কর ছাড়ের তালিকা মিলিয়ে নিন, মমতাকে জবাব দিলেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী

কর ছাড়ের তালিকা মিলিয়ে নিন, মমতাকে জবাব দিলেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী
09 May 2021, 07:40 PM

কর ছাড়ের তালিকা মিলিয়ে নিন, মমতাকে জবাব দিলেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী



 

আনফোল্ড বাংলা প্রতিবেদন:  রবিবার সকালেই অক্সিজেন সিলিন্ডার সরবারহ  সহ করোনায় প্রয়োজনীয় ওষুধ ও সরঞ্জামের উপর থেকে কর তুলে নেওয়ার দাবি নিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে চিঠি লিখেছিলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর বিকালেই তার জবাব দিলেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন। সোশ্যাল মিডিয়াতে মুখ্যমন্ত্রীর সেই চিঠির জবাব দিয়ে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী দাবি করেছেন যে,  যেসব চিকিৎসা সরঞ্জামের উপর কর ছাড় চেয়েছেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী সেসবের অধিকাংশতেই আগে থেকেই ছাড় দিয়েছে কেন্দ্র।

পর পর  ১৬টি ট্যুইট করে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সেই চিঠির জবাব দিয়েছেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী। এই সাথেই রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীকে তাঁর পরামর্শ , রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী যেন কর ছাড়ের তালিকা দেখে মিলিয়ে নেন। 

রবিবার সকালে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী চিকিৎসা সরঞ্জামের উপর কর ছাড়  চেয়ে প্রধানমন্ত্রীকে যে চিঠি পাঠিয়েছেন তার উল্লেখ করেই নির্মলা সীতারামন দাবি করেছেন,  যেসব চিকিৎসা সরঞ্জামের উপর কর ছাড় চেয়েছেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী সেসবে আগে থেকেই ছাড় দিয়েছে কেন্দ্র।

রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী রবিবার যে পাঠান তাতে  বিদেশ থেকে অনুদান পাওয়া করোনাভাইরাস সরঞ্জামের ক্ষেত্রে শুল্ক এবং জিএসটি তুলে নেওয়ার আবেদনই ছিল প্রধান। প্রধানমন্ত্রী কোনও জবাব না দিলেও  নির্মলা সীতারমন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর চিঠির প্রতিটি পয়েন্ট ধরে জবাব দিয়েছেন। তাঁর দাবি, আমদানি শুল্ক এবং স্বাস্থ্য সংক্রান্ত সেসের ক্ষেত্রে ছাড়ের ঘোষণা আগেই করেছে কেন্দ্র। এছাড়া বিদেশ থেকে যে সব অনুদান পাঠানো হচ্ছে, সেই সব সরঞ্জামের ক্ষেত্রে আইজিএসটি ছাড়ের বিষয়টি গত ৩ মে ঘোষণা করা হয়েছে বলে দাবি কেন্দ্রীয় অর্থ মন্ত্রীর।  নির্মলা  সীতারমনের দাবি, ইতিমধ্যেই রেমডেসেভির ইঞ্জেকশন, ওষুধ তৈরির জন্য রাসায়নিক আমদানি উপরও শুল্ক ছাড়ের ঘোষণা  করেছে কেন্দ্র। মেডিক্যাল অক্সিজেন, অক্সিজেনের জোগাড় করা ও তা সঞ্চয় করে রাখার জন্য প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রে সবরকম শুল্কের ছাড় ইতিমধ্যেই দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী ।


এদিন সকালে  প্রধানমন্ত্রীকে পাঠানো চিঠিতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় লেখেন, “‌গোটা দেশের মতো পশ্চিমবঙ্গেও  বেলাগাম সংক্রমণ করোনার। আমরা সকলেই এই পরিস্থিতির মোকাবিলায় নিজেদের মতো লড়ছি । ওষুধ এবং চিকিৎসা সামগ্রীর সরবরাহ যাতে বজায় থাকে তা নিশ্চিত করতে বিভিন্ন উৎসকে কাজে লাগানো হচ্ছে করোনার চিকিৎসায় ওষুধ এবং চিকিৎসা–সামগ্রী থেকে জিএসটি প্রত্যাহার করা হলে এই সময় খানিক স্বস্তি পাবে সাধারণ মানুষ।”‌

তবে জিএসটি ছাড়ের দাবি নিয়ে অর্থমন্ত্রী জানিয়েছেন,  এটা করা হলে সাধারণ মানুষের স্বস্তির বদলে অবস্থা হিতে বিপরীত হবে।

 

Mailing List