হাসপাতাল, নার্সিংহোম মানবিক না হলে লাইসেন্স বাতিল: মমতা

হাসপাতাল, নার্সিংহোম মানবিক না হলে লাইসেন্স বাতিল: মমতা
13 Feb 2020, 12:00 AM

হাসপাতাল, নার্সিংহোম মানবিক না হলে লাইসেন্স বাতিল: মমতা

আনফোল্ড বাংলা প্রতিবেদন, দুর্গাপুর (পশ্চিম বর্ধমান): হাসপাতাল বা নার্সিং হোম থেকে হামেশাই রোগী ফিরিয়ে নেওয়ার অভিযোগ ওঠে। সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশই রয়েছে, রোগীকে কোনও অবস্থাতেই ফিরিয়ে দেওয়া যাবে না। ভর্তি নিতেই হবে। সেই নির্দেশের পরেও সরকারি হাসপাতাল তো বটেই, নার্সিং হোম থেকেও রোগী ফিরিয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠছে। রাজ্য সরকার যে এই ঘটনা আর মেনে নেবে না দুর্গাপুরের প্রশাসনিক বৈঠক থেকে সে কথা স্পষ্ট জানিয়ে দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রাজ্যের প্রতিটি হাসপাতাল এবং নার্সিংহোমকে মুখ্যমন্ত্রী মানবিক হওয়ার পরামর্শ দিয়ে বলেন, অদূর ভবিষ্যতে এই ধরনের অভিযোগ উঠলে সংশ্লিষ্ট হাসপাতাল বা নার্সিং হোমের লাইসেন্স বাতিল করতে সরকার দ্বিধা করবে না। বুধবার বাঁকুড়ায় প্রশাসনিক সভা করেই সোজা দুর্গাপুর যান মুখ্যমন্ত্রী। সেখানে মিছিল করেন। বুধবার বাঁকুড়াতেই থেকে গিয়েছিলেন। এদিন দুর্গাপুরে প্রশাসনিক বৈঠক করেন।

বুধবার মুখ্যমন্ত্রীর পদযাত্রা দুর্গাপুরে

মুখ্যমন্ত্রী সাফ জানান, স্বাস্থ্যসাথী প্রকল্পে সরকার টাকা দিচ্ছে। এই প্রকল্পে প্রায় ১২০০ কোটি টাকা দিয়েছে সরকার। আর এই প্রকল্পটি অত্যন্ত মানবিক। মানুষের জন্যই এই প্রকল্প করা হয়েছে। অথচ, এই প্রকল্পে কেউ চিকিৎসা পরিষেবা চাইলে হাসপাতাল ফিরিয়ে দেবে, তা মেনে নেওয়া যাবে না।

দুর্গাপুরবাসীদের কী সমস্যা রয়েছে তা জানতে চান মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। প্রশাসনিক সভায় উপস্থিত ছিলেন দুর্গাপুরের মেয়র ও জেলা প্রশাসনের পদস্থকর্তারা। মেয়রের প্রতিও মুখ্যমন্ত্রী ‘মানবিক’ হওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন। মুখ্যমন্ত্রী বলেন, প্রশাসকের ভূমিকার সঙ্গে প্রকল্প বাস্তবায়নের বিষয়টিকেও ওতপ্রোতভাবে জড়িয়ে নিতে হবে। পথবন্ধু অ্যাপের প্রসঙ্গ উল্লেখ করে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, দুর্ঘটনার পর আহতকে দ্রুত যাতে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া যায়, তার জন্য রাজ্য সরকার গত বছর এই অ্যাপের সূচনা করে।

Mailing List