কলকাতায় সেঞ্চুরি হাঁকাল ডিজেল, নিত্যপ্রয়োজনীয় খাদ্যের দাম বাড়ার আশঙ্কা

কলকাতায় সেঞ্চুরি হাঁকাল ডিজেল, নিত্যপ্রয়োজনীয় খাদ্যের দাম বাড়ার আশঙ্কা
28 Oct 2021, 10:21 AM

কলকাতায় সেঞ্চুরি হাঁকাল ডিজেল, নিত্যপ্রয়োজনীয় খাদ্যের দাম বাড়ার আশঙ্কা

 

আনফোল্ড বাংলা প্রতিবেদন : ফের দাম বাড়ল পেট্রোল ডিজেলের। লিটারে ৩৩ পয়সা বাড়ল দাম। এর জেরে বৃহস্পতিবার কলকাতায় ডিজেলের  দাম সেঞ্চুরি পার করল। কলকাতায় এদিন এক লিটার ডিজেলের দাম ১০০ টাকা ১৬ পয়সা। আগের দিন এর দাম ছিল ৯৯ টাকা ৭৮ পয়সা।  এক লিটার পেট্রোলের দাম ১০৮ টাকা ৮০ পয়সা।

রাজ্যের একাধিক জেলায় ইতিমধ্যেই সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছে ডিজেল। বাঁকুড়া সহ বিভিন্ন জেলায় একদিন এক লিটার ডিজেলের দাম ১০০ টাকা ৪৫ পয়সা।

নিত্যদিন জ্বালানির ঊর্ধ্বমুখী দামে হিমসিম খাচ্ছেন ক্রেতারা।  প্রবল ভোগান্তিতে ব্যবসায়ীরা। পকেটে টান সাধারণ মানুষের। দিওয়ালির আগে রেকর্ড গতিতে দৌড়চ্ছে জ্বালানির দাম।  এর ফলে খরচ বাড়ছে পণ্য পরিবহনের। এর জেরে শাক সব্জি, মাছ থেকে শুরু করে নিত্যপ্রয়োজনীয় খাদ্যের দাম বাড়ার আশঙ্কা ।

দেশের অন্তত ১২টি রাজ্যে ডিজেল অতিক্রম করেছে ১০০ টাকা। পেট্রল ১০০ টাকা পেরিয়েছে দেশের সব রাজ্যের রাজধানীতেই।  অর্থনীতিবিদরা জানিয়েছেন, আন্তর্জাতিক বাজারে এক বছরে দ্বিগুণ হয়েছে ব্যারেল প্রতি জ্বালানির দাম।  বিশেষজ্ঞদের মতে, বিশ্ব অর্থনীতি চাঙ্গা হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে তেলের চাহিদা বাড়ছে। তার জেরেই বিশ্ববাজারে তেলের দাম লাগামহীন।

দেশে তেলের দাম বাড়লেও কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে এখনই জ্বালানি তেলের উপর কর কমানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি। কেন্দ্রীয় সরকারের মতে, যদি জ্বালানি তেলের উপর লিটার প্রতি ৫ টাকা এক্সসাইজ ডিউটি কমানোও হয় তাহলে তেলের বাড়তি দাম থেকে মাত্র ০.২০ শতাংশ কম হবে। যা এমনকিছু প্রভাব ফেলবে না বাড়তি দামে। প্রসঙ্গত ২০২০ সালে মার্চ থেকে ২০২১ এর মাঝামাঝি পর্যন্ত কেন্দ্রীয় সরকার পেট্রোপণ্যের এক্সসাইজ ডিউটি থেকে ৩.৩৫ কোটি টাকা আয় করেছে। সরকারের মতে এই আয় আরও বেশি হতে পারত কিন্তু লকডাউনের কারণে এই আয় কম হয়েছে।

চলতি মাসে তিনদিন বাদ দিয়ে এখনও পর্যন্ত মোট ২০বার বেড়েছে পেট্রোল ডিজেলের দাম। তবে যে হারে দাম বাড়ছে তাতে আগামী দিনে আরও সমস্যায় পড়তে চলেছে সাধারণ মানুষ। প্রতিদিনই পেট্রোল ডিজেলের দাম ৩৫ পয়সা করে বেড়ে চলেছে।

মুম্বাইয়ে এক লিটার ডিজেলের দাম ১০৫ টাকা ১২ পয়সা, পেট্রোল ১১৪ টাকা ১৪ পয়সা। রাজস্থানের গঙ্গানগরে পেট্রোল ১২০ টাকা ৫২ পয়সা এবং ডিজেল ১১১ টাকা ৩৯ পয়সা। ব্যব্যসায়ীরা জানাচ্ছে, এর ফলে পরিবহন খরচ বারছে। তাই সব্জি, খাদ্যদ্রব্যের দাম বাড়তে পারে। অন্যদিকে, পেট্রোপ্ন্যের দাম বৃদ্ধি পাওয়ার কারণে যারা এখন দার্জিলিং, কালিম্পং , কারশিয়াং বা সিকিম ঘুরতে যাচ্ছেন তাদেরকেও বেশি টাকা দিয়ে গাড়ি ভাড়া করতে হচ্ছে। ফলে বেড়াতে গিয়েও বাড়তি টাকা খরচ হচ্ছে তাদেরকেও।  

 

 

ads

Mailing List