পুরুলিয়া অস্ত্রবর্ষণকাণ্ডে মূল অভিযুক্ত কিম ডেভিকে ভারতের হাতে তুলে দেবে  ডেনমার্ক  

পুরুলিয়া অস্ত্রবর্ষণকাণ্ডে মূল অভিযুক্ত কিম ডেভিকে ভারতের হাতে তুলে দেবে  ডেনমার্ক   
23 Feb 2022, 01:20 PM

পুরুলিয়া অস্ত্রবর্ষণকাণ্ডে মূল অভিযুক্ত কিম ডেভিকে ভারতের হাতে তুলে দেবে  ডেনমার্ক

 

আনফোল্ড বাংলা প্রতিবেদন :  পুরুলিয়া অস্ত্রবর্ষণ মামলায় মূল অভিযুক্ত কিম ডেভিকে ভারতের হাতে তুলে দেবে ডেনমার্ক। কিম ডেভিকে (Kim Davy) ভারতের হাতে তুলে দেওয়ার জন্য রাজি হলেও বেশ  কিছু শর্ত দিয়েছে ডেনমার্ক। জানা গিয়েছে, কিমকে ভারতের হাতে তুলে দেওয়ার জন্য ডেনমার্ক ভারতের আধিকারিকদের সঙ্গে আলোচনা করেছেন। তারা ঘুরে দেখছেন কলকাতার বিভিন্ন জেলের পরিকাঠামো। তারা একটি রিপোর্ট জমা দেবে ডেনমার্ক সরকারের কাছে।  তারপরেই কিমকে প্রত্যর্পণ নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে ডেনমার্কের সরকার। 

উল্লেখ্য  , ১৯৯৫ সালের ১৭ ডিসেম্বের বিমান থেকে পুরুলিয়ার বিভিন্ন জায়গায় অস্ত্র বর্ষণ করা হয়। সেই সময়ে প্রধানমন্ত্রী ছিলেন পি ভি নরসিমা রাও । কেন্দ্রে ক্ষমতায় কংগ্রেস। সেই সময় রাজ্যে বাম ফ্রন্ট, মুখ্যমন্ত্রী ছিলেন জ্যোতি বসু।

 একটি লাতিভিয়ান বিমানে করে পুরুলিয়া জেলার ঝালদা , খটঙ্গা, ,বেলামৌ, মারামু সহ আরও কিছু জায়গায় ফেলা হয় আগ্নেয়াস্ত্র। যে অস্ত্রগুলো ফেলা হয় তার মধ্যে ছিল একে ৪৭ এবং ১৬ হাজারের বেশি গুলি। ফেলা হয় আরও আধুনিক আগ্নেয়াস্ত্রও। এই ঘটনায় চমকে উঠেছিল দেশ। কী করে বিদেশি বিমান এসে পাহাড় জঙ্গলে ঘেরা ওই এলাকায় অস্ত্র বর্ষণ করে তা নিয়ে প্রশ্ন ওঠে। ওই ঘটনার মূল অভিযুক্ত ছিলেন কিম ডেভি ওরফে নিলস হল্ক ওরফে নিলস ক্রিস্টান নিয়েলসন। তাঁর দাবি ছিল, তৎকালীন কেন্দ্রীয় সরকারই এই ঘটনার জন্য দায়ী। সেই সময় কেন্দ্রের ক্ষমতায় ছিল কংগ্রেসের নেতৃত্বাধীন সরকার কিম দাবি করেছিল , কেন্দ্রের সরকার পশ্চিমবঙ্গ থেকে বামফ্রন্টের শাসন উৎখাত করতে চেয়েছিল। তাই ভারতীয় গুপ্তচর সংস্থা ‘র’ (RAW) এবং ব্রিটিশ গুপ্তচর সংস্থা  MI5-এর সঙ্গে ষড়যন্ত্র করে তারাই পুরুলিয়ায় অস্ত্র ফেলার ব্যবস্থা করে। সেই দায়িত্ব বর্তায় কিমের উপর। বদলে তাঁকে নিরাপদে দেশে ফেরানোর প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়।

এর আগেও একাধিক বার কিমকে ভারতের হাতে তুলে দেওয়ার দাবি জানানো হয়। কিন্তু সেই সময়ে ডেনমার্ক সেটা করতে রাজি না হলেও এবার কিম ডেভিকে  ভারতের হাতে তুলে দিতে রাজি হয়েছে ডেনমার্ক। সেই বিষয়ে ইতিমধ্যেই সংশ্লিষ্ট দু'পক্ষের মধ্যে আলোচনা শুরু হয়ে গিয়েছে। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে শীঘ্রই কিমকে ভারতের হাতে তুলে দেওয়া হবে। বিষয়টি নিয়ে জরুরি কথাবার্তা সারতে ইতিমধ্যেই কলকাতায় পৌঁছে গিয়েছে ডেনমার্কের প্রতিনিধিদল। এই দলের সদস্যরাই সরকারের তরফে পরবর্তী পদক্ষেপ কী হবে, তা অনেকাংশে স্থির করবেন বলে জানা গিয়েছে।

সূত্রের খবর, ডেনমার্কের প্রতিনিধিরা কলকাতার স্থানীয় দায়রা আদালতে যাবেন । সেখানে  পুরুলিয়া অস্ত্রবর্ষণ সক্রান্ত মামলার তথ্যাবলী জানতেই যাবেন তারা। তাঁদের সঙ্গে থাকবেন সিবিআই আধিকারিকরাও। কলকাতার সংশোধনাগারগুলিও ঘুরে দেখবেন তাঁরা। তারপর এই বিষয়ে তাঁদের বিস্তারিত রিপোর্ট তৈরি করে ডেনমার্ক সরকারের কাছে পেশ করবেন তাঁরা। সেই রিপোর্টের উপর ভিত্তি করেই কিমের প্রত্যর্পণ নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে ডেনমার্কের সরকার। তবে এখানে কিমের জন্য জেলে 'বিশেষ' বন্দোবস্ত করার দাবি এবং শর্ত রাখা হয়েছে।ডেনমার্ক সরকারের ঠিক করে দেওয়া মাপকাঠি অনুযায়ী জেলে কিমের জন্য বিশেষ ব্যবস্থা হলে একমাত্র তবেই তাঁকে নিজেদের হেফাজতে পাবে ভারত।

Mailing List