চাঁদের মাটিতে জন্মালো চারগাছ! অভানীয় হলেও সত্য

চাঁদের মাটিতে জন্মালো চারগাছ! অভানীয় হলেও সত্য
13 May 2022, 11:35 PM

চাঁদের মাটিতে জন্মালো চারগাছ! অভানীয় হলেও সত্য

 

আনফোল্ড বাংলা প্রতিবেদন: পাক্কা ৫২ বছর।এতদিন ধরে সংরক্ষণ করে রাখা ছিল সেই মাটি। সম্প্রতি সেই মাটিতেই পোঁতা হয়েছিল বীজ। এবার তা থেকেই জন্ম নিল চারাগাছ। সেই সঙ্গে জন্ম নিল নতুন রূপকথা। তাজ্জব পৃথিবীর তামাম বিজ্ঞানীকূল।

ঘটনাটা ঠিক কী? সেটা ছিল ১৯৬৯ সাল। নতুন দরজা খুলে গিয়েছিল মানব সভ্যতার ইতিহাসে। সে বছর ২১ জুলাই পৃথিবীর সীমা পেরিয়ে চাঁদের মাটিতে পা পড়েছিল মানুষের। পৃথিবীর প্রথম মানুষ হিসেবে চাঁদে পা রেখেছিলেন নীল আমস্ট্রং। সঙ্গী ছিলেন এডুইন অলড্রিন।

ফেরার পথে চাঁদের থেকে মাটি সংগ্রহ করে এনেছিলেন দুই মহাকাশচারী আর্মস্ট্রং ও অলড্রিন। প্রায় পাঁচ দশক ধরে সেই মাটি পরম যত্নে সংরক্ষণ করে রাখা ছিল। সেই মাটিতেই সম্প্রতি পরীক্ষামূলক ভাবে পোঁতা হয়েছিল বীজ। সেই বীজই এবার অঙ্কুরিত হল। সেই বীজ থেকেই জন্ম নিয়েছে নতুন চারাগাছ। চাঁদ থেকে আনা মাটিতে এভাবে চারাগাছ গজিয়ে উঠতে দেখে অবাক বিজ্ঞানীরাও।

তাঁদের ধারণা হয়েছিল, আর যাই হোক চাঁদের মাটিতে প্রাণ সঞ্চার হওয়ার কোনও আশা নেই। ইউনিভার্সিটি অফ ফ্লোরিডার কৃষি বিভাগের গবেষকরা চমকে উঠেছেন এই ঘটনায়। তাঁরা বলছেন, এ ঘটনা বিশ্বাসই করা যাচ্ছে না। পৃথিবীতে থাকা চাঁদের মাটিতে বীজ থেকে চারাগাছ জন্ম নিয়ে আবার বেড়েও উঠছে। আপতত সেই চারাগাছ নিয়েই শুরু হয়েছে গবেষণা। তবে জানা গিয়েছে ওই মাটিতে চারাগাছ জন্ম নিলেও তার বৃদ্ধির গতি খুবই কম। এখন সেটাই বোঝার চেষ্টা চলছে। অস্ট্রেলিয়া থেকে প্রকাশিত দ্য কমিউনিকেশন বায়োলজি জার্নালে এই খবর প্রকাশিত হতেই সাড়া পড়ে গিয়েছে গোটা দুনিয়ার বিজ্ঞানীমহলে।

ads

Mailing List