কু-প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় আদিবাসীকে বধূ ও তাঁর পরিবারকে বাঁশ দিয়ে পেটানো হল বর্ধমানে! অভিযুক্তরা পুলিশকেও ছাড়লো না

কু-প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় আদিবাসীকে বধূ ও তাঁর পরিবারকে বাঁশ দিয়ে পেটানো হল বর্ধমানে! অভিযুক্তরা পুলিশকেও ছাড়লো না
04 May 2022, 09:30 PM

কু-প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় আদিবাসীকে বধূ ও তাঁর পরিবারকে বাঁশ দিয়ে পেটানো হল বর্ধমানে! অভিযুক্তরা পুলিশকেও ছাড়লো না

 

প্রদীপ চট্টোপাধ্যায়, বর্ধমান

 

কুপ্রস্তাবে রাজি না হয়ে উল্টে প্রতিবাদে সরব হয়েছিলেন এক গৃহবধূ। তারই বদলা নিতে লাঠি ও বাঁশ দিয়ে পিঠিয়ে ওই বধূ ও তাঁর পরিবার সদস্যদের জখম করার অভিযোগ উঠলো ভীরু টুডু নামে এক যুবক ও তাঁর দলবলের বিরুদ্ধে। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে বুধবার বেলায় ব্যাপক উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে পূর্ব বর্ধমানের কালনার বুলবুলি তলার চৌঘরিয়া গ্রামে। এই খবর পয়েই দ্রুত কালনা থানার পুলিশ ওই গ্রামে পৌছায়।

 

পুলিশ জখমদের উদ্ধার করতে গেলেও একপ্রস্থ অশান্তির ঘটনা ঘটে। অভিযুক্তরা জখমদের উদ্ধারে পুলিশকে বাধা সৃষ্টি করে। এর পরেই পরিস্থিতি মোকাবিলায় বিশাল পুলিশ-বাহিনী গ্রামে পৌছালে অভিযুক্তরা গ্রাম ছেড়ে চম্পট দেয়। তার পর পুলিশ মারধোরে জখম ওই প্রতিবাদী মহিলা ও তাঁর পরিবারের আরও তিন সদস্যকে উদ্ধার করে কালনা সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে নিয়ে গিয়ে ভর্তি করে।উত্তেজনা থাকায় চৌঘরিয়া গ্রামে পুলিশ পিকেটও বসানো হয়েছে।

 

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, চৌঘরিয়া গ্রামে অশান্তির সূত্রপাত হয় মূলত রাস্তা দখলকে কেন্দ্র করে। তা নিয়ে দু’ভাগে বিভক্ত হয়ে যায় গ্রামের আদিবাসী সম্প্রদায়ের মানুষজন। অভিযোগ, এই অবস্থার মধ্যেই এদিন বিরোধী পক্ষের ভীরু টুডু নামে এক যুবক গ্রামেরই মুর্মু পরিবারের এক গৃহবধূকে কু-কথা বলে ও কুপ্রস্তাব দেয়। এমনকি সে ৫০০ টাকার বিনিময়ে তাঁর কুপ্রস্তাবে রাজি হওয়ার কথাও ওই বধূকে বলে’। গৃহবধূ ওই প্রস্তাবে রাজি না হয়ে উল্টে যুবকের বিরুদ্ধে প্রতিবাদে সরব হন।

 

হাসপাতালে চিকিৎসার জন্যে আসা অক্রান্তরা এদিন বলেন, “কু-প্রস্তাবের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ মেনে নিতে পারেনি ওই যুবক ও তাঁর গোষ্ঠীর লোকজন। তাই তারা লাঠি ও বাঁশ নিয়ে তাঁদের পরিবারের প্রতিবাদী মহিলা সহ পরিবারের আরও এক মহিলা ও দুই পুরুষ ব্যক্তিকে বেধড়ক ভাবে পিটিয়ে জখম করে। এই ঘটনার খবর পেয়ে কালনার বুলবুলিতলা ফঁড়ির পুলিশ গ্রামে এসে তাঁদের উদ্ধার করতে এলে অভিযুক্তরা পুলিশের উপরেও চড়াও হয়। তাঁদের উদ্ধারে পুলিশকে বাধা দেওয়া শুরু করে। আক্রান্ত মুর্মু পরিবারের সদস্যরা জানিয়েছেন, এরপরেই বিশাল পুলিশবাহিনী গ্রামে পৌছালে অভিযুক্ত ভিরু টুডু ও তাঁর দলবল গ্রাম ছেড়ে পালিয়ে যায়। তারপর পুলিশ তাঁদের উদ্ধার করে কালনা সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে নিয়ে গিয়ে ভর্তি করে“ ।

 

চিকিৎসা করিয়ে আক্রান্ত পরিবারের এক সদস্য এদিনই অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে কালনা থানায় অভিযোগ জানান। এসডিপিও সপ্তর্ষি ভট্টাচার্য যদিও জানিয়েছেন, ’মহিলাকে ’কু-কথা ‘বলার ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে ওই মহিলার বোন থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন ।তার ভিত্তিতে সুনির্দিষ্ট ধারার মামলা রুজু হয়েছে। পুলিশ অভিযুক্তদের সন্ধান চালাচ্ছে” ।

ads

Mailing List