঁরা নির্বাচন পরিচালনা করবেন কি করে? এভাবেই দু'ই বরখাস্ত নেতা নেতৃত্বের বিরুদ্ধে বিস্ফোরণ ঘটিয়েছেন।

ads

Mailing List