তিনি ‘গুলাম’ নন, পদ্ম সম্মান প্রত্যাখান করায় কুর্নিশ  বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যকে

তিনি ‘গুলাম’ নন, পদ্ম সম্মান প্রত্যাখান করায় কুর্নিশ  বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যকে
26 Jan 2022, 03:36 PM

তিনি গুলাম নন, পদ্ম সম্মান প্রত্যাখান করায় কুর্নিশ  বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যকে

আনফোল্ড বাংলা প্রতিবেদন : রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী  বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যর যে ভাবে পদ্ম-পুরস্কার নিতে অস্বীকার করেছেন তাকে সমর্থন জানালেন অনেকেই। রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীকে , সামাজিক ক্ষেত্রে তাঁর অবদানের জন্য  পদ্মভূষণ সম্মান দেওয়ার কথা ঘোষনা করে । গতকালই তিনি জানিয়ে দেন তিনি এই পুরষ্কার   প্রত্যাখ্যান করছেন। তাঁর এই সিদ্ধান্তকে কুর্নিশ জানিয়েছেন অনেকেই।  একাধিক রাজনৈতিক দলের শীর্ষ নেতাও বুদ্ধদেব  ভট্টাচার্যর এই সিদ্ধান্তকে সঠিক বলে মন্তব্য করেছেন।

এদিকে, বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যর মতই পদ্মভূষণ দেওয়া হচ্ছে , কংগ্রেস নেতা, জম্মু কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী গুলাম নবি আজাদকে।

রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী যেভাবে পদ্ম সম্মান প্রত্যাখান করেছেন সেই  সিদ্ধান্তকে সমর্থন জানাতে গিয়ে গুলাম নবি আজাদকে বিঁধলেন কংগ্রেসের আরেক শীর্ষ নেতা জয়রাম রমেশ।   পশ্চিমবঙ্গের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর পদ্মভূষণ সম্মান প্রত্যাখানের খবর রিটুইট করে প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী জয়রাম রমেশ  লেখেন, ''সঠিক সিদ্ধান্ত। উনি   আজাদ থাকতে চান, গুলাম নয়’।

 আর  তাঁর এই টুইট ঘিরেই শুরু হয় বিতর্ক। কংগ্রেসের একাংশের দাবি, এই বক্তব্য আসলে ঘুরপথে গুলাম নবি আজাদকেই কটাক্ষ করা হয়েছে।

এমনিতেই কংগ্রেসের বিক্ষুব্ধ নেতাদের তালিকায় অন্যতম নাম গুলাম নবি আজাদ। অন্যদিকে, জয়রাম রমেশ কট্টর গান্ধী পরিবারের সমর্থক বলেই পরিচিত। সে ক্ষেত্রে তাঁর এই টুইট খোঁচা যে আজাদকেই উদ্দেশ করে, তা আর বুঝতে বাকি থাকে না বিশ্লেষকদের।

প্রসঙ্গত, গুলাম নবি আজাদ  কংগ্রেসের দ্বিতীয় নেতা যাকে পদ্ম পুরস্কারের জন্য মনোনীত করা হল। এর আগে ২০০৮ সালে প্রয়াত প্রণব মুখোপাধ্যায়কে পদ্ম বিভূষণ পুরস্কার দেওয়া হয়। ২০১৯ সালে তিনি পেয়েছিলেন দেশের সর্বোচ্চ সম্মান ভারতরত্ন।

গতকালই  পদ্মভূষণ সম্মান প্রত্যাখ্যান করে  বিবৃতি দিয়ে বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য জানান , 'পদ্মভূষণ পুরস্কার নিয়ে আমি কিছুই জানি না। আমাকে এই নিয়ে কেউ কিছু বলেনি। যদি আমাকে পদ্মভূষণ পুরস্কার দিয়ে থাকে তাহলে আমি তা প্রত্যাখ্যান করছি।'

এই সঙ্গেই পদ্মশ্রী নিতে অস্বীকার করেন ‘গীতশ্রী’ সন্ধ্যা মুখোপাধ্যায়। যে ভাবে তাঁরা এই পুরষ্কার নিতে অস্বীকার করেছেন, তাতে অনেকেই সোশ্যাল মিডিয়াতে সমর্থন করে লিখেছেন, দুই বাঙালি কেন্দ্রকে জোর থাপ্পড় মারলেন।

 

ads

Mailing List