আমি নই, আমরা হয়েই কাজ করতে হবে, নাহলে করজোড়ে দল থেকে বিদায় জানাবো, মেদিনীপুরের দলীয়সভায় নেতাদের নির্দেশ মমতার

আমি নই, আমরা হয়েই কাজ করতে হবে, নাহলে করজোড়ে দল থেকে বিদায় জানাবো, মেদিনীপুরের দলীয়সভায় নেতাদের নির্দেশ মমতার
18 May 2022, 12:54 PM

আমি নই, আমরা হয়েই কাজ করতে হবে, নাহলে করজোড়ে দল থেকে বিদায় জানাবো, মেদিনীপুরের দলীয়সভায় নেতাদের নির্দেশ মমতার

 

আনফোল্ড বাংলা প্রতিবেদন : আগামী বছরেই পঞ্চায়েত নির্বাচন। তারপরে, ২০১৪ সালে লোকসভা নির্বাচন। লক্ষ্য দিল্লি। তাই এখন থেকেই দলের সুর বেঁধে দিলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল কংগ্রেসের দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বুধবার মেদিনীপুরর কলেজ ময়দানে পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের কর্মী সম্মেলনে দলের শ্লোগানও দিলেন তিনি। বলে দিলেন এখন থেকে তাঁদের শ্লোগান ‘আমি নই, আমরা’।  তিনি বলেন, “আমি হলে চলবে না, সকলকে সঙ্গে নিয়ে কাজ করতে হবে, সামনের দিকে এগিয়ে যেতে হবে। আমি থেকে আমরা হয়ে, ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে পারলেই আমরা ভারত জয় করতে পারব। তখন দিল্লি আমাদের হাতে মুঠোয় আসবে।”

একই সঙ্গে, এদিনের ওই সম্মেলনে দলের নেতাকর্মী- জনপ্রতিনিধিদের কী রকম করে কাজ করতে হবে তার নির্দেশও দেন তৃণমূল নেত্রী।তিনি বলেন,  “যাঁরা মঞ্চে বসে থাকেন তাঁরা বড় নন। মানুষের জন্য কাজ করতে হবে। কারণ নেতা কাজের মধ্যে দিয়ে তৈরি হয়। যে কাজ করে সেই নেতাদের আমি পছন্দ করি। সাধারণ মানুষের জন্য সব সময় কাজ করতে হবে। সাধারণ মানুষকে সাহায্য করতে হবে। যে মানুষের পাশে দাঁড়ায় সেই আসল নেতা।" কী করে মানুষের পাশে গিয়ে দাঁড়াতে হবে তাও জানিয়ে দেন তিনি। পরিষ্কার বুঝিয়ে দেন, কারোর জন্য কাজ করতে গিয়ে একটা টাকাও নেওয়া যাবে না, কেউ যদি ‘মিষ্টি কেনার’ জন্য টাকা দিতে আসে তাও ফিরিয়ে দিতে হবে।

একই সঙ্গে এই সম্মেলন থেকে তিনি জানিয়ে দেন, কাজ করতে হবে মানুষের জন্য, মানুষকে সঙ্গে নিয়েই। আর কেউ যদি তা না করে নিজের জন্য কাজ করতে চান তাহলে এক সেকেন্ডেই ‘ঘ্যাচাং ফু’ করে দেওয়া হবে। দলের নেতা কর্মীদের কাজ করতে হবে দলের নিয়ম নীতি মেনেই। আর কেউ যদি না করেন তাহলে ‘এক সেকেন্ডেই তাঁর নাম কেটে দেওয়া হবে’। দলের বিধায়ক, জেলা পরিষদ সদস্য,পঞ্চায়েত সদস্যদের জন্য তাঁর আরও কড়া বার্তা দিয়ে তিনি  বলেন, “ আমি নই, আমরা। এই শ্লোগান নিয়েই কাজ করতে হবে। জিতে গেলাম আর মনে করলাম যে ‘আমি’ তা করলে চলবে না।”

এই বার্তা দেওয়ার কারণ কী? দলীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, বেশ কয়েকজন নেতা নিচুতলার কর্মীদের একেবারেই গুরুত্ব দিচ্ছিলেন না। ফলে ক্ষোভ বাড়ছিল দলে। আর এই কারণেই কিছু কিছু ক্ষেত্রে বিজেপির বাড়বাড়ন্ত দেখা যাচ্ছিল। তাই এবার মুখ্যমন্ত্রী স্পষ্ট নির্দেশ দেন, দুরত্ব ঘোচাতে হবে। যে সমস্ত কর্মীরা দূরে রয়েছেন তাঁদের কাছে টানতে হবে। বোঝাতে হবে, আমি নই আমরা। আর এই কাজটি করার জন্য পশ্চিম মেদিনীপুর জেলায় দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে অজিত মাইতিকে।

শুধু পশ্চিম মেদিনীপুর নয়, রাজ্যের সমস্ত জেলাতেই এই নীতি মেনে চলতে হবে বলেও জানান মুখ্যমন্ত্রী। এবার মুখ্যমন্ত্রী জেলায় জেলায় সফর করে এই বার্তা দেবেন বলেও ঘোষণা করেন। 

ads

Mailing List