রেহান কৌশিকের চারটি কবিতা

রেহান কৌশিকের চারটি কবিতা
06 Mar 2022, 12:45 PM

রেহান কৌশিকের চারটি কবিতা

 

ভাসান

 

কেউ কি জানে কখন সময় নি:শেষে খুব একলা করে?

শব্দবিহীন নি:স্ব ছায়া কখন ঢোকে ভিতর ঘরে!

 

নি:স্বতা কে নির্বাসনে পাঠানো কি সহজ কথা!

ধরতে গেলেই অতল ফুঁড়ে সামনে দাঁড়ায় নীরবতা...

 

কার হাতে হাত রাখব তবে? সবটুকু আজ দেব কাকে?

কে রয়েছে ধারণ করার, কে-ই বা এখন চায় আমাকে!

 

দ্যুতিবহুল চোখ থেকে চোখ ঠিক কীভাবে অন্যকে চায়

এ সব জানার আগেই কবি ভুল নদীতে হৃদয় ভাসায়!

 

তুমি কি সেই নদী, মেয়ে? তুমি কি সেই আকুল স্রোত?

তাহলে আজ ফের আমাকে লালন করুক তোমার ঠোঁট...

 

নি:স্বতা যে প্রখর আগুন, সেই আগুনে বাঁচা কি যায়!

ভিতর ঘরের দ্বন্দ্ব ভেঙে, সম্মতি দাও ভেসে যাওয়ায়...

………………..

 

উঠোন

 

আমি তো উঠোন হয়ে আছি

রোদ আসে রোদ যায়, একটি দু'টি শালিক চড়াই

                     কথা বলে, গল্প করে, চলে যায় দূরে!

 

তুইও তো তেমন কিছু,  আসা আর যাওয়া

হয়তো বা কিছু নয়,  নাহলে অনেক কিছু --- মহৎ ভাঙচুরে

স্তব্ধ হয়ে ছুঁয়ে থাকি নিশ্চুপ সমস্ত দাগ একা অন্তরালে!

 

কে রাখে হদিশ আর, এই সব শুদ্ধতম বিষ

এতটা মন খারাপ?

 

উঠোনের আড়ষ্ঠতা ভেঙে

চলে যাব কোনওদিন পুরানো রক্তের দিকে ঠিক

যেখানে ছিল না কিছু --- না-বলার সুস্পষ্ট কৌশল!

আশরীর জুড়ে শুধু জেগে থাকবে সুপ্রাচীন জঙ্গলের মোহ...

……….

 

আমার দেশ

 

তোমার ওড়ানো ওই অলীক ফানুসে

জেগে আছে বিভাজন, আর কাঁটাতার!

                 চেয়েছ ভাঙন যত মানুষে-মানুষে

                 হাত তত ছুঁয়ে গেছে হাতের কিনার...

 

নিশানা করেছ যত মানুষের বুক

ছুঁয়েছ আঙুলে যত ঘাতক-ট্রিগার

জমাট হয়েছে তত মানুষের মুখ

নিয়েছে দখল তারা সব রাস্তার!

 

                 চেয়েছ ভাঙন যত মানুষে-মানুষে

                 হাত তত ছুঁয়ে গেছে হাতের কিনার...

 

মিশে আছে তিস্তা-তোর্সা, গীতা ও কোরান

কীভাবে মোছাবে এই অমোঘ-সম্প্রীতি?

মিশে আছে বৌদ্ধ-জৈন, হিন্দু-মুসলমান

কীভাবে সরাবে আজ প্রেমের-জ্যামিতি?

 

                 চেয়েছ ভাঙন যত মানুষে-মানুষে

                 হাত তত ছুঁয়ে গেছে হাতের কিনার...

 

দেশ থাকে চেতনায়, স্বপ্ন ও বিশ্বাসে

প্রতিবাদে হতে জানে আগুন-খামার,

দেশ থাকে হৃদয়ের আস্থা ও আশ্বাসে

বুঝে নিতে জানে দেশ নিজ-অধিকার...

 

               চেয়েছ ভাঙন যত মানুষে-মানুষে

               হাত তত ছুঁয়ে গেছে হাতের কিনার...

                            ……..

 

জাতিস্মর

 

মুঠোয় রাখিনি কোনোকিছু

অকাতর ছড়িয়েছি পথ থেকে পথের ভিতর।

প্রতিটি জন্মের পর, প্রতিটি মৃত্যুর পর

কুড়িয়েছি পুনরায় ফেলে যাওয়া প্রাচীন মোহর।

 

তুমি শুধু ছুঁয়ে দেখ, কিছুই অচেনা নেই আর

এই শস্য, এই ধুলো, এই প্রেম এবং সৎকার...

 

হয়তো-বা দূরে যায় পথ

স্তব্ধতায় নিভে যায় পৃথিবীর যত কোলাহল,

তবুও এখনো তুমি প্রতিজন্মে আমাকে চেনাও

 

মেঘের ভিতর মেঘ ছুঁয়ে

কীভাবে বৃষ্টির দেহে জেগে থাকে জাতিস্মর-জল!

>><<<< 

Mailing List