শুরু হল দুর্গাপুর ব্যারেজের গেট মেরামতির কাজ

শুরু হল দুর্গাপুর ব্যারেজের গেট মেরামতির কাজ
31 Oct 2020, 06:07 PM

শুরু হল দুর্গাপুর ব্যারেজের গেট মেরামতির কাজ
আনফোল্ড বাংলা প্রতিবেদন: দুর্গাপুর ব্যারেজের গেট ভেঙে জলোচ্ছ্বাস জনিত বিপত্তির প্রেক্ষিতে রাজ্য সরকার অবিলম্বে দুর্গাপুর ব্যারেজের সব কটি গেট মেরামত করা শুরু করেছে। পাশাপাশি রাজ্যের অন্য সমস্ত বাঁধের অবস্থা খতিয়ে দেখতে এবং প্রয়োজনীয় মেরামত করার নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।
আজ সকালেই দুর্গাপুর ব্যারেজের একটি স্লুইস গেট(৩১ নম্বর গেট)ভেঙে বিপর্যয় সৃষ্টি হয়। হু হু করে জল বেরিয়ে যেত থাকায় আশপাশের এলাকা প্লাবিত হয়ে বন্যার সম্ভাবনা পাশাপাশি আগামী দিনে বাঁকুড়া ও পশ্চিম বর্ধমানের তীব্র জল সংকট দেখা যাওয়ার ও আশঙ্কা তৈরি হয়েছে। এই ঘটনা জানতে পারার পর এই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সেচ দপ্তরের কর্তাদের সঙ্গে জরুরি বৈঠক করেন। সেখানে তিনি অবিলম্বে দুর্গাপুর ব্যারেজের ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তির পাশাপাশি সম্পূর্ণ বাঁধ মেরামতের নির্দেশ দিয়েছেন। দুর্গাপুর ব্যারেজের পাশাপাশি রাজ্যের অন্যান্য বিভিন্ন বাঁধ ও জলাধার অবিলম্বে সরকারের নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। ভবিষ্যতে এ ধরনের ঘটনার পুনরাবৃত্তি যাতে না ঘটে মানুষ যাতে অসুবিধায় না পারেন তা সুনিশ্চিত করতে বলেছেন মুখ্যমন্ত্রী। তিস্তা ব্যারেজের সংস্কার ইতিমধ্যে সম্পন্ন হয়েছে। মেসেঞ্জার এবং কংসাবতী জলাধার দ্রুত সংস্কার করতে নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।

দুর্গাপুর ব্যারেজের বিপত্তির প্রেক্ষিতে স্থানীয় স্তর থেকে বিভিন্ন অভিযোগ পাওয়া গিয়েছে। ২০১৭ সালেও ওই জলাধারের একটি গেট ভেঙে একই রকমের সংকট তৈরি হয়েছিল। স্থানীয়দের একাংশের অভিযোগ মেরামতি ঠিকমতো না হওয়ায় সংস্কার হওয়া গেটটি পুনরায় ভেঙে জল বেরিয়ে যাচ্ছে। নবান্নের তরফের অবশ্য এই অভিযোগ খারিজ করে দেওয়া হয়েছে। নবান্ন থেকে বিজ্ঞপ্তি জারি করে জানানো হয়েছে তিন বছর আগে দুর্গাপুরের দিকে বাঁধ এর এক নম্বর গেট ভেঙে গিয়েছিল। মেরামত হওয়া সেই গেট এখনো অক্ষত রয়েছে। এবার যে স্লুইসগেটটি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে সেটি বাঁকুড়ার দিকের ৩১ নম্বর গেট। কাজেই মেরামতি ঠিকমত না হওয়ার অভিযোগ ভিত্তিহীন।

Mailing List