নিয়ন্ত্রণরেখায় চিনের ভূমিকা সদর্থক নয়, দাবি ভারতীয় সেনার, ফের বৈঠকের সম্ভাবনা

নিয়ন্ত্রণরেখায় চিনের ভূমিকা সদর্থক নয়, দাবি ভারতীয় সেনার, ফের বৈঠকের সম্ভাবনা
01 Aug 2020, 01:30 PM

নিয়ন্ত্রণরেখায় চিনের ভূমিকা সদর্থক নয়, দাবি ভারতীয় সেনার, ফের বৈঠকের সম্ভাবনা

আনফোল্ড বাংলা ডেস্ক: ভারত-চিন সীমান্ত থেকে সেনা সরানোর ক্ষেত্রে চিনের পদক্ষেপ মোটেই সদর্থক নয়। ফলে বেজিংয়ের উদ্দেশ্য নিয়েই এবার প্রশ্ন উঠছে। যথেষ্ট সন্দিহান ভারতীয় সেনা। তাই যেকোনও সম্ভাবনার জন্যই ভারত নিজেদের তৈরি রেখেছে। প্যাংগং ও পিপি ১৭-এ সহ নিয়ন্ত্রণরেখায় বিরোধের জায়গাগুলো থেকে লাল ফৌজ না সরলে সীমান্তে বাড়তি বাহিনী মোতায়েনের বিবেচনা করছে ভারতীয় সেনা। ভারতীয় সেনার এক উচ্চপদস্থ আধিকারিক জানিয়েছেন, প্রতিপক্ষের কাজের উপর যে কোনও পদক্ষেপ নির্ভর করে। ওরা যতক্ষণ না সরছে ততক্ষণ যে কোন পরিস্থিতির জন্য প্রস্তুত থাকতে হবে। কারণ যখন-তখন পরিস্থিতি বদল হতে পারে। পর্যালোচনার ভিত্তিতেই বাহিনী মোতায়েন হবে। অর্থাৎ, নিয়ন্ত্রণরেখা থেকে লাল ফৌজের না সরা পর্যন্ত লাদাখে দু’দেশের বিরোধের পয়েন্টগুলোতে বাড়তি ভারতীয় সেনাবাহিনী মোতায়েন থাকবে। বৃস্পতিবারই ভারতে নিযুক্ত চিনা রাষ্ট্রদূত দাবি করেছিলেন যে, উভয় দেশের বিরোধের অধিকাংশ জায়গা থেকেই লাল ফৌজ সরে গিয়েছে। কিন্তু, দিল্লি জানিয়েছে, প্যাংগং ও পেট্রোলিং পয়েন্ট ১৭-এ থেকে চিনা সেনা সরেনি। এমনকী দেপসাংয়ের অবস্থারও বদল হয়েনি। ভারতীয় সেনার নর্দান কমান্ডারের লেফটেনেন্ট জেনারেল ওয়াইকে যোশীর কথায়, লাদাখে আরও ৩৫ হাজার বাড়তি বাহিনী মোতায়েন করা হবে। অবস্থার উন্নতি না হওয়া পর্যন্ত এই বাহিনী সেখানে থাকবে। সব সম্ভাবনার জন্য ভারত প্রস্তুত। শীতে অতি উচ্চতায় সেনা মোতায়েনের জন্য প্রস্তুতি অনেকটাই সারা, রসদ পৌঁছানো কিভাবে হবে তা চূড়ান্ত করা হচ্ছে। নিয়ন্ত্রণরেখায় উত্তেজনা প্রশমণে চিনা রাষ্ট্রদূতের মন্তব্য, ভারত-চিন সেনা-কূটনীতিক পর্যায়ের আলোচনায় সমাধানসূত্র মেলার ক্ষেত্রে বর্তমান পরিস্থিতি মোটেই আশার আলো দেখাচ্ছে না। তাই অগাস্টের প্রথম সপ্তাহে দু'দেশের সেনাপর্যায়ে পঞ্চম বৈঠক হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

Mailing List