পাঁচ বছরের ব্যবধানে প্রায় ৮ ফুট চওড়া ধস নামল রানীগঞ্জের বাউলহীর গ্রাম সংলগ্ন এলাকায়, আতঙ্কিত সাধারণ মানুষ

পাঁচ বছরের ব্যবধানে প্রায় ৮ ফুট চওড়া ধস নামল রানীগঞ্জের বাউলহীর গ্রাম সংলগ্ন এলাকায়, আতঙ্কিত সাধারণ মানুষ
25 Nov 2022, 05:31 PM

পাঁচ বছরের ব্যবধানে প্রায় ৮ ফুট চওড়া ধস নামল রানীগঞ্জের বাউলহীর গ্রাম সংলগ্ন এলাকায়, আতঙ্কিত সাধারণ মানুষ

আনফোল্ড বাংলা প্রতিবেদন: পাঁচ বছরের ব্যবধানে আবার বিশাল আকারের ধস নামল রানীগঞ্জের বাউলহীর গ্রাম সংলগ্ন এলাকায়। গ্রাম থেকে মাত্র ২৫ ফুট দূরত্বে দেখা গিয়েছে বিশাল এই ভূমিধস। জানা গিয়েছে, প্রায় ৮ ফুট চওড়া এই ধস। যা দেখে রীতিমতো আতঙ্কিত গ্রামের মানুষজন।

গ্রামের কয়েকজন ছোট ছোট ছেলে এই বিশাল ধস এবং সেখান থেকে ধোঁয়া বেরোতে দেখে। তারপরে খবর ছড়িয়ে যায় গ্রামে। আর তখন থেকে রীতিমতো আতঙ্কিত হয়ে পড়েছেন গ্রামের মানুষজন। পাশাপাশি গ্রামের বহু মাটির বাড়িতে দেখা গিয়েছে ফাটল। ফাটল দেখা গিয়েছে এলাকার মাঠে-ঘাটে। সেখান থেকেও ধোঁয়া বেরোতে দেখেছেন অনেকে। ফলে রীতিমতো আতঙ্কিত হয়ে পড়েছেন গ্রামের মানুষ। এই ভূমিধসের জন্য তাঁরা দায়ী করছেন ইসিএল কর্তৃপক্ষকে। অভিযোগ তুলছেন, কয়লা উত্তোলন শেষে খনি ঠিকঠাক ভাবে ভরাট না করার জন্যই ধসের ঘটনা।

প্রসঙ্গত ২০১৭ সালে এই গ্রামেই ধসের ঘটনা ঘটার পর ফের এই ধসের ঘটনায় চাঞ্চল্য বেড়েছে। ঘটনার পরে পুলিশ প্রশাসনকে খবর দেওয়া হয়। পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে এই ঘটনার খবর পাওয়ার পরই ইসিএল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়। পরে খবর পেয়ে অমৃতনগর কোলিয়ারি থেকে এক আধিকারিক ঘটনাস্থল পরিদর্শনে আসেন। যদিও তিনি এ বিষয়ে কোনও মন্তব্য করতে চাননি। 

উল্লেখ্য ২০১১ সালে এলাকার বাসিন্দাদের পুনর্বাসনের জন্য তথ্য সংগ্রহ করে, তাদের একটি পুনর্বাসনের কার্ড দেয় প্রশাসন। তবে তারপর তাঁদের পুনর্বাসনের কোনও উদ্যোগ নেওয়া হয়নি। এলাকার বাসিন্দাদের দাবি, তাঁদের পুনর্বাসনের ব্যবস্থা গ্রহণ করুক ইসিএল। একই সঙ্গে ওই এলাকাটিকে সংরক্ষণের দাবিও করেছেন তাঁরা।

Mailing List