সিপিএম দুর্বল হয়েছে, বিজেপিকে মানুষ এই নির্বাচনেই বুঝিয়ে দেবেন: মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষ

সিপিএম দুর্বল হয়েছে, বিজেপিকে মানুষ এই নির্বাচনেই বুঝিয়ে দেবেন: মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষ
07 Mar 2021, 06:54 PM

সিপিএম দুর্বল হয়েছে, বিজেপিকে মানুষ এই নির্বাচনেই বুঝিয়ে দেবেন: মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষ

 

মধুমিতা দে, মালদা

 

‘‘বামদলে ৬০ বছরের না হলে এমএলএ টিকিট পাওয়া যায় না। আর শ্মশান ঘাটে না যাওয়া পর্যন্ত নেতারা দল ছাড়েন না। এই পরিস্থিতির জন্য আজকে ক্ষমতাচ্যুত হয়েছে সিপিএম। কিন্তু আমাদের দলনেত্রী মমতা ব্যানার্জি নবীন-প্রবীণদের মধ্যে সমন্বয় রেখেই প্রার্থী ঘোষণা করেছেন।’’ রবিবার মালদার গাজোলে আদিবাসী সমাবেশে যোগ দিতে এসে একথা বলেন উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন দপ্তরের মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষ।

এদিন দুপুরে গাজোলে আদিবাসী মানুষদের সমাবেশে যোগ দেওয়ার আগে মালদা শহরের সাংবাদিকদের প্রেক্ষাগৃহ প্রেস কর্নার ঘুরে দেখেন মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষ। সেখানে সাংবাদিকদের সঙ্গে খোলামেলা আলোচনায় বিজেপি এবং সিপিএমকে রীতিমতো তুলোধনা করেন মন্ত্রী।

উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন দপ্তরের মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষ বলেন, ২০১৯ সালে লোকসভা নির্বাচনে যে তথ্য আমরা জানতে পেরেছি, তাতে বামপন্থীদের একটা বড় অংশ বিজিপিকে তলে তলে সমর্থন জুগিয়েছিল। কিন্তু এরকম করে তৃণমূলকে শেষ করতে পারেনি। বরং তৃণমূলের সংগঠন আরও বেড়েছে। কিন্তু সেক্ষেত্রে বামেরা যে তিমিরে ছিল সেখানেই থেকে গিয়েছে। উল্টে বামেদের সংগঠন দুর্বল হয়েছে।তাদের কোনও অস্তিত্ব খুঁজে পাওয়া যায়নি। লোকসভা নির্বাচনের পর এখন বামেরা নিজেদের জায়গা তৈরি করতে উঠে পড়ে লেগেছে।

মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষ বলেন, মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি অনেক নতুন মুখ এবং নবীন প্রজন্মকে সামনে এনেছেন। তাদের এবারে বিধানসভার প্রার্থী করেছেন। প্রবীণেরাও আছেন। সুতরাং নবীন-প্রবীণের সমন্বয়ে রেখেই প্রার্থী তালিকা তৈরি করেছেন মুখ্যমন্ত্রী তথা দলনেত্রী মমতা ব্যানার্জি। যেটা এর আগে সিপিএম কোনদিনই করতে পারেনি। তাদের দলে ৬০ বছরের বুড়ো না হলে এমএলএ'র টিকিট পাওয়া যায় না। আর শ্মশানঘাট না যাওয়া পর্যন্ত পার্টিও ছাড়তে চান না। এভাবে তো একটা দল চলতে পারে না। সব সময় মনে রাখতে হবে নতুনদের জায়গা করে দিতে হবে।

এদিন আব্বাস সিদ্দিকীর আইএসএফ দলের প্রসঙ্গে মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষ বলেন, আইএসএফকে নিয়ে কিছুই বলার নেই। এ রাজ্যের মানুষ ওই দলকে কখনোই মেনে নেবে না। যারা বামেদের সমর্থন করে রাজনীতি করছে। কারণ, গত ৩৪ বছর বাম শাসনের বাংলার মানুষ কিভাবে অত্যাচারিত হয়েছে সেটা এখনো কেউ ভুলেনি। কাজেই বামেদের নিয়ে জোটে সমর্থন করে রাজনীতি মানুষ কখনোই মেনে নেবে না।

এদিন মোদির ব্রিগেড সভা প্রসঙ্গে মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষ বলেন, বিজেপির কি অস্তিত্ব আছে সেটা তো আসন্ন বিধানসভার নির্বাচনে মানুষ বলে দেবে। কিছু পেটমোটা নেতারা বিজেপিতে যোগদান করছেন। আসলে বিজেপির নিজস্ব কোন অস্তিত্ব নেই। ভাড়াটিয়া সৈন দিয়েই তারা তাদের দল চালাতে চাইছে। এটা কখনোই সম্ভব না। বাংলায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি মানুষের পাশে ছিলেন, আছেন এবং আগামী দিনেও থাকবেন। তাই তৃতীয়বারের জন্য আবারও তৃণমূল সরকার গঠন হবে পশ্চিমবঙ্গে।

Mailing List